তিনিই সেরার সেরা, এটা প্রমাণ করতে মরিয়া ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো, ২০২০ ইউরোটাই হয়তো তাঁর কেরিয়ারের শেষ ইউরো। আর সেটা খেলতে মাঠে নামার আগে বিশ্ব ফুটবলে নতুন একটা মাইল স্টোন স্থাপনের চেষ্টায় ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। ইউরোর যোগ্যতা নির্নায়ক পর্বে মঙ্গলবার রাতে লুথিয়ানিয়ার বিরুদ্ধে বড় জয় তুলে নিল পর্তুগাল। প্রতিপক্ষকে পাঁচ গোল দিল গতবারের ইউরো চ্যাম্পিয়নরা। পাঁচটি গোলের মধ্যে রোনাল্ডো একাই করলেন চারটি গোল। আন্তর্জাতিক গোলের নিরিখে ৯০ এর কোটায় ঢুকে পরলেন সিআর সেভেন। এখান তাঁর আন্তর্জাতিক গোলের সংখ্যা ৯৩। সবার ওপরে আছেন ইরানের আলি দাই। ১০৯টি গোল করে সবার ওপরে রয়েছেন তিনি। কিন্তু বর্তমানে যারা খেলার মধ্যে আছেন তাদের তালিকার দিকে তাকালে দেখা যাচ্ছে সবার ওপর রোনাল্ডো। দ্বিতীয় স্থানে আছেন ভারতীয় দলের অধিনায়ক সুনীল ছেত্রী। আর তালিকায় তৃতীয় লিও মেসি। আন্তর্জাতিক গোলের নিরিখে নিজের প্রতিপক্ষ মেসিকে অনেকটাই পেছনে ফেলে দিয়েছেন রোনাল্ডো। আর ১৭টি গোল করতে পারলেই তিনিই হবেন বিশ্ব ফুটবলের সব থেকে বেশি আন্তর্জাতিক গোলের মালিক। ১৭ গোল করাটা খুব সহজ কাজ নয়, কিন্তু রোনাল্ডো যে গতিতে এগিয়ে চলেছেন তাতে কাজটা খুব একটা কঠিন হবে বলে মনে করছে না ফুটবল মহল। 

 

পর্তুগালের পাশাপাশি ইউরোর যোগ্যতা নির্নায়ক পর্বের খেলায় মঙ্গল বার মাঠে নেমেছিল বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সও। তিন গোলে গ্রিজম্যানরা হারাল আন্দোরাকে। ফরাসীদের হয়ে গোল করলেন কোমান, লেনগ্লেট ও ইয়েদার। বড় জয় তুলে নিল ইংল্যান্ডও। পাঁচ গোল দিল তারা। কোসোভোকে পাঁচ গোল দেওয়ার পাশাপাশি তিনটি গোলও হজম করতে হল তাদের। ইংল্যান্ড জার্সিতে জোড়া গোল করলেন কলকাতায় অনুর্ধ্ব ১৭ বিশ্বকাপ খেলে যাওয়া ফুটবলার জার্দেন স্যাঞ্চো। একটি করে গোল হ্যারি কেন ও রহিম স্টার্লিংয়ের। একটি আত্মঘাতি গোল করে কোসোভো। 

ইউরো ও বিশ্বকাপে যোগ্যতা নির্নায়ক পর্বের ম্যাচের পাশাপাশি মঙ্গলবার রাতে ছিল একাধিক ফিফা ফ্রেন্ডলি। পেরুর বিরুদ্ধে এক শূন্য গোলে হারতে হল ব্রাজিলকে। এই ম্যাচে তিতে নিজের সেরা দলকে মাঠে না নামিয়ে কার্যত রিজার্ভ বেঞ্চকে দেখে নিলেন সেলেকাও কোচ। ব্রাজিল হারলেও আর্জেন্তিনা চার শূন্য গোলে হারিয়ে দিল মেক্সিকোকে। হ্যাটট্রিক করলেন মার্টিনেজ।