আইএসএলে অন্তর্ভুক্তি প্রক্রিয়া প্রায় সম্পন্ন। এখনও দলগঠনের অনেকটাই বাকি রয়েছে লাল হলুদ শিবিরে। হাতে সময় বড্ড কম। সেইজন্যই আপাতত খেলোয়াড় ও কোচদের সাথে কথাবার্তা সেরে রাখছেন ইস্টবেঙ্গল কর্মকর্তারা। প্রধানত বিদেশি খেলোয়াড় নিয়েই চিন্তায় লাল হলুদ শিবির। কারণ ইস্টবেঙ্গলের কোচ নিয়োগ খুব একটা সমস্যার বিষয় নয়। কলকাতা ময়দানের ঐতিহ্যশালী ক্লাবের সঙ্গে যুক্ত হতে মুখিয়ে থাকেন অনেক কোচই। সেই দলে রয়েছে স্পেনের ফুটবলমহলে বেশ পরিচিত নাম রিস্তো ভিদাকোভিচ।

আরও পড়ুনঃএবারের আইপিএল চ্যাম্পিয়ন হবে কোন দল, ভবিষ্যদ্বাণী করলেন কেভিন পিটারসন

শুধুমাত্র কোচ নয়, তার সাথে সাথে ফুটবলার হিসেবেও যথেষ্ট খ্যাতি রয়েছে তার। ১৯৯১ থেকে ১৯৯৮ পর্যন্ত তখনকার যুগোস্লাভিয়ার হয়ে ফুটবল খেলেছেন ভিদাকোভিচ। শোনা যাচ্ছে আসন্ন মরশুমে লাল হলুদ দলের কোচিং করানোর জন্য যথেষ্ট আগ্রহী তিনি। কোচ হিসেবে ২০১৮ সালে সেরেস-কে ফের ফিলিপিন্স লিগ চ্যাম্পিয়ন করেন ভিদাকোভিচ। ২০১৭ সালে প্রথম দল হিসেবে এএফসি আশিয়ান কাপ জেতে এবং এএফসি কাপ ইন্টার জোনের সেমিফাইনালে পৌঁছায় সেরেস।  ইস্টবেঙ্গলে কোচিং করানোর বিষয়ে তিনি বলেছেন, দায়িত্ব পেলে সঠিক পরিকল্পনার মাধ্যমে সেরেসের থেকেও ভাল জায়গায় পৌঁছে দিতে পারেন ইস্টবেঙ্গলকে। 

আরও পড়ুনঃউষ্ণতার আবেদনে বিশ্বকে ভাসিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন নেইমারের বোন, খ্যাতির দৌড়ে হয়তো পেছনে ফেলে দেবেন দাদাকেও

তিনি সেরেস সম্পর্কে আরও বলেছেন যে একেবারে শূন্য থেকে সেরেসকে এশিয়ার সেরা ক্লাবের তালিকায় তিরিশে পৌঁছে দেওয়ার ব্যাপারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছিলেন তিনি। ইস্টবেঙ্গলের মতো বড় ক্লাবকে কোচিং করানো তার কাছে যথেষ্ট সম্মানের ব্যাপার। ফুটবলার হিসাবে তার যা সাফল্য, তার থেকে কোচ হিসেবেই বেশি সফল ভিদাকোভিচ। ইতিমধ্যেই শোনা যাচ্ছে তার বায়োডাটা নিয়ে রেখেছেন লাল হলুদ কর্তারা। এখন দেখার বিষয় হল শেষমেশ ইস্টবেঙ্গলের সঙ্গে এই অভিজ্ঞ কোচ যুক্ত হতে পারেন কিনা।

আরও পড়ুনঃপর্ণ দুনিয়ার ভরছে না মন, কার রেসিংয়ের উত্তেজনায় ফিরতে চান রেনি গ্রাসি