দু-দুবারের আইপিএল চ্যাম্পিয়ন কলকাতা, কীভাবে সফল হয়েছিল এই অভিযান, জানুন সেই কাহিনি

First Published 16, Sep 2020, 1:13 PM

আর কিছু সময়ে অপেক্ষা তারপরই শুরু হতে চলেছে বহু প্রতীক্ষিত আইপিএল। আরব আমিরশাহিতে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি সারছে সবকটি দল। পূর্ণ শক্তি নিয়ে প্রতিযোগিতায় নামতে প্রস্তুত বাংলার প্রাণের দল কলকাতা নাইট রাইডার্সও। ২০১২ ও ২০১৪ সালে ট্রফি জেতার পর বিগত পাঁচ মরসুমে ট্রফি অধরা কেকেআরের। এই বছর মরুদেশে ভারত সেরা হতে মরিয়া দীনেশ কার্তিকের দল। আইপিএলের ১৩ তম মরসুম শুরু হওয়ার চলুন ফিরে দেখা যাক নাইটদের দুবার আইপিএল জয়ের স্মৃতি।
 

<p>প্রথম চার বছরের ব্যর্থতা কাটিয়ে গৌতম গম্ভারের নেতৃত্বে ২০১২ সালে প্রথমবার আইপিএল ফাইনালে ওঠে কেকেআর। গ্রুপ লিগে ১৬ ম্যাচে ২১ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে ছিল কেকেআর।<br />
&nbsp;</p>

প্রথম চার বছরের ব্যর্থতা কাটিয়ে গৌতম গম্ভারের নেতৃত্বে ২০১২ সালে প্রথমবার আইপিএল ফাইনালে ওঠে কেকেআর। গ্রুপ লিগে ১৬ ম্যাচে ২১ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে ছিল কেকেআর।
 

<p>প্লে অফ জিতে ফাইনালে পৌছায় গৌতম গম্ভাীরের দল। ফাইনালে নাইটদের প্রতিপক্ষ ছিল পরপর তিনবার &nbsp;ফাইনালে ওঠা এমএস ধোনির চেন্নাই সুপার কিমস। রুদ্ধশ্বাস ফাইনালের সাক্ষী থেকে ছিল ক্রিকেট বিশ্ব।<br />
&nbsp;</p>

প্লে অফ জিতে ফাইনালে পৌছায় গৌতম গম্ভাীরের দল। ফাইনালে নাইটদের প্রতিপক্ষ ছিল পরপর তিনবার  ফাইনালে ওঠা এমএস ধোনির চেন্নাই সুপার কিমস। রুদ্ধশ্বাস ফাইনালের সাক্ষী থেকে ছিল ক্রিকেট বিশ্ব।
 

<p>ফাইনালে প্রথমে ব্যাট করে ১৯২ রানের পাহাড় প্রমাণ স্কোর খাড়া করে সিএসকে। চেন্নাইয়ের হয়ে ওপেনিংয়ে দুরন্ত ব্যাটিং করেন মুরলি বিজয় ও মাইক হাসি। বিজয় করেন ৪২ ও হাসি করেন ৫৪ রান। তবে ৩৮ বলে ঝোড়ো ৭৩ রানের ইনিংস খেলেন সুরেশ রায়<br />
না।&nbsp;<br />
&nbsp;</p>

ফাইনালে প্রথমে ব্যাট করে ১৯২ রানের পাহাড় প্রমাণ স্কোর খাড়া করে সিএসকে। চেন্নাইয়ের হয়ে ওপেনিংয়ে দুরন্ত ব্যাটিং করেন মুরলি বিজয় ও মাইক হাসি। বিজয় করেন ৪২ ও হাসি করেন ৫৪ রান। তবে ৩৮ বলে ঝোড়ো ৭৩ রানের ইনিংস খেলেন সুরেশ রায়
না। 
 

<p>তারপর মনবিন্দর সিং বিসলা ও জ্যাক কালিস অবিশ্বাস্য ইনিংস খেলেন। বিসলার ৮৯ ও কালিসের ৬৯ রানের ইনিংসের সৌজন্যে প্রথমবার আইপিএল চ্যাম্পিয়ন হয় শাহরুখ খানের দল কলকাতা নাইট রাইডার্স। ফাইনালে ম্যা অব দ্যা ম্যাচে হন বিসলা ও সিরিজে দুরন্ত পারফরমেন্সের ফলে ম্যান অব দ্য সিরিজ হয়েছিলেন সুনিল নারিন।</p>

তারপর মনবিন্দর সিং বিসলা ও জ্যাক কালিস অবিশ্বাস্য ইনিংস খেলেন। বিসলার ৮৯ ও কালিসের ৬৯ রানের ইনিংসের সৌজন্যে প্রথমবার আইপিএল চ্যাম্পিয়ন হয় শাহরুখ খানের দল কলকাতা নাইট রাইডার্স। ফাইনালে ম্যা অব দ্যা ম্যাচে হন বিসলা ও সিরিজে দুরন্ত পারফরমেন্সের ফলে ম্যান অব দ্য সিরিজ হয়েছিলেন সুনিল নারিন।

<p>প্রথমবার আইপিএল জয়ের উচ্ছাসই ছিল আলাদা কেকেআরের। &nbsp;কলকাতার রাস্তায় শোভাযাত্রায় ঢল নেমেছিল মানুষের। ইডেন গার্ডেন্সে হয়েছিল বর্ণঢ্য অনুষ্ঠান। উপস্থিত ছিলেন শাহরুখ খান।&nbsp;<br />
&nbsp;</p>

প্রথমবার আইপিএল জয়ের উচ্ছাসই ছিল আলাদা কেকেআরের।  কলকাতার রাস্তায় শোভাযাত্রায় ঢল নেমেছিল মানুষের। ইডেন গার্ডেন্সে হয়েছিল বর্ণঢ্য অনুষ্ঠান। উপস্থিত ছিলেন শাহরুখ খান। 
 

<p><br />
দ্বিতীয়বার আইপিএল চ্য়াম্পিয়ন হওয়ার জন্য বেশি প্রতীক্ষা করতে হয়নি কেকেআরকে। ২০১৪ সালে ১৪ ম্যাচে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে থেকে প্লেঅফে পৌছায় কেকেআর।</p>


দ্বিতীয়বার আইপিএল চ্য়াম্পিয়ন হওয়ার জন্য বেশি প্রতীক্ষা করতে হয়নি কেকেআরকে। ২০১৪ সালে ১৪ ম্যাচে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে থেকে প্লেঅফে পৌছায় কেকেআর।

<p>প্লে অফ জিতে ফাইনালে পৌছায় কেকেআর। ফাইনালে প্রতিপক্ষ ছিল প্রথমবারের জন্য আইপিএল ফাইনালে ওঠা দল কিংস ইলেভেন পঞ্জাব। সেই বছর প্রতিযোগিতায় কার্যত অপ্রতিরোধ্য ছিল পঞ্জাবের দল।<br />
&nbsp;</p>

প্লে অফ জিতে ফাইনালে পৌছায় কেকেআর। ফাইনালে প্রতিপক্ষ ছিল প্রথমবারের জন্য আইপিএল ফাইনালে ওঠা দল কিংস ইলেভেন পঞ্জাব। সেই বছর প্রতিযোগিতায় কার্যত অপ্রতিরোধ্য ছিল পঞ্জাবের দল।
 

<p>গোটা সিরিজে দুরন্ত খেলেছিল পঞ্জাব দল। কিন্তু ফাইনালে প্রতিপক্ষ কলকাতা নাইট রাইডার্সের কাছে রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে হার স্বীকার করতে হয় প্রীতি জিনতার দলের। ফাইনালে প্রথমে ব্যাট করে ১৯৯ রানের বিশাল ইনিংস খাড়া করে পঞ্জাব। দলের হয়ে অনবদ্য সেঞ্চুরি করেছিলেন ঋদ্ধিমান সাহা।<br />
&nbsp;</p>

গোটা সিরিজে দুরন্ত খেলেছিল পঞ্জাব দল। কিন্তু ফাইনালে প্রতিপক্ষ কলকাতা নাইট রাইডার্সের কাছে রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে হার স্বীকার করতে হয় প্রীতি জিনতার দলের। ফাইনালে প্রথমে ব্যাট করে ১৯৯ রানের বিশাল ইনিংস খাড়া করে পঞ্জাব। দলের হয়ে অনবদ্য সেঞ্চুরি করেছিলেন ঋদ্ধিমান সাহা।
 

<p>রান তাড়া করতে নেমে ১৯ ওভার ৩ বলেই প্রয়োজনীয় রান তুলে নেয় কেকেআর। কলকাতার হয়ে সর্বোচ্চ ৯৪ রানের ইনিংস খেলেন মণীশ পাণ্ডে। এছাড়াও ঝোড়ো ৩৬ রান করেন ইউসুফ পাঠান। পঞ্জাবকে হারিয়ে দ্বিতীয় বারের জন্য আইপিএল চ্যাম্পিয়ন হয় কেকেআর। ফাইনালে ম্যান অব দ্য ম্যাচ হন মণীশ পাণ্ডে ও ম্যান অব দ্য সিরিজ হন পঞ্জাবের গ্লেন ম্যাক্সওয়েল।<br />
&nbsp;</p>

রান তাড়া করতে নেমে ১৯ ওভার ৩ বলেই প্রয়োজনীয় রান তুলে নেয় কেকেআর। কলকাতার হয়ে সর্বোচ্চ ৯৪ রানের ইনিংস খেলেন মণীশ পাণ্ডে। এছাড়াও ঝোড়ো ৩৬ রান করেন ইউসুফ পাঠান। পঞ্জাবকে হারিয়ে দ্বিতীয় বারের জন্য আইপিএল চ্যাম্পিয়ন হয় কেকেআর। ফাইনালে ম্যান অব দ্য ম্যাচ হন মণীশ পাণ্ডে ও ম্যান অব দ্য সিরিজ হন পঞ্জাবের গ্লেন ম্যাক্সওয়েল।
 

<p>দ্বিতীয়বার আইপিএল চ্যাম্পিয়ন বাঁধভাঙা উচ্ছাসে মাতে কলকতা নাইট রাইডার্স। যদিও ২১০৪ সালের পর কেটে গিয়েছে ৫ বছর। গত ৫ মরসুমে আইপিএলের ফাইনালে পৌছতে পারেনি কেকেআর। এবার মরুদেশে আইপিএল জিততে বদ্ধপরিকর দীনেশ কার্তিকের দল।</p>

দ্বিতীয়বার আইপিএল চ্যাম্পিয়ন বাঁধভাঙা উচ্ছাসে মাতে কলকতা নাইট রাইডার্স। যদিও ২১০৪ সালের পর কেটে গিয়েছে ৫ বছর। গত ৫ মরসুমে আইপিএলের ফাইনালে পৌছতে পারেনি কেকেআর। এবার মরুদেশে আইপিএল জিততে বদ্ধপরিকর দীনেশ কার্তিকের দল।

loader