19

অঞ্জু ঘোষের এই ছবির হাত ধরেই জনপ্রিয়তার শীর্ষে ওঠেন। ঢালিউডের পাশাপাশি টলিউডেও তাঁকে নিয়ে শুরু হয় চর্চা। টলিউডে একের পর এক প্রস্তাবে ভরতে থাকে তাঁর ঝুলি। 

Subscribe to get breaking news alerts

29


বাংলা চলচ্চিত্র জগতে বহু বছর কাজ করার পর বিনোদন জগৎ থেকে বিদায় নিয়েছিলেন অঞ্জু। প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়, চরিঞ্জিৎ চক্রবর্তী, ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত, তাপস পাল, প্রয়াত অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে বিভিন্ন ছবিতে অভিনয় করেছেন তিনি।

39

ঢালিউডের পর টলিউডের কাজ নিয়েও তিনি যথেষ্ট প্রশংসিত হয়েছিলেন। আদরের বোন, রাজার মেয়ে পারুল, বেদিনীর প্রেম, স্ত্রীর মর্যাদা তাঁর অন্যতম ছবির তালিকায় পড়ে। 
 

49

বাংলাদেশী দর্শকসহ ভারতীয় দর্শকদের মনেও জায়গা করে নিয়েছিলেন অঞ্জু ঘোষ। জনপ্রিয়তার শীর্ষে থেকেও ১৯৯৬ সালে বাংলাদেশ ছেড়ে কলকাতায় পাকাপাকি ভাবে এসে থাকতে শুরু করেন। 

59

বিনোদন জগত ছেড়ে হঠাৎ ২০১৯ সালে ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগদান করেন বাংলাদেশি অভিনেত্রী। সেখানে বাঁধে গোল। অঞ্জু ঘোষের নাগরিকত্ব নিয়ে উঠতে থাকে একাধিক প্রশ্ন। 
 

69

কলকাতা পৌরসভার সার্টিফিকেটেও থেকে যায় রহস্য। বিজেপি-তে যোগদান করার পর বিজেপি-র তরফ থেকে জানানো হয় তিনি ভারতীয় নাগরিক এবং তাঁর কাছে ভারতের পাসপোর্টই রয়েছে। 

79

দীলিপ ঘোষ সেই সার্টিফিকেট দেখাবার পরও প্রশ্ন ওঠে অঞ্জু ঘোষের একটি পুরনো সাক্ষাৎকার নিয়ে, যেখানে তিনি নিজেই স্বীকার করেছিলেন ফরিদপুর জেলায় তাঁর জন্মের কথা।  

89

একুশে টেলিভিশনের এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা জানাবার পর এও জানিয়েছিলেন যে পরবর্তীকালে চিট্টাগং-এ থাকতে শুরু করেন। চিট্টাগংয়ের কৃষ্ণকুমারী উচ্চবিদ্যালয় তাঁর পড়াশোনা। 

99

অন্যদিকে কলকাতা পৌরসভার সার্টিফিকেটে লেখা তিনি কলকাতার ইস্ট এন্ড নার্সিং হোমে তাঁর জন্ম হয়েছে। বিজেপি-তে তারকাদের যোগদান নিয়ে বিতর্ক থেকেই থাকে।