বাংলাদেশে করোনা মোকাবিলায় সাহায্যের হাত বাড়িয়ে যথাসাধ্য লড়াই চালাচ্ছেন 'বেঙ্গল টাইগার্সরা'

First Published 9, Apr 2020, 12:18 PM

করোনা ভাইরাসের জেরে বাংলাদেশেও ভয়াবহ হচ্ছে পরিস্থিতি। দেশ জুড়ে বাড়ছে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। সাহায্যের হাত বাড়িয়ে এগিয়ে এসেছে দেশের সমস্ত ক্রিকেটাররা। 

মাশরফি মোর্তাজা বর্তমানে দেশের একজন সাংসদও। দেশের এ হেন সঙ্কটজনক পরিস্থিতিতে সেই ক্ষমতার প্রয়োগও করছেন দারুণ ভাবে। নড়াইলবাসীকে এখন আর ডাক্তার-বদ্যি দেখাতে হলে ডাক্তারের কাছে যেতে হচ্ছে না। মাশরাফির উদ্যোগে ডাক্তাররাই পৌঁছে যাচ্ছেন লোকের বাড়ি-বাড়ি।

মাশরফি মোর্তাজা বর্তমানে দেশের একজন সাংসদও। দেশের এ হেন সঙ্কটজনক পরিস্থিতিতে সেই ক্ষমতার প্রয়োগও করছেন দারুণ ভাবে। নড়াইলবাসীকে এখন আর ডাক্তার-বদ্যি দেখাতে হলে ডাক্তারের কাছে যেতে হচ্ছে না। মাশরাফির উদ্যোগে ডাক্তাররাই পৌঁছে যাচ্ছেন লোকের বাড়ি-বাড়ি।

স্ত্রী সন্তানসম্ভাবা হওয়ায় বর্তমানে দেশে নেই শাকিব আল হাসান। দেশে না থাকলেও সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন তিনি। করোনার বিস্তার রোধ করতে  খুলে ফেলেছেন শাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশন। যে ফাউন্ডেশন অর্থসংগ্রহ করে ইতিমধ্যে করোনা পরীক্ষার কিট তুলে দিয়েছে বিভিন্ন হাসপাতালের হাতে।

স্ত্রী সন্তানসম্ভাবা হওয়ায় বর্তমানে দেশে নেই শাকিব আল হাসান। দেশে না থাকলেও সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন তিনি। করোনার বিস্তার রোধ করতে খুলে ফেলেছেন শাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশন। যে ফাউন্ডেশন অর্থসংগ্রহ করে ইতিমধ্যে করোনা পরীক্ষার কিট তুলে দিয়েছে বিভিন্ন হাসপাতালের হাতে।

২৫ বছরের জন্মদিনে বাবার কাছে কোনও উপহার চাননি তাসকিন আহমেদ। শুধু বাবার কাছে অনুরোধ করেছেন তাদের  খুলে ফেলেছেন শাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশন। যে ফাউন্ডেশন অর্থসংগ্রহ করে ইতিমধ্যে করোনা পরীক্ষার কিট তুলে দিয়েছে বিভিন্ন হাসপাতালের হাতে।

২৫ বছরের জন্মদিনে বাবার কাছে কোনও উপহার চাননি তাসকিন আহমেদ। শুধু বাবার কাছে অনুরোধ করেছেন তাদের খুলে ফেলেছেন শাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশন। যে ফাউন্ডেশন অর্থসংগ্রহ করে ইতিমধ্যে করোনা পরীক্ষার কিট তুলে দিয়েছে বিভিন্ন হাসপাতালের হাতে।

রনি তালুকদার পাঁচশো পরিবারের দায়িত্ব নিয়েছেন।  বন্ধুবান্ধবদের নিয়ে একটা সংগঠন তৈরি করেছেন- ফ্রেন্ডস ডটকম। যে সংগঠন পাঁচশো পরিবারের বাড়ি-বাড়ি পৌঁছে দিচ্ছে চাল-ডাল-তেল-আলু-পেঁয়াজ।

রনি তালুকদার পাঁচশো পরিবারের দায়িত্ব নিয়েছেন। বন্ধুবান্ধবদের নিয়ে একটা সংগঠন তৈরি করেছেন- ফ্রেন্ডস ডটকম। যে সংগঠন পাঁচশো পরিবারের বাড়ি-বাড়ি পৌঁছে দিচ্ছে চাল-ডাল-তেল-আলু-পেঁয়াজ।

মোসাদ্দেক হোসেনকে পাওয়া যাবে উদাহরণ হিসেবে যিনি দু’শো পরিবারকে খাওয়ানো-দাওয়ানোর দায়িত্ব নিয়েছেন।  তাছাড়াও ভার নিয়েছেন বৃহন্নলা সমাজের।

মোসাদ্দেক হোসেনকে পাওয়া যাবে উদাহরণ হিসেবে যিনি দু’শো পরিবারকে খাওয়ানো-দাওয়ানোর দায়িত্ব নিয়েছেন। তাছাড়াও ভার নিয়েছেন বৃহন্নলা সমাজের।

করোনা লড়াইয়ে পিছিয়ে নেই রুবেল হোসেনও। গরীব, দুঃস্থ মানুষদের অত্যাবশ্যকীয় জিনিস পত্র নিজ উদ্যোগে পৌছে দিচ্ছেন এই বাংলাদেশি ক্রিকেটার।

করোনা লড়াইয়ে পিছিয়ে নেই রুবেল হোসেনও। গরীব, দুঃস্থ মানুষদের অত্যাবশ্যকীয় জিনিস পত্র নিজ উদ্যোগে পৌছে দিচ্ছেন এই বাংলাদেশি ক্রিকেটার।

বাংলাদেশের জাতীয় দলের মহিলা ক্রিকেটার জাহানারা আলম যেমন। বোর্ডের থেকে খুব বেশি বেতন যে পান, তা নয়। কিন্তু পঞ্চাশটা দরিদ্র পরিবারের দায়দায়িত্ব নিয়ে ফেলেছেন।

বাংলাদেশের জাতীয় দলের মহিলা ক্রিকেটার জাহানারা আলম যেমন। বোর্ডের থেকে খুব বেশি বেতন যে পান, তা নয়। কিন্তু পঞ্চাশটা দরিদ্র পরিবারের দায়দায়িত্ব নিয়ে ফেলেছেন।

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের মোট ২৭ জন ক্রিকেটার তাদের বেতনের অর্ধেক অংশ তুলে দিয়েছেন সরকারের করোনা মোকাবিলা সংক্রান্ত তহবিলে। এই ২৭ জন ক্রিকেটারের মধ্যে  ১৭ জন রয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের কেন্দ্রীয় চুক্তিতে। আর বাকি ১০ জনও সম্প্রতি বাংলাদেশের হয়ে খেলেছেন। এই ২৭ জন প্লেয়ারের দেওয়া অর্ধেক বেতন যা বাংলাদেশি মুদ্রায় ৩১ লক্ষ টাকা।

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের মোট ২৭ জন ক্রিকেটার তাদের বেতনের অর্ধেক অংশ তুলে দিয়েছেন সরকারের করোনা মোকাবিলা সংক্রান্ত তহবিলে। এই ২৭ জন ক্রিকেটারের মধ্যে ১৭ জন রয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের কেন্দ্রীয় চুক্তিতে। আর বাকি ১০ জনও সম্প্রতি বাংলাদেশের হয়ে খেলেছেন। এই ২৭ জন প্লেয়ারের দেওয়া অর্ধেক বেতন যা বাংলাদেশি মুদ্রায় ৩১ লক্ষ টাকা।

বাংলাদেশ বোর্ডের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ ৯১ জন ক্রিকেটার নিজেরা একটা তহবিলও করে ফেলেছেন। যেখানে জমা হচ্ছে লক্ষ লক্ষ। সেই টাকা খরচ করা হবে দেশের করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসা ও ত্রাণ সামগ্রি বিতরনে।

বাংলাদেশ বোর্ডের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ ৯১ জন ক্রিকেটার নিজেরা একটা তহবিলও করে ফেলেছেন। যেখানে জমা হচ্ছে লক্ষ লক্ষ। সেই টাকা খরচ করা হবে দেশের করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসা ও ত্রাণ সামগ্রি বিতরনে।

দেশের বিপদরে দিনে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। ভবিষ্যতে প্রয়োজনে আরও সাহায্য করার আশ্বাস দিয়েছেন ক্রিকেটাররাও। যার উদ্দেশ্য একটাই। টার্গেট একটাই। করোনাকে হারিয়ে বাঁচিয়ে রাখো সোনার বাংলা।

দেশের বিপদরে দিনে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। ভবিষ্যতে প্রয়োজনে আরও সাহায্য করার আশ্বাস দিয়েছেন ক্রিকেটাররাও। যার উদ্দেশ্য একটাই। টার্গেট একটাই। করোনাকে হারিয়ে বাঁচিয়ে রাখো সোনার বাংলা।

loader