কলকাতা লিগে মোহনবাগানের জন্য পয়া মাঠ হয়ে উঠছে কল্যাণী স্টেডিয়াম। ঘরের মাঠে লিগে জয়ের মুখ দেখতে পারেনি কিভু ভিকুনার দল। কিন্তু ডার্বির আগের ম্যাচে কল্যাণীতে গিয়ে বিএসএসের বিরুদ্ধে প্রথম জয় তুলে নিয়েছিল সবুজ মেরুন শিবির। এবার কলকাতা লিগে মোহনবাগানের দ্বিতীয় জয়টাও এল সেই কল্যাণীর মাঠেই। প্রাক্তন কোচ শঙ্করলালের ভবানীপুরকে ২-০ গোলে হারিয়ে দিল সবুজ মেরুন ব্রিগেড। দুই অর্ধে বাগানের হয়ে দুটি গোল করলেন রোমারিও ও নৌরেম। 

এবারের লিগে বেশ ছন্দে ছিল শঙ্করলালের ভাবানীপুর ক্লাব। দশ পয়েন্ট নিয়ে লিগের দ্বিতীয় স্থানে ছিল তারা। তবে মোহনবাগান যে শক্ত প্রতিপক্ষ হতে চলেছে সেটা আগেই বলেছিলেন ভবানীপুর কোচ। ম্যাচেও দেখা গেল বড় দলের দাপট ধরে রেখেই খেললেন চামারোরা। ডার্বিতে চামারো প্রথম দলে না থাকলেও ভবানীপুরের বিরুদ্ধে শুরু থেকেই মাঠে নামলেন চামারো। বেইতিয়া এদিন বেঞ্চে বসলেন শুরুতে। ২৯ মিনিটে প্রথম গোল পেল কিভু ভিকুনার দল। ব্রিটো, নৌরেম হয়ে বল পান রোমারিও। সেখান থেকেই ১-০ করে দেন তিনি। প্রথম গোল তুলে আরও আক্রমনে ঝাঁপায় মোহনবাগান। তবে দ্বিতীয় গোল এল দ্বিতীয়ার্ধে। সালভা চামারোর ক্রস থেকে গোল করেন নৌরেম। তবে বাগানের দ্বিতীয় গোলের আগে যদিও দশ জনে নেমে যায়। লাল কার্ড দেখেন ভাবানীপুরের অনুপ দাস। 

প্রাক্তন কোচ শঙ্করলালের দলকে হারিয়ে কলকাতা লিগে খেতাব ধরে রাখার স্বপ্ন, বাঁচিয়ে রাখল কিভু ভিকুনার মোহনবাগান। পাঁচ ম্যাচে আট পয়েন্টে পৌছে গেল তারা। লিগ তালিকার দিকে তাকালে দেখা যাবে ভবানীপুরের বিরুদ্ধে জয় মোহনবাগানকে শীর্ষে থাকা দলগুলির খুব কাছেই নিয়ে গেছে। ৮ তারিখ মোহনবাগানকে এবার খেলতে হবে জর্জ টেলিগ্রাফের বিরুদ্ধে। তবে সেই খেলা কিন্তু পয়া কল্যাণীর মাঠে হবে না। কিভুর দলকে কালীঘাটের বিরুদ্ধে খেলতে হবে ঘরের মাঠে।