ইনভেস্টর নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল অনেক আগেই। কিন্তু তারপরও দুশ্চিন্তায় ছিলেন লাল হলুদ সমর্থকরা। ক্লাবের নাম কী হবে, এএফসি গাইডলাইন মানবে কিনা ইনভেস্টর, এসব নিয়ে নানানরকম জল্পনা চলছিলই। সোমবার বিড পেপার জমা দেওয়া নিয়ে এক এক বার এক এক রকম খবর সেই জল্পনা আরও উস্কে দেয়। কিন্তু অবশেষে মঙ্গলবারেই শুভ খবর দিল ইস্টবেঙ্গল কর্তৃপক্ষ। বিড পেপার জমা দেওয়ার কথা অফিসিয়াল ক্লাবের সোশ্যাল মিডিয়া একাউন্ট থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়। এবার অপেক্ষা শুধু আনুষ্ঠানিক ঘোষণা করবে এফএসডিএল।

আরও পড়ুনঃতার বায়োপিকে অভিনয় করতে হলে নায়ককে মানতে হবে কোন কোন শর্ত, হৃত্বিক রোশনকে তালিকা ধরালেন সৌরভ

এটিকের সঙ্গে মোহনবাগান মার্জ হয়ে যাওয়ার পর দীর্ঘদিন ধরেই অনেকটাই চাপ ছিল ইস্টবেঙ্গলের উপর। চিরশত্রু ক্লাব যেভাবেই হোক, দেশের এক নম্বর লিগ খেলবে সেখানে ইস্টবেঙ্গল খেলবে না! এই যন্ত্রণাই কুড়ে কুড়ে খাচ্ছিল সমর্থকদের। অবশেষে শাপমুক্তি। আইএসএল পেজ থেকে অফিসিয়াল ঘোষণা করলেই উৎসব শুরু করতে পারবে লাল হলুদ সমর্থকরা। এর মধ্যেই গুঞ্জন উঠেছে ক্লাবের আসন্ন মরশুমের হোম ভেন্যু নিয়ে। শোনা যাচ্ছে গোয়ার তিলক ময়দানই হতে পারে আসন্ন মরশুমে লাল হলুদ ব্রিগেডের ঘরের মাঠ। 

আরও পড়ুনঃবিয়ের আগে ৪ অভেনেত্রীর প্রেমে 'হাবুডুবু' খেয়েছিলেন ধোনি, জানুন তারা কারা

শেষ কয়েক বছর ধরে তিলক ময়দানে লাল হলুদ ব্রিগেডের রেকর্ড ভালো। শেষ তিন বছরে ওই মাঠে তিনটি ম্যাচ খেলেছে ইস্টবেঙ্গল, তারমধ্যে দুটিতে জয় এসেছে ও একটি ম্যাচ ড্র হয়েছে। এছাড়া শোনা যাচ্ছে লাল হলুদ ব্রিগেডের প্র্যাকটিস গ্রাউন্ড হতে পারে নাভেলিম, সেসা ফুটবল একাডেমি, ডন বস্কো একাডেমির মধ্যে যে কোনও একটি। আইএসএল পেজ থেকে ইস্টবেঙ্গলের অংশগ্রহণের অফিসিয়াল ঘোষণা হলেই এই সমস্ত ব্যাপারও নিশ্চিত হয়ে যাবে বলে খবর।

আরও পড়ুনঃধনশ্রীর আগেও কি চাহলের জীবনে ছিল অন্য কেউ, ছড়িয়েছিল তাদের বিয়ের খবরও, জানুন সেই কাহিনি