সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে নেশনস লিগে নিজেদের অভিযান শুরু করছে ফ্রান্স। সেখানে তাদের প্রথম ম্যাচ জুলাটান ইব্রাহিমোভিচের দেশের বিরুদ্ধে। কিন্তু সুইডেনের বিরুদ্ধে মুখোমুখি হওয়ার আগে ফ্রান্স শিবিরে বড় ধাক্কা। করোনা সংক্রমণের শিকার হলেন ফ্রেঞ্চ মিডফিল্ডার পল পোগবা। মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে স্বাভাবিকভাবেই আগামী ৬ এবং ৯ সেপ্টেম্বর সুইডেন এবং ক্রোয়েশিয়ার বিরুদ্ধে দিদিয়ের দেশঁর ঘোষিত ২৫ জনের স্কোয়াড থেকে বাদ গেলেন ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড তারকা।

বৃহস্পতিবার সাংবাদিক সম্মেলনে ফ্রান্সের কোচ জানান যে শেষ মুহূর্তে তাদের স্কোয়াডে রদবদল করতে হয়েছে। দেশঁ-র তৈরি স্কোয়াডে পোগবার নাম ছিল। কিন্তু গতকাল পোগবা সহ সকল ফুটবলারকে বাধ্যতামূলক করোনা সংক্রমণের পরীক্ষা দিতে হয়েছিল। দুর্ভাগ্যবশত পোগবার রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। তাই শেষ মুহূর্তে এডুয়ার্ডো ক্যামাভিঙ্গাকে পোগবার বদলি হিসাবে দলে যোগ দিতে বলা হয়েছে। এই ঘটনার পরেও দেশঁ-র স্কোয়াড থেকে ব্রাত্যই রইলেন টটেনহ্যাম হটস্পার মিডফিল্ডার তেঙ্গুই এনদম্বেলে।

এদিকে করোনা আক্রান্ত হয়ে আগামী ১৪ দিন আইসোলেশনে থাকতে হবে রেড ডেভিলস মিডফিল্ডারকে। উয়েফা নেশনস লিগের প্রথম দুই ম্যাচের পাশাপাশি ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে আসন্ন মরশুমের প্রি-সিজন ক্যাম্পের শুরুতেও থাকতে পারবেন না পোগবা। ফ্রান্স জাতীয় দলের তরফ জানানো হয়েছে উপসর্গহীন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন পল পোগবা। কোনও উপায়ান্তর না দেখে দলের অন্যতম চালিকাশক্তিকে দলের বাইরে রেখেই নেশনস লিগের জন্য দল ঘোষণা করতে হয় দেশঁকে। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের তরফ থেকেও একটি বিবৃতি প্রকাশ করা হয়েছে পোগবার শারীরীক অবস্থা নিয়ে। সেখানে পোগবা যে প্ৰি-সিজনে আপাতত অংশগ্রহণ করবে না তা জানিয়ে ফরাসি মিডফিল্ডারের দ্রুত আরোগ্য কামনা করা হয়েছে। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের আর এক ফরাসি ফুটবলার অ্যান্টনি মার্শিয়াল সদ্য সমাপ্ত মরশুমে ভালো ফর্মে থাকার পুরস্কার স্বরূপ ডাক পেয়েছেন জাতীয় দলে।