গত ৮ মার্চ ইন্টার মিলানের বিরুদ্ধে শেষ ম্যাচ খেলেছিলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। তারপর ইতালি জুড়ে করোনার থাবা আরও বাড়ে। সুরক্ষার জন্য ইতালি ছেড়ে নিজের হোমটাউন মাদেইরায়তে ফিরে গিয়েছিলেন সিআরসেভেন। প্রায় ২ মাস হোমটাউনে পরিবারের সঙ্গে কাটান তিনি। তারপর ইতালির পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হতেই শিথিল করা হয় লকডাউন। প্লেয়ারদের অনুশীলনে ডাকে জুভেন্টাস ক্লাব কর্তৃপক্ষ। চলতি মাসের শুরুতেই প্রাইভেট জেটে ইতালি পৌছান তিনি। তারপর সরকারি নিয়ম মেনে পরিবারকে নিয়ে ১৪ দিনের দিনের কোয়ারেন্টাইনে যান জুভেন্টাসের মধ্যমণি। অপেক্ষা ছিল শুধু বল পায়ে অনুশীলননে নামার। অবশেষে সেই অপেক্ষার অবসান। কোয়ারেন্টাইন কাটিয়ে জুভেন্টাসের অনুশীলনে যোগ দিলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো।

 

 

আরও পড়ুনঃকন্যা সন্তানের বাবা হলেন বিশ্বের দ্রুততম মানব উসেইন বোল্ট

প্রায় ১দ সপ্তাহ পর অনুশীলনে নামলেন সিআরসেভেন। নিজেই গাড়ি ড্রাইভ করে ক্লাবের ট্রেনিং গ্রাউন্ডে পৌছন তিনি। করোনা পরবর্তী সময় প্রথমদিন ক্লাবের অনুশীলনে পৌঁছে পর্তুগিজ সুপারস্টার করোনা পরীক্ষা দিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। করোনা ছাড়াও বাদবাকি স্বাস্থ্য পরীক্ষাও করা হয় রোনাল্ডোর। প্রথম দিন হালকা অনুশীলন করেন পর্তুগীজ তারকা। হালকা ফিটনেস ট্রেনিং,বল নিয়ে অনুশীলনও করেন। জুভেন্টাস ক্লাবের পক্ষ থেকে রোনালল্ডোর অনুশীলনের ছবি শেয়ার করা সোশ্যাল মিডিয়ায়। শুধু ক্রিশ্চিয়ানো নয়, পুরো দলের অনুশীলনের ছবিও শেয়ার করা হয় ক্লাবের তরফ। নিজের ট্যুইটার অ্যাকাউ্নট থেকে ছবি শেয়ার করেন খোদ ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোও। 

 

 

আরও পড়ুনঃস্বার্থপর ক্রিকেটার বলায় শেন ওয়ার্নকে পালটা জবাব দিলেন স্টিভ ওয়া

আরও পড়ুনঃব্যাট ছেড়ে কাচি হাতে সচিন, কাটলেন ছেলে অর্জুনের চুল

২৬ ম্যাচে ৬৩ পয়েন্ট নিয়ে আপাতত স্থগিত লিগে শীর্ষস্থানে অবস্থান করলেও জুভেন্তাসের কাঁধে নিঃশ্বাস ফেলছে ল্যাজিও। ২৬ ম্যাচে তাঁদের পয়েন্ট ৬২।  ২৫ ম্যাচে ৫৪ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয়স্থানে রয়েছে ইন্টার মিলান। তাই মনে করা হচ্ছে লিগ পুনরায় চালু হলে দলের মধ্যমনি রোনাল্ডোর টপ ফর্মে থাকাটা জরুরি ‘ওল্ড লেডি’দের জন্য। তবেই টানা নবমবারের জন্য খেতাব নিশ্চিত করতে পারবে তাঁরা। ফলে দীর্ঘ বিরতির পর সিআরসেভেন অনুশীলনে ফেরায় বিশ্ব জুড়ে খুশি রোনাল্ডো অনুগামী থেকে শুরু করে জুভেন্টাস ভক্ত ও ফুটবল প্রেমীরা।