বুন্দেশলিগায় অব্যাহত বায়ার্ন মিউনিখের দাপট। এবার বাভারিয়ানদের ঝড়ের সামনে পড়ে খড়কুটোর মত উড়ে ফরচুনা ডুসেলডফ। ৫-০ গোলে জয় পেল বার্য়ান। ম্যাচে জোড়া গোল করে নায়ক রবার্ট লেওনস্কি। করোনা পরবর্তী সময়ে বুন্দেশলিগা শুরুর পর এই নিয়ে টানা ৪ ম্যাচে জয় পেল কোচ হান্সি ফ্লিকের দল। একইসঙ্গে ২০১৯-২০ মরসুমের লিগে এই নিয়ে অষ্টমবারের মতো প্রতিপক্ষকে ৫ গোল দিল বায়ার্ন মিউনিখ। এই জয়ের ফলে লিগ টেবিলে দ্বিতীয় স্থানে থাকা বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের সঙ্গে বায়ার্নের পয়েন্টের পার্থক্য বেড়ে দাঁড়াল ১০। ২৯ ম্যাচে ৬৭ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষস্থান আরও মজুবত করল ফ্লিকের বায়ার্ন। একটি ম্যাচ কম খেলে ৫৭ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে বরুশিয়া ডর্টমুন্ড। টানা অষ্টমবারের জন্য  বায়ার্নের খেতাব জয় এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা

আরও পড়ুনঃএবার করোনা ভাইরাসের থাবা হকি ইন্ডিয়ার দফতরে, আক্রান্ত ২ কর্মী

অ্যালিআঞ্জ অ্যারেনায় ম্যাচের শুরুতেই আত্মঘাতী গোল করে বায়ার্নের কাজটা সহজ করে দেন ম্যাথিয়াস ইউর্গেনসন। বেঞ্জামিন পাভারের প্রচেষ্টা সে দফায় বাইরে দিয়েই যাচ্ছিল। ইউর্গেনসনের গায়ে লেগে বল ঢুকে যায়। আত্মঘাতী গোল করলে ম্যাচের ১৫ মিনিটে প্রথম লিড নেয় বায়ার্ন। ২৯ মিনিটে কর্নার কিক থেকে হেডে বায়ার্নের লিড দ্বিগুণ করেন ফ্রান্সের রাইটব্যাক বেঞ্জামিন প্যাভার্ড। ৪৩ মিনিটে থমাস মুলারের সাথে দুর্দান্ত বোঝাপড়ায় বায়ার্নকে তৃতীয় গোল এনে দেন বুন্দেসলিগার টপ স্কোরার লেওনস্কি। ৩-০ গোলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় বায়ার্ন। দ্বিতীয় শুরুতেই ৫০ মিনিটে আবারো স্কোর শিটে নাম তোলেন এই পোলিশ গোলমেশিন। এরপর বায়ার্নের হয়ে গোল করেন সার্গে গ্যানাব্রে। বায়ার্নের হয়ে পঞ্চম গোলটি করেন লেফটব্যাক আলফোনসো ডেভিস। ৫-০ গোলে ম্যাচ জিতে মাঠ ছাড়েন বায়ার্ন মিউনিখ।

আরও পড়ুনঃকরোনা ভাইরাসের জের,এবার পিছিয়ে গেল দেশের ফুটবল মরসুম

আরও পড়ুনঃআগুনের হাত থেকে ৪০ জনকে বাঁচিয়ে হিরো হলেন মুম্বইয়ের ক্রিকেটার

ম্যাচে জোড়া গোল করে নায়ক হওয়ার পাশাপাশি লিগে সকলকে ছাপিয়ে গেলেন লেওনস্কি। লিগে তার গোল সংখ্যা দাঁড়াল ২৮।  ইউরোপের শীর্ষ ৫ লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতা এখন তিনিই। অবশ্য লেওনস্কি গোলের খাতায় নাম লেখানোর আগেই ম্যাচটা নিজেদের করে নিয়েছিল বায়ার্ন। আর সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে লেওনস্কির গোল এখন ৪৩। গোলের হিসেবে এটিই যুগ্মভাবে লেওনস্কির কেরিয়ারের সেরা মরসুম। ২০১৬-১৭ মরসুমে ৪৩ গোল করে থেমেছিলেন তিনি। এবার অবশ্য সংখ্যাটা ছাড়িয়ে যাওয়ার বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী পোলিশ স্ট্রাইকার।