গোল করলেন, গোল করালেন, অধিনায়কের মতই নিয়ন্ত্রণ করলেন গোটা ম্যাচ। দেখা গেল সেই পুরনো ম্যাজিকের ছোঁয়াও। শুক্রবার রোনাল্ডো যা করতে পারেননি। করে দেখালেন সেটাই। আরও একবার প্রমাণ করলেন কেনও তিনি বর্তমানে বিশ্বের সেরা ফুটবার। একেই হয়তো বলে রাজকীয় প্রত্যাবর্তন।  শনিবার রাতে মালোরকার বিরুদ্ধে করোনা অথবা লকডাউন পরবর্তী সময়ে প্রথমবার মাঠে নেমেছিল মেসির বার্সেলোনা। গোটা বিশ্বের নজর ছিল দীর্ঘ বিরতির ফলে করোনা ভাইরাস কী মেসির ফুটবল স্কিলেও থাবা বসিয়েছে। কিন্তু মেসির দৃষ্টিনন্দন ফুটবল সব আশঙ্কার অবসান ঘটিয়ে আস্বস্ত করল তার বিশ্ব জুড়ে কোটি  কোটি ভক্তদের। এদিন লা লিগায় দুর্বল মালোরকার বিরুদ্ধে ৪-০ গোলে ম্যাচ জিতে শীর্ষস্থানও ধরে রাখল কিকে সোতিয়েনের দল।

আরও পড়ুনঃরাহুল,পুজারা সহ ৫ ক্রিকেটারকে নোটিস ধরাল নাডা

এদিন খেলার শুরুর ২ মিনিটের মধ্যেই গোল করে বার্সাকে এগিয়ে দেন ভিদাল। প্রথম গোল করার পর আক্রমণের মাত্রা আরও বাড়ায় বার্সা। ম্যাচের ৩৭  মিনিটে মেসির পাস থেকে বার্সা হয়ে দ্বিতীয় গোলটি করেন ব্রেথওয়েট। প্রথমার্ধের খেলা শেষ হয় ২-০ ব্যবধানে। দ্বিতীয়ার্ধে আক্রমণে  উঠতে শুরু করে মালোরকাও। যদিও বার্সার রক্ষণ ভাঙতে পারেনি মালোরকার অ্যাটাকিং লাইন। ম্যাচের ৭৯ মিনিটে দলের হয়ে তৃতীয় গোলটি করেন জর্ডি আলাবা। তারপর ম্যাচ যখন একেবারে শেষ মুহূর্তে সকলেই ভাবছেন দূরন্ত ফুটবল খেললেও হয়তো প্রত্যাবর্তনের ম্যাচে নিজের গোল ছাড়াই মাঠ ছাড়তে হবে মেসিকে। কিন্তু নিরাশ করেননি মেসি। ম্য়াচের ইনজুরি টাইমের ৯৩ মিনিটে দুরন্ত গোল করে ৪-০ গোলে বার্সার জয় নিশ্চিত করেন মেসি। আর এই জয়ের ফলে ২৮ ম্যাচে ৬১ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের শীর্ষস্থান ধরে রাখল বার্সেলোনা।

আরও পড়ুনঃএবার এক ১৬ বছরের ফুটবলারকে গুলি করে মারল পুলিস

আরও পড়ুনঃঅস্থায়ী ভাবে কিছু নিয়ম পরিবর্তন করলো ফিফা, মরশুম শেষের আগেই খুলবে ট্রান্সফার মার্কেট

এদিন মালোরকার বিরুদ্ধে সেই পুরনো লুকেও দেখা গেল লিও মেসিকে। নেই কোনও গোঁফ বা দাড়ি।  আগের মতো সেই লম্বা চুলের মেসি।ক ে গিয়েছে অনেকটাই। নতুন রুপে খেলতে নেমে নতুন রেকর্ডেরও মালিক হলেন লিও। এদিন খেলার শেষ মুহূর্তে এই মরশুমে নিজের কুড়িতম গোলটি করে ফেলেন বার্সা অধিনায়ক। যার ফলে একমাত্র ফুটবলার হিসেবে টানা ১২ মরশুম লা-লিগায় ২০ বা তার বেশি গোলের মালিক হলেন মেসি। সলব মিলিয়ে মেসি ও বার্সার প্রত্যাবর্তনে খুশি বিশ্ব জুড়ে কোটি কোটি বার্সা ও মেসি ভক্ত থেকে শুরু করে বার্সেলোনা ক্লাব কর্তারাও।