করোনার কোপে এবার  এশিয়ার অন্যতম সেরা ক্লাব টুর্নামেন্ট।  মারণ ভাইরাসের জেরে এবার পিছিয়ে গেল এফসি কাপ। গ্রুপ পর্যায়ের খেলা আয়োজন করতে পারবে না মলদ্বীপ। সাফ জানিয়ে দিল মলদ্বীপ সরকার। আর এরজন্য দায়ী ভারতের ফুটবল ক্লাব বেঙ্গালুরু এফসি। অভিযোগ জৈব সুরক্ষা বলয়ের নিয়ম ভেঙে রাতে রাস্তায় ঘুরে বেড়াতে দেখা যায় সুনীল ছেত্রী, গুরপ্রীত সিংহ সান্ধুদের। এরপরই বেজায় চটে যায় মলদ্বীপ প্রশাসন। সুনীল দেশে দ্রুত দেশে পাঠানোর ব্যবস্থা করার পাশাপাশি প্রতিযোগিতা আয়োজন করতে নারাজ তারা।

 

 

বিষয়টি নিয়ে বেজায় চটেছে মলদ্বীপে ফুটবল সংস্থা প্রশাসন। মলদ্বীপ সরকার ভারত থেকে আগত দুটি ক্লাব বেঙ্গালুরু এফসি ও এটিকে মোহনবাগান-এর জন্য কড়া সুরক্ষা বলয় তৈরি করেছিল।  সুনীলরা নিয়ম অমান্য করায় বেঙ্গালুরু এফসিকে এক মুহূর্তও মলদ্বীপে রাখতে রাজি নয় তারা। মলদ্বীপের ক্রীড়ামন্ত্রী আহমেদ মাহলুফ শনিবার রাতে টুইটারে লেখেন,'বেঙ্গালুরু এফসির ফুটবলাররা কোনও নিয়ম মানছে না। ওঁদের দ্রুত ভারতে পাঠিয়ে দেওয়া উচিত। যে আচরণ ওঁরা করছে, তা একেবারেই গ্রহণযোগ্য নয়।' সুনীলদের এহেন আচরণে গোটা দেশের মুখ পুড়ল বলে মত সকলের।

 

 

রবিবার সকালে আরও একটি ট্যুইট করে প্রতিযোগিতা ন করার কথা জানান মলদ্বীপের ক্রীড়ামন্ত্রী আহমেদ মাহলুফ। তিনি লেখেন,'বর্তমান পরিস্থিতিতে মলদ্বীপে এএফসি কাপের আয়োজন সম্ভব নয়। মলদ্বীপের ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনকে এই টুর্নামেন্ট আয়োজনের যে অনুমতি দেওয়া হয়েছিল, তা প্রত্যাহার করে নেওয়া হচ্ছে।' এএফসি কাপ বাতিল হওয়ায় কিছুটা সুবিধা হল এটিকে মোহনবাগানের। কারণ সবুজ-মেরুণ শিবিরেও থাবা বসিয়েছে মারণ ভাণইরাস। তারা এমনিতেই এই প্রতিযোগিতা খেলতে চাইছিলেন না।