শনিবার চলতি মরশুমে থমকে থাকা ভারতীয় ফুটবলের ভবিষ্যৎ ঠিক করতে বৈঠকে বসেছিল ফেডারেশনের লিগ কমিটি। সেখানে সর্বসম্মতভাবে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, চলতি মরশুমে আই লিগের আর কোনও ম্যাচ হবে না। তাই এআইএফএফের-এর কার্যকরী কমিটির কাছে প্রস্তাব দেওয়া হয় যে, চলতি মরশুমে যেন ইতি টেনে দেওয়া হয়। একই সঙ্গে মোহনবাগানকে যেন চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করে দেওয়া হয়।, এবার আনুষ্ঠানিক ভাবে ভারতসেরা হওয়ার তকমা পেয়ে গেল সবুজ-মেরুন।মোহনবাগানকে সরকারিভাবে আইলিগ চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করল এআইএফএফ এর কার্যকরী কমিটি। লিগ কমিটির পাঠানো প্রস্তাবেই সায় দিল ফেডারেশনের এক্সিকিউটিভ কমিটি। সোমবার টুইট করে ফের একবার মোহনবাগানের আইলিগ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার কথা জানিয়ে দেয় এএফসি।মঙ্গলবারই সর্বভারতীয় ফুটবল ফেডারেশনের লিগ কমিটির প্রস্তাবে সিলমোহর দিয়ে দিল কার্যকরী কমিটি। 

আরও পড়ুনঃযুবির প্রশ্নবাণে একেবারে কুপকাত হিটম্যান, দেখুন ভাইরাল ভিডিও

মোহনবাগানকে চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করে দেওয়ার পাশাপাশি ফেডারেশনের কার্যকরী কমিটি এদিন জানিয়ে দিল, এবছর আইলিগে অবনমন থাকছে না। চ্যাম্পিয়ন দল বাদ দিয়ে বাকি পুরস্কার মূল্য অর্থাৎ ১ কোটি ২৫ লক্ষ টাকা আইলিগের বাকি দশটা দলের মধ্যে ভাগ করে দেওয়া হবে। এবার আইলিগে থাকছে না কোনও ব্যক্তিগত পুরস্কার। অর্থাৎ সর্বোচ্চ গোলদাতা, আইলিগের সেরা ফুটবলার, সেরা গোলকিপার, সেরা ডিফেন্ডার আর সেরা মিডফিল্ডারকে পুরস্কৃত করা হবে না। তবে বেইটিয়াদের চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করে দিলেও আই লিগ ট্রফি কবে তাঁরা হাতে পাবেন তা নিশ্চিত করে বলতে পারছেন না ফেডারেশন কর্তারা। করোনা পরবর্তী সময় পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে বাগান তাঁবুতে আসবে আইলিগ ট্রফি।

আরও পড়ুনঃ'গোট' বিতর্কে একদা সতীর্থ রোনাল্ডোর থেকে মেসিকেই এগিয়ে রাখলেন রুনি

আরও পড়ুনঃলকডাউনে কপিল দেবের নয়া লুক, ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়

মোহনবাগানকে ইতিমধ্যেই চ্যাম্পিয়ন আখ্যা দিয়ে এএফসি  চিঠি দিয়েছে। ফিফাও জানিয়েছে, নিজেদের দেশের লিগ নিয়ে ফেডারেশনই সিদ্ধান্ত নিতে পারে। সেই মতোই ফেডারেশন এ বারের আই লিগ নিয়ে সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলল। শনিবার থেকেই খুশির আবহ ছিল মোহনবাগান শিবিরে, মঙ্গলবার ফেডারেশনের কার্যকরী কমিটি সিদ্ধান্ত জানানোর পর সেই আনন্দ দ্বিগুন হল। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আইলিগ জয় সেলিব্রেশন করার পরিকল্পনা রয়েছে মোহনবাগান ক্লাব কর্তৃপক্ষের।