২৯ জুলাই, মোহনবাগান দিবস। এই দিনটির আবেগই আলাদা সবুজ-মেরুণ সমর্থকদের কাছে। প্রতিবছর এই দিনটিতে ময়দানের মোহনবাগান তাবু আলো ঝলমলে হয়ে ওঠে। দিনভর হাজারো সদস্য-সমর্থকদের আনাগোনা। গান-বাজনা-উৎসব-খাওয়া দাওয়া কত কী। একইসঙ্গে এই দিনে প্রদান করা হয় মোহনবাগান রত্ন সহ একাধিক সম্মান। কিন্তু এই বছর চিত্রটা সম্পূর্ণ আলাদা। মোহনবাগান রত্ন ও অন্যান্য সম্মান প্রদান করা হলেও, এই বছর করোনা ভাইরাস মহামারীর কারমে হচ্ছে না কোনও অনুষ্ঠান। তবে সমর্থকদের পুরোপুরি নিরাস করছে না ক্লাব কর্তৃপক্ষ। সমর্থকদের আবেগ আর ভালবাসার কথা মাথায় রেখে ক্বারে তরফ থেকে জানানো হয়েছে মোহন বাগান দিবসে একাধিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। তবে পুরোটাই ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে। ভার্চুয়াল অনুষ্ঠান।

আরও পড়ুনঃআইএসএল-এর আগে নয়া চমক, হাওড়ায় তৈরি হচ্ছে 'মোহনবাগান তাঁবু'

মোহনবাগান দিবসের সকাল থেকেই অনলাইনে ক্লাবের অফিসিয়াল পেজে হবে একাধিক অনুষ্ঠান।  চলবে সারাদিন। ক্লাবের প্রাক্তন কিংবদন্তি, সেলিব্রিটি ফ্যান এবং ক্লাব কর্তাদের সঙ্গে টক শোয়ের আয়োজন করা হচ্ছে। এছাড়াও এবছর যাঁদের সম্মানিত করা হবে, তাঁদেরও ভারচুয়াল মাধ্যমে উপস্থিত থাকার কথা। এবার মোহনবাগান রত্নে সম্মানিত করা হবে হকির কিংবদন্তি গুরবক্স সিং এবং প্রাক্তন ক্রিকেটার পলাশ নন্দী। সেরা সিনিয়র ফুটবলারের পুরস্কার পাবেন জোসেবা বেইতিয়া। এর পাশাপাশি সেরা প্রশাসক হিসেবে প্রথম অঞ্জন মিত্র স্মৃতি পুরস্কার তুলে দেওয়া হবে আইএফএ সচিব জয়দীপ মুখোপাধ্যায়ের হাতে। এ প্রসঙ্গে মোহনবাগান সচিব সৃঞ্জয় বোস বলেন,'বর্তমানে এমন মহামারী পরিস্থিতিতে ক্লাবে মোহনবাগান দিবসের আয়োজন করা বেশ কঠিন কাজ ছিল। তাছাড়া ২৯ জুলাই রাজ্যজুড়ে লকডাউন জারি থাকবে। তাই সব দিক বিচার করেই আমরা এবছর অনলাইনে অনুষ্ঠান আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিলাম। এতে বাড়িতে বসেই মোহনবাগান দিবসের আবেগে ভাসতে পারবেন সমর্থকরা।'

আরও পড়ুনঃমেসিকে কিনতে ঝাঁপিয়েছে ইন্টার মিলান,ফের এলএমটেনের বার্সা ছাড়া নিয়ে জল্পনা

আরও পড়ুনঃচোটের জন্য তিন সপ্তাহ মাঠের বাইরে এমব‍্যাপে, চিন্তার ভাঁজ টমাস টুচেলের কপালে

এই বছরই এটিকের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়ে ভারতীয় ফুটবলের নতুন ইতিহাস লিখতে চলেছে এটিকে মোহনবাগান। প্রকাশিত হয়ে গিয়েছে নতুন ক্লাবের জার্সি ও লোগোও।  পরিকল্পনা ছিল এই ঐতিহাসিক সন্ধিক্ষণে একটু অন্যভাবে মোগনবাগান দিবস পালন করার। সঞ্জীব গোয়েঙ্কারও আশা ছিল খুব বড় করে মোহনবাগান দিবস পালন করার। কিন্তু করোনা ভাইরাসের কারণে তা আর হচ্ছে না। তবে সকলের স্বাস্থ্যের কথা ভেবে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে ক্লাবের এই অনুষ্ঠান করার উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন সকলেই।