করোনা বা লকডাউন পরবর্তী সময়ে প্রত্যাবর্তনে জয় দিয়েই শুরু করল রিয়াল মাদ্রিদ। একইসঙ্গে ম্যানেজার হিসেবে নিজের কেরিয়ারের ২০০ তম ম্যাচ জিতেই মাঠ ছাড়লেন রিয়াল কোচ জিদান। রবিবার মধ্য রাতে আইবারের বিরুদ্ধে  ৩-১ গোলে ম্যাচ জেতে রিয়াল মাদ্রিদ। প্রত্যাবর্তনে দলের পারফরমেন্স দেখে খুশি বিশ্ব জুড়ে কোটি কোটি রিয়াল মাদ্রিদ ভক্তরা। ফুটবল বিশেষজ্ঞরাও ইতিমধ্যেই বলতে শুরু করে দিয়েছেন লকডাউনের ফলে কোনও প্রভাবই পড়েনি বার্সেলোনা ও রিয়াল মাদ্রিদের খেলায়। একই গতি, একই স্কিল, জেতার খিদেও আগের মতই রয়েছে প্লেয়ারদের। 

আরও পড়ুনঃসৌরভের বায়োপিকে অভিনয় করার স্বপ্ন ছিল সুশান্ত সিং রাজপুতের

রবিবার রাতে ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমণাত্বক ফুটবল খেলে রিয়াল। যার ফুলস্বরূপ ম্যাচ শুরু ৪ মিনিটের মাথায় টনি ক্রুসের গোলে এগিয়ে যায় জিদানের দল। প্রথম গোল করার পর আক্রমণের মাত্রা আরও বারায় রিয়াল। মুহুর্মুহু আক্রমণ আছড়ে পড়তে থাক আইবারের রক্ষণে। ম্যাচের ৩০ মিনিটে রিয়ালের হয়ে ব্যবধান বাড়ান সার্জিও রামোস। ২-০ গোলে এগিয়ে যায় রিয়াল। দ্বিতীয় গোলের সাত মিনিটের মাথাতেই ম্যাচের তৃতীয় গোল পেয়ে যায় জিদান অ্যান্ড কোম্পানি। মার্সেলো ভিয়ারার গোলে ব্যবধান বাড়িয়ে ৩-০ করে রিয়াল মাদ্রিদ। প্রথমার্ধের খেলা শেষ হয় ৩-০ গোলে।  ম্যাচে দ্বিতীয়ার্ধে আর গোলের মুখ খুলতে পারেনি রিয়াল। ম্যাচের ৬০ মিনিটে আইবারের হয়ে একমাত্র গোলটি করেন পেড্রো বিগাস।

আরও পড়ুনঃবড় পর্দার ধোনিকে অসম্পূর্ণ রেখেই চলে গেলেন সুশান্ত

আরও পড়ুনঃসুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ ভারতীয় ক্রিকেটাররা

রিয়াল মাদ্রিদের জয়ের ফলে জমে গেল লা লিগার লড়াই। বর্তমানে ২৮ ম্যাচে ৬১ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের শীর্ষে রয়েছে বার্সেলোনা। অপরদিকে সম সংখ্যক ম্যাচে রিয়ালের পয়েন্ট ৫৯। ফলে মাত্র ২ পয়েন্টের ব্যবধানেই এগিয়ে রইল মেসির বার্সা। আইবারের বিরুদ্ধে ম্যাচে নামার আগেই জিদান জানিয়েদিয়েছিলেন তাদের প্রত্যেকটি ম্য়াচ নক আউট ভেবে খেলতে হবে। অপরদিকে রিয়ালের জয়ের ফলে চাপে রইল বার্সাও। কোনও একটি ম্যাচে অঘটন ঘটলেই হারাতে হবে প্রথম স্থান। ফলে লকডাউন পরবর্তী সময়ে জমজমাট স্প্যানিশ  লা লিগার লড়াই।