118

অভিশপ্ত ২০২০ শেষ হতে না হতেই ২০২১ -এ ঘর ভাঙার গুঞ্জনে শোরগোল পড়েছিল টলিপাড়ায়। সাংসদ অভিনেত্রী নুসরত জাহানকে (Nusrat Jahan) নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে। একদিকে সংসার ভাঙন, অন্যদিকে সাংসদ অভিনেত্রী নুসরত জাহানের জীবনে নতুন প্রেমের ঘনিষ্ঠতা নিয়েই  যখন  উত্তাল হয়েছিল টলিপাড়া। ২০২০-র শেষের দিকেই রাজস্থানে বেড়াতে যাওয়ার ছবি ঘিরেই জল্পনার সূত্রপাত।

Subscribe to get breaking news alerts

218

টলিপাড়ার অলিতে-গলিতে তখন একটাই কিসসা। গোপনে প্রেম করছেন নুসরত (Nusrat Jahan) ও যশ। সাংসদ অভিনেত্রী নুসরত  জাহান এবং টলি অভিনেতা যশ দাসগুপ্তকে নিয়ে উত্তাল নেটিজেনরা। ঘনিষ্ঠতা থেকে  ছবি পোস্ট সবেতেই যেন শিরোনামে রয়েছেন টলিউডের এই পাওয়ার কাপল। 

318


টলিপাড়ার পাওয়ার কাপল বললেই  যশ-নুসরতের (Nusrat Jahan) নাম সবার শীর্ষে ছিল। এর মধ্যেই বিধানসভা ভোট, নুসরতও বেজায় ব্যস্ত ভোটপ্রচার নিয়ে তারপরই কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউ। আর এর মধ্যেই এল নুসরত জাহানের অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার গুঞ্জন। অনেকেই ভেবেছিলেন তিনি সিঙ্গল মাদার। তবে নানা মুনির নানা মত থাকলেও পুরে বিষয়টি নিয়ে স্পিকটি নট ছিলেন নুসরত।

418

তখনই আবার বিবাহ-বিচ্ছেদের খবরে  হৈ চৈ শুরু হয়েছে টলিপাড়ায়। স্ত্রী নুসরতের (Nusrat Jahan) কাছে বিবাহবিচ্ছেদের দাবি করেছেন  নিখিল জৈন। যশের সঙ্গে প্রেম, থেকে নিখিলের সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদ ভোটের আগেই নুসরতের জীবনে যেন আধার ঘনিয়ে এসেছিল। 

518

  নুসরতের (Nusrat Jahan) গর্ভাবস্থার খবর নিয়ে একাধিক ফোনে তিতিবিরক্ত হয়েছিলেন নিখিল। এমনকী  নুসরতের গর্ভের সন্তানকে নিজের সন্তান বলে মানতে নারাজ ছিলেন নিখিল, সেকথা সংবাদমাধ্যমকে সটান জানিয়েও দিয়েছিলেন নুসরতের প্রাক্তন স্বামী নিখিল জৈন।

618

বিয়ের  ২ বছর পূর্ণ হতেই আর বাকি ছিল বেশকয়েকদিন বাকি। রূপকথার বিয়ে থেকে বিচ্ছেদ নিখিল- নুসরতের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে চর্চা সর্বদাই তুঙ্গে। তবে গত ডিসেম্বর মাস থেকেই আলাদা রয়েছেন নিখিল-নুসরত। শেষবারের মতো সুরুচি সংঘের পুজোর অষ্টমীর অঞ্জলি দিতে একসঙ্গে দেখা গিয়েছিল এই মিঁয়া-বিবিকে।

718

নিখিল আরও বলেছেন, নুসরত যখন তার সঙ্গে আর থাকতে চান না, এবং যেদিনই জানলাম অন্য কারোর সঙ্গে থাকতে চান নুসরত, সেদিনই সিভিল স্যুট ফাইল করেছি। নিখিলের আরও দাবি, স্পেশ্যাল ম্যারেজ অ্যাক্টের আওতায় অনুরোধ করলেও রেজিস্ট্রেশন করেননি নুসরত। কিন্তু স্বামী-স্ত্রীর মতোন জীবনযাপন করেছেন তারা। তাই অ্যানালমেন্টের মাধ্যমেই নুসরতের থেকে পুরোপুরি আলাদা হতে চান নিখিল, আর সেই কারণেই এই বিচ্ছেদের মামলা। 
 

818


একদিকে নিখিলের সঙ্গে বিয়েকে অবৈধ বলেই মানেন নুসরত।  এবং তিনি বলেন নিখিল তার স্বামী নন, লিভ-ইন পার্টনার। কিন্তু ১৯ জুন রূপকথার বিয়ের ছবি দেখে এককথায় সকলেই হতবাক হয়েছিলেন। তারপর থেকে একসঙ্গে ডিনার ডেট থেকে রেড রোডের প্রতিমা বিসর্জন, মাথা ভর্তি সিঁদুর পরে নিখিলকে পরিচয় করিয়ে দেওয়া স্বামী হিসেবে। সেই নিখিলই কিনা তার স্বামী নন, এবং তার মাসকয়েকের পর বিচ্ছেদের গুঞ্জন যেন কোনওভাবেই হজম করতে পারেননি নেটিজেনরা।

918

বিতর্ক এখানে থামেনি। একজন জনপ্রতিনিধি হিসেবে লোকসভার বায়োপ্রোফাইলে বিবাহিত এবং স্বামীর জায়াগায় নিখিল জৈনর নাম কেন দিয়েছিলেন নুসরত । এবং সংসদ ভবনে আমি নুসরত জাহান রুহি জৈন বলে সাংসদ হিসেবে কেন শপথবাক্য পাঠ করেছিলেন নুসরত সেই নিয়ে জলঘোলা কম হয়নি। একের পর এক প্রশ্নবাণে বিদ্ধ ছিলেন নুসরত জাহান।

1018

নুসরতের ঘনিষ্ঠমহল সূত্রে জানা গিয়েছিল , নিখিল নাকি উভয়কামী। এই বিষয়টা জানতে পেরেই নাকি মানসিক যন্ত্রণার মধ্য দিয়ে গিয়েছেন নুসরত জাহান। নিখিলের অনেক বন্ধুরাই নুসরতের সঙ্গী। এবং এই নিয়ে সরাসরি প্রশ্ন করলেও নাকি নুসরতকে কোনও উত্তর দেননি নুসরত। তারপর থেকেই ঝামেলা শুরু হয় দুজনের।

1118

বিয়ের কয়েক মাস পরই ২০১৯ সালে নভেম্বর মাসে নুসরতের হাসপাতালে ভর্তির খবর চাউর হয়েছিল। শোনা গিয়েছিল জন্মদিনের পরেই নাকি ঘুমের ওষুধ খেয়েছিলেন।  শোনা যাচ্ছে নিখিলের জন্মদিনের রাতেই নাকি নিখিল ও তার বন্ধুকে ঘনিষ্ঠ অবস্থায় দেখে ফেলেন নুসরত। এমনকী নিখিলের বিবাহিত বন্ধুর স্ত্রীও নাকি তাদের ঘনিষ্ঠতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন এবং শেষমেষ তাদের ডিভোর্স হয়।

1218

নিখিলও থেমে থাকেননি,  প্রথমসারির  সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া এক  সাক্ষাৎকারে নিখিল নিজের ক্ষোভ উগরে দিয়েছিলেন। নিখিল জানিয়েছেন, এইসব ইন্ডাস্ট্রির লোকজনের ভুল ধারণা। এটা পুরোপুরি মিথ্যে কথা। আমি পুরোপুরি স্ট্রেট। টলিউডের অনেকেই নিজের মতো করে স্টোরি বানায় লাইমলাইটে থাকতে। আমার নামেও পুরো মিথ্যে রটানো হচ্ছে। নিখিল আরও জানিয়েছিলেন, ও নিজের মুখ লুকাতে চেষ্টা করছে। কারণ একাধিকবার মাথার সিঁদুর ও সন্তানের জন্য ট্রোলড হয়েছে নুসরত। এখন মিথ্যে অভিযোগ এনে আমার দিকে আঙুল তোলার চেষ্টা করছে।

1318

যদি নুসরতের ঘনিষ্ঠমহল তা মানতে নারাজ। তারা বলছে একাধিক রূপান্তরকামীদের সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে নিখিলের। সেই কথা নুসরত জানার পর থেকেই তাদের মধ্য়ে ঝামেলার সূত্রপাত। ঘনিষ্ঠমহলের আরও দাবি, নিখিল বেশিরভাগ সময়েই নেশাগ্রস্ত থাকতেন। রাত করে বাড়ি ফিরে নেশার ঘোরে বাথরুমেই ঘুমিয়ে পড়তেন। এই সব কিছু সহ্য করতে না পেরেই বিয়ে ভাঙার সিদ্ধান্ত নেন নুসরত। যদি নিখিলের সঙ্গে সেই বিতর্ক এখন অতীত।

1418

অন্যদিকে যশের সঙ্গে সহবাস, তারপরই ২৬ আগস্ট পুত্রসন্তানের জন্ম দেওয়া, বাবার পরিচয় সব মিলিয়ে একাধিক বিতর্ক ফের শুরু হয় সাংসদ অভিনেত্রীকে ঘিরে।  মা হওয়ার পর থেকেই প্রেম যেন দ্বিগুন বেড়েছে নুসরত জাহানের। রাখঢাক, লুকোছাপা এসব এখন অতীত। খুল্লামখুল্লা রোম্যান্স যেন প্রকাশ্যেই ধরা পড়ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।  

1518

গত এক বছরে সম্পর্কের সমীকরণের পুরো বদলে গিয়েছে যশ- নুসরতের। সহকর্মী থেকে স্বামী যশের সঙ্গে বিয়েটাও সেরে ফেলেছেন নুসরত। মা হওয়ার পর থেকেই খুল্লামখুল্লা প্রেমে মজেছেন নুসরত জাহান। দীর্ঘদিনের সহবাস সঙ্গীকে স্বামী হিসেবেও মেনে নিয়েছেন নুসরত।  যশ দাশগুপ্তের জন্মদিনেই প্রেম-সন্তান-সংসার নিয়ে সবটাই খোলসা করে দিয়েছেন সাংসদ অভিনেত্রী। 

1618

এমনকী সদ্যোজাত সন্তানের বাবা কে, তা নিয়েও উঠেছিল হাজারো প্রশ্ন। নেটিজেনদের একাংশ বলেছিল, ঈশান বিবাহ-বর্হিভূত সন্তান, এবার ঈশানের পিতৃপরিচয় নিয়েও নেটিজেনদের একহাত নিলেন নুসরত জাহান। যশই যে নুসরতের সন্তানের বাবা সেটা ঈশানের বার্থ সার্টিফিকেটেই উল্লেখ করে সবটা পরিস্কার করে দেন নুসরত জাহান।

1718

সহবাস সঙ্গী আর নয়, যশ এখন নুসরতের স্বামী, তা নিজেই জানিয়েছেন সাংসদ অভিনেত্রী। এবং ঈশানের বাবা যে যশ তাও জানিয়ে দিয়েছেন নুসরত। যশের জন্মদিনের দিনই  বোমা ফাটিয়েছিলেন নুসরত। দীর্ঘদিনের সহবাস সঙ্গীর তকমা স্বামীতে বদলে দিয়ে এক লহমায় সকলকে চমকে দিয়েছেন অভিনেত্রী। বর্তমানে স্বামী-সন্তানকে নিয়ে ভরা সংসার নুসরতের। এবং একজন বাবা হিসেবে যশকে পেয়ে ঈশান কতটা ভাগ্যবান তাও জানিয়েছেন নুসরত। বাবা হিসেবে দশের মধ্যে এগারো দেবেন যশকে, তাও বলেছেন নুসরত।

1818

নুসরত জাহান কতটা সাহসী তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। সন্তান-সংসার- কেরিয়ার সামলে এবার নতুন ইনিংস শুরু করেছেন সাংসদ অভিনেত্রী নুসরত জাহান। মা হওয়ার পরই কাজে ফিরেছেন নুসরত। শুধু তাই নয়, শরীরে নেই বেবিফ্যাট, চাবুক ফিগারে সকলকে চমকে দিয়েছেন নুসরত। ইতিমধ্যেই  নতুন ছবির শুটিংও শুরু করে দিয়েছেন টলিপাড়ার নতুন মা। এবং ট্রোলারদের চোখরাঙানিকে পাত্তা না দিয়ে খোশমেজাজেই রয়েছেন টলিপাড়ার কন্ট্রোভার্সি কুইন  নুসরত জাহান।
 

Read more Articles on