আসন্ন মরশুমের জন্য স্প্যানিশ কোচ মারিও রিভেরাকে সম্ভবত রেখে দিতে চলেছে ইস্টবেঙ্গল। এখন তারা খোঁজ করছেন একজন ভারতীয় কোচের। এমন ভারতীয় কোচ যিনি এএফসি প্রো লাইসেন্সের অধিকারী হবেন। এই নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় দলের ভক্তদের মধ্যে একাধিক নাম উঠে আসছে। কিন্তু শেষপর্যন্ত এখনও অবধি চার ভারতীয় কোচকে আপাতত টার্গেট করেছেন লাল-হলুদ কর্তারা। এই চার কোচ হলেন – ক্লিফোর্ড মিরান্ডা, ডেরেক পেরেইরা, সন্তোষ কাশ্যপ এবং স্ট্যানলি রোজারিও। চারজন কোচই ভারতীয় ফুটবলে বেশ কিছুদিন কাজ করেছেন। 

আরও পড়ুনঃবুন্দেশলিগায় ৫-০ গোলে জয় বায়ার্নের,টানা অষ্টমবার খেতাব জয় এখন সময়ের অপেক্ষা

আরও পড়ুনঃবায়ার্নের বিরুদ্ধে হার অতীত,জয়ে ফিরতে মরিয়া বরুশিয়া ডর্টমুন্ড

 এদের মধ্যে ক্লিফোর্ড মিরান্ডা ভারতের হয়ে ৪৫টি ম্যাচ খেলেছেন। ২০১৭ সালে এই মাঝমাঠের খেলোয়াড় পেশাদারি ফুটবল থেকে অবসর নেন। গত মরশুমের শেষভাগে আইএসএল-এ এফসি গোয়ার অন্তবর্তী কোচের ভূমিকা পালন করেছিলেন মিরান্ডা। শুধু দায়িত্ব পালন বললে কম হবে বরং বলা যায় দলকে এএফসি চ্যাম্পিয়নস লিগে তোলার ক্ষেত্রে বড় ভূমিকা রেখেছেন। এই নতুন কোচের সাথে আরও একজন গোয়ানিজ কোচের নাম জোরালো ভাবে উঠেছে। তিনি আবার কোচিংয়ের ক্ষেত্রে অনেক বেশি অভিজ্ঞ। এর আগে ভাস্কো, মাহিন্দ্রা, পুনে, চার্চিল ব্রাদার্স ও সালগাওকারের মতো বড় বড় দলের দায়িত্ব সামলেছেন তিনি। তিনি হলেন গোয়ানিজ কোচ ডেরেক পেরেইরা। এছাড়াও ভারতীয় অনুর্ধ্ব ২৩ দলের দায়িত্বও সামলেছিলেন পেরেইরা। শোনা যাচ্ছে ক্লিফোর্ড মিরান্ডা বা তার মধ্যে কোনও একজনের দায়িত্ব পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি

আরও পড়ুনঃকরোনা ভাইরাসের জের,এবার পিছিয়ে গেল দেশের ফুটবল মরসুম

এছাড়া নাম ভেসে উঠছে সন্তোষ কাশ্যপ এবং স্ট্যানলি রোজারিওর। ভারতীয় ফুটবলে কোচিংয়ের ক্ষেত্রে অনেকদিনের অভিজ্ঞতা রয়েছে কাশ্যপের। একসময় মোহনবাগান, এয়ার ইন্ডিয়া,  ওএনজিসি, নর্থইস্ট ইউনাইটেড, রয়্যাল ওয়াহিংদো, আইজলের মত দলগুলির দায়িত্ব সামলেছেন তিনি। অপরদিকে ভারতীয় ফুটবলের পাশাপাশি ময়দানে কাজ করার অভিজ্ঞতাও রয়েছে স্ট্যানলির। এর আগে ইস্টবেঙ্গলকে ২০০৮ সালে  এবং মোহনবাগানকে ২০১০ সালে কোচিং করিয়েছেন তিনি। এর পাশাপাশি সালগাওকার, শিলং লাজং ও আইজল সহ একাধিক দলের দায়িত্ব সামলেছেন রোজারিও।