করোনা আবহে প্রায় তিন মাস বন্ধ থাকার পর অবশেষে শুরু হয়েছে ফুটবল। ইতিমধ্যে গত মরসুমে বাকি থাকা লিগগুলি যেমন লা লিগা, প্রিমিয়ার লিগ, সিঁরি আ, বুন্দেশলিগার চ্যাম্পিয়ন নির্ধারিতও হয়ে গিয়েছে। করোনা আবহে ফুটবল ফিরলেও, সঙ্গী করে ফিরেছিল একাধিক নয়া নিয়ম কানুনকে। প্লেয়ার সহ সকলের স্বাস্থ্যের কথা ভেবেই জারি করা হয়েছে এই নিয়মগুলি। তাদের মধ্যে অন্যতম দর্শকশূন্য মাঠ, গোলের পর সেলিব্রেশনে যতটা সম্ভব কম করা, হাফ টাইমে জার্সি পরিবর্তন, মাঠে থুতু না ফেলা, সমস্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা আরও কত কী। 

আরও পড়ুনঃজন্মদিনে সেরা উপহার, এশিয়ান কাপের সবথেকে জনপ্রিয় ফুটবলার নির্বাচিত হলেন সুনীল ছেত্রী

কিন্তু কখনও শুনেছেন কী মাঠে কাশলে প্লেয়ারকে সরাসরি লাল কার্ড দেখানো হতে পারে। কী অবাক হলেন? অবাক হওয়ারই কথা। উপরিউক্ত সব নিয়মের পাশাপাশি এবার এই নিয়ম আনল ইংল্যান্ড ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন বা এফএ। নয়া নিয়ম অনুযায়ী এবার থেকে ম্যাচ চলাকালীন কোনও প্লেয়ার যদি বিপক্ষের প্লেয়াররের সামনে বা ম্যাত রেফারিদের সামনে ইচ্ছাকৃতভাবে কাশে, তাহলে সেইঈ প্লেয়ারকে সরাসরি লাল কার্ড দেখানোর অধিকার রয়েছে। মাঠের মধ্যে অশালীন আচরণের অন্তর্গত ধরা হবে এই অপরাধকে। ফলে লাল কার্ড দেখা মাত্রই সেই প্লেয়ারকে মাঠ ছেড়ে বেরিয়ে যেতে হবে।

আরও পড়ুনঃরাজ্য ক্রিকেট সংস্থা গুলির কাছে নতুন নির্দেশিকা বিসিসিআইয়ের

আরও পড়ুনঃবিসিসিআইয়ের নয়া নিয়মে অনিশ্চিত বাংলা কোচ অরুণ লালের ভবিষ্যৎ

ইংল্যান্ড ফুটবল অ্যসোসিয়েশন তরফে বলা হয়েছে বিষয়টি সম্পূর্ণ নির্ভর করবে রেফারির সিদ্ধান্তের উপর। যেহেতু ড্রপলেট অর্থাফ থুতু, কাশি, হাঁচি থেকেই করোনা সংক্রমণ ছড়ানোর সম্ভাবনা সব থেকে বেশি। সেই কারণেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে প্লেয়ার, রেফারি, কোচ, সাপোর্টিং স্টাফ সহ সকলের সুবিধার কথা ভেবে। পাশাপাশি  নির্দেশিকায় এও বলা হয়েছে,তবে এর পাশাপাশি বলা হয়েছে, রেফারি যদি মনে করেন দোষ তেমন গুরুতর নয়, সেক্ষেত্রে কেবলমাত্র হলুদ কার্ড দেখিয়ে সতর্ক করা হবে অভিযুক্ত খেলোয়াড়কে। তবে সেখানে স্পষ্ট জানানো হয়েছে, কোনও খেলোয়াড় অনিচ্ছাকৃত এই ভুল করে থাকলে রেফারি তাঁকে যেন শাস্তি না দেন। এই নয়া নিয়ম সম্পর্কে প্লেয়ারদেরও বাল মত বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। সুতরাং এবার থেকে মাঠে কাশলেই বিপদ।