করোনা ভাইরাসের অজুহাত দিয়ে চুক্তি শেষের একমাস আগেই ইষ্টবেঙ্গল প্লেয়ার ও কোচদের সঙ্গে চুক্তি শেষ করেছিল কোয়েস।  ক্লাবের এহেন আচরনে ক্ষুব্ধ ইষ্টবেঙ্গল ফুটবলার ও কোচ। আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার হুশিয়ারি আগই দিয়েছিলেন প্লেয়াররা। সম্প্রতি দেশে ফিরেছে ইষ্টবেঙ্গলের স্প্যানিশ কোচ মারিও রিবেরা, কোলাডো সহ অন্যান্য স্পেনের প্লেয়াররা। দেশে ফিরেই ইস্টবেঙ্গলের ইনভেস্টর কোয়েসের বিরুদ্ধে এবার চুক্তিভঙ্গের অভিযোগে ফিফার দ্বারস্থ হতে চলেছেন গত মরশুমের কোচ মারিও রিভেরা-সহ একাধিক ফুটবলার। সূত্রের খবর, স্প্যানিশ কোচ দেশে ফিরেই লাল-হলুদ টিম ম্যানেজমেন্টকে একটি চিঠি পাঠিয়েছেন। মনের মতো উত্তর না পেলে এই বিষয়টি নিয়ে আন্তর্জাতিক ফুটবল নিয়ামক সংস্থার দ্বারস্থ হওয়ার হুমকি দিয়েছেন রিভেরা।

আরও পড়ুনঃআহমেদাবাদের অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়ালেন দিমিত্রি বাস্কভ

ফুটবলার ও কোচের সঙ্গে ৩১ মে পর্যন্ত চুক্তি ছিল কোয়েস ইষ্টবেঙ্গলের। কিন্তু করোনা ভাইরাসের কারমে মাঝপথে স্থগিত হয়ে যায় আইলিগ। কিন্তু আইলিগ নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত পর্যন্ত অপেক্ষা করছিল কোয়েস কর্তৃপক্ষ। ফেডারেশনের পক্ষ থেকে আইলিগের বাকি ম্যাচ বাতিল ঘোষমা করে মোহনবাগানকে চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হয়। তারপরই   ‘ফোর্স মেজর’ অর্থাৎ জরুরি পরিস্থিতির অজুহাত দেখিয়েই ফুটবলারদের চুক্তি একমাস আগে শেষ  করে দেয় কোয়েস। শেষ মাসের বেতনও দেওয়া হয়নি ফুটবলার, কোচ, সাপোর্টিং স্টাফদের। কোচের সঙ্গে কোয়েসের বিরুদ্ধে চুক্তিভঙ্গের অভিযোগ জানাবেন লাল-হলুদ শিবিরের বেশ কিছু ফুটবলারও।  তবে রিভেরা ফিফার দ্বারস্থ হওয়ার কথা ভাবলেও ফুটবলারদের মত, বিষয়টি আগে ফুটবল প্লেয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন অফ ইন্ডিয়াকে  জানাতে। সেই মর্মে তিন জন ফুটবলার লিখিত অভিযোগ করেছেন। একইসঙ্গে কোয়েসের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপের হুমকিও দিয়েছেন।

আরও পড়ুনঃছবিতে লারার সঙ্গে তারকা ক্রিকেটারকে চিনতে পারছেন,ট্রোল করলেন স্বয়ং ক্রিকেটের রাজপুত্র

আরও পড়ুনঃদর্শকশূন্য মাঠে তৈরি হবে না ম্যাজিকাল মুহূর্ত, মন্তব্য বিরাট কোহলির

যদিও ইষ্টবেঙ্গল ফুটবলার ও কোচের পদক্ষেপ নিয়ে ভাবতে নারাজ কোয়েস। যদি কোয়েস মনে করছে কোনও পথেই গিয়েই খুব একটা লাভ হবে না ইষ্ট বেঙ্গল ফুটবলারদের ও কোচের। আগেই কোয়েসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল, ফুটবলাররা যদি ফিফাতেও যান, তাতেও কোনও লাভ হবে না। কারণ, এমনিতেই করোনার জেরে উদ্ভুত পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে ফিফা ফুটবলারদের অনুরোধ করছে বেতন কম নিতে। ফুটবল বিশেষজ্ঞদের মতে, সব দিক বিচার করেই এই সময়কে চুক্তি বিচ্ছেদের সময় হিসেবে বেছে নিয়েছে কোয়েস। তবে হাল ছাড়তে নারাজ ইষ্টবেঙ্গল কোচ মারিও রিভেরা।