আজ রাতে মাঠে ফিরছে সিঁরি আ,চিনে নিন লিগের ইতিহাসে সেরা ১০ লেজেন্ডদের

First Published 20, Jun 2020, 2:09 PM

করোনা আবহেই আজ রাতে ফিরছে ইতালিয়ান লিগ। প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি তোরিনো এবং পারমা। পুনরায় শুরুর আগে চিনে নিন বিশ্বের সবচেয়ে প্রাচীন লিগগুলি মধ্যে অন্যতম সিঁরি আ লিগের ইতিহাসে সেরা ১০ লেজেন্ডদের।
 

<p><br />
<strong>১. পাওলো মালদিনী-</strong><br />
বিশ্বের সর্বকালের সেরা ডিফেন্ডার। ২৪ বছরেরও বেশি সময় খেলেছেন এসি মিলানের হয়ে। তার খেলার মাঠের দক্ষতার পাশাপাশি তার ইস্পাতকঠিন মানসিকতা ও দলকে নেতৃত্ব দেওয়ার ক্ষমতা তাকে তুলে নিয়ে গিয়েছিল অন্য উচ্চতায়। এসি মিলানের হয়ে ৯০২ টি ম্যাচ খেলেছেন তিনি। সাতটি ইতালিয়ান লিগের পাশাপাশি জিতেছেন পাঁচটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ। খুব কম খেলোয়াড় এতদিন ধরে সর্বোচ্চ পর্যায়ে খেলা চালিয়ে যেতে পেরেছেন।</p>


১. পাওলো মালদিনী-
বিশ্বের সর্বকালের সেরা ডিফেন্ডার। ২৪ বছরেরও বেশি সময় খেলেছেন এসি মিলানের হয়ে। তার খেলার মাঠের দক্ষতার পাশাপাশি তার ইস্পাতকঠিন মানসিকতা ও দলকে নেতৃত্ব দেওয়ার ক্ষমতা তাকে তুলে নিয়ে গিয়েছিল অন্য উচ্চতায়। এসি মিলানের হয়ে ৯০২ টি ম্যাচ খেলেছেন তিনি। সাতটি ইতালিয়ান লিগের পাশাপাশি জিতেছেন পাঁচটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ। খুব কম খেলোয়াড় এতদিন ধরে সর্বোচ্চ পর্যায়ে খেলা চালিয়ে যেতে পেরেছেন।

<p><strong>২. দিয়েগো মারাদোনা-</strong><br />
বিশ্ব ফুটবলের সেরা তারকা দিয়েগো মারাদোনা। সিঁরি আ তে তিনি খেলেছেন নাপোলির হয়ে। সেই সময় নাপোলিকে পরিণত করেছিলেন ইতালিয়ান ফুটবলের পাওয়ার  হাউসে। জিতিয়েছিলেন দুটি ইতালিয়ান লিগ। ১৯৮৭ সালে নাপোলি কে ঘরোয়া দ্বিমুকুট জিততে সাহায্য করেন তিনি। ক্লাবের একমাত্র ইউরোপিয়ান ট্রফি-টিও তার ক্লাবে খেলার সময় এসেছে নাপোলির হয়ে। মোট ২৬০ টি ম্যাচ খেলে ১১৫ টি গোল করেছেন তিনি। <br />
 </p>

২. দিয়েগো মারাদোনা-
বিশ্ব ফুটবলের সেরা তারকা দিয়েগো মারাদোনা। সিঁরি আ তে তিনি খেলেছেন নাপোলির হয়ে। সেই সময় নাপোলিকে পরিণত করেছিলেন ইতালিয়ান ফুটবলের পাওয়ার  হাউসে। জিতিয়েছিলেন দুটি ইতালিয়ান লিগ। ১৯৮৭ সালে নাপোলি কে ঘরোয়া দ্বিমুকুট জিততে সাহায্য করেন তিনি। ক্লাবের একমাত্র ইউরোপিয়ান ট্রফি-টিও তার ক্লাবে খেলার সময় এসেছে নাপোলির হয়ে। মোট ২৬০ টি ম্যাচ খেলে ১১৫ টি গোল করেছেন তিনি। 
 

<p><strong>৩.রবার্তো বাজ্জিও-</strong><br />
সর্বকালের সেরা ইতালিয়ান খেলোয়াড়দের মধ্যে অন্যতম। ১৯৯৩ সালে জিতেছেন ব্যালন-ডি-অর ও। সিঁরি আ-তে মোট ৪৫২ টি ম্যাচে মাঠে নেমেছেন। তিনি মোট ৬ টি ক্লাবের হয়ে ইতালিয়ান লিগে খেলেছেন। ক্লাবগুলি হলো ফ্লোরেন্টিনা, জুভেন্তাস, এসি মিলান, বোলগ্না, ইন্টার মিলান এবং ব্রেসিকা। সব ক্লাব মিলিয়ে তিনি মোট ২০৫ টি গোল করেছেন। যার মধ্যে বেশিরভাগই জুভেন্তাসে কাটানো ৫ টি বছরে। <br />
 </p>

৩.রবার্তো বাজ্জিও-
সর্বকালের সেরা ইতালিয়ান খেলোয়াড়দের মধ্যে অন্যতম। ১৯৯৩ সালে জিতেছেন ব্যালন-ডি-অর ও। সিঁরি আ-তে মোট ৪৫২ টি ম্যাচে মাঠে নেমেছেন। তিনি মোট ৬ টি ক্লাবের হয়ে ইতালিয়ান লিগে খেলেছেন। ক্লাবগুলি হলো ফ্লোরেন্টিনা, জুভেন্তাস, এসি মিলান, বোলগ্না, ইন্টার মিলান এবং ব্রেসিকা। সব ক্লাব মিলিয়ে তিনি মোট ২০৫ টি গোল করেছেন। যার মধ্যে বেশিরভাগই জুভেন্তাসে কাটানো ৫ টি বছরে। 
 

<p><strong>৪. জিয়ানলুইগি বুফন-</strong><br />
বিশ্বের সর্বকালের অন্যতম সেরা গোলকিপার। সঙ্গে অসাধারণ একজন অধিনায়ক। পারমার হয়ে খেলা শুরু করে ১৭ বছর ধরে খেলেছেন জুভেন্তাস এর হয়ে। তারপর একবছর ফ্রান্সের পিএসজি তে কাটিয়ে এখন আবার ফিরেছেন জুভেন্তাসের জার্সিতে। বর্তমানে তার বয়স ৪২, কিন্তু ধার কমেনি এখনও। জুভেন্তাসের হয়ে অসংখ্য বার ইতালিয়ান লিগ জিতেছেন। ইতালির হয়ে ২০০৬ বিশ্বকাপও জিতেছেন ইতালিয়ান ফুটবল তথা বিশ্বফুটবলের অন্যতম সেরা কিপার। <br />
 </p>

৪. জিয়ানলুইগি বুফন-
বিশ্বের সর্বকালের অন্যতম সেরা গোলকিপার। সঙ্গে অসাধারণ একজন অধিনায়ক। পারমার হয়ে খেলা শুরু করে ১৭ বছর ধরে খেলেছেন জুভেন্তাস এর হয়ে। তারপর একবছর ফ্রান্সের পিএসজি তে কাটিয়ে এখন আবার ফিরেছেন জুভেন্তাসের জার্সিতে। বর্তমানে তার বয়স ৪২, কিন্তু ধার কমেনি এখনও। জুভেন্তাসের হয়ে অসংখ্য বার ইতালিয়ান লিগ জিতেছেন। ইতালির হয়ে ২০০৬ বিশ্বকাপও জিতেছেন ইতালিয়ান ফুটবল তথা বিশ্বফুটবলের অন্যতম সেরা কিপার। 
 

<p><strong>৫. ফ্রান্সিকো তোত্তি-</strong><br />
রোমার সর্বকালের সেরা খেলোয়াড়। রোমার হয়ে খেলার সময় ৫ বার সেরা ইতালিয়ান ফুটবলারের খেতাব জিতেছেন তিনি। মোট ৬১৯ বার তিনি রোমার হয়ে ইতালিয়ান লিগে মাঠে নেমেছেন। এই সমস্ত ম্যাচ মিলিয়ে মোট ২৫০ বার জালে বল জড়িয়েছেন। রোমাতে খেলা শুরু করেছিলেন এবং রোমাতেই খেলা ছেড়েছেন। সিঁরি আ এর ইতিহাসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ স্কোরার তিনি। </p>

৫. ফ্রান্সিকো তোত্তি-
রোমার সর্বকালের সেরা খেলোয়াড়। রোমার হয়ে খেলার সময় ৫ বার সেরা ইতালিয়ান ফুটবলারের খেতাব জিতেছেন তিনি। মোট ৬১৯ বার তিনি রোমার হয়ে ইতালিয়ান লিগে মাঠে নেমেছেন। এই সমস্ত ম্যাচ মিলিয়ে মোট ২৫০ বার জালে বল জড়িয়েছেন। রোমাতে খেলা শুরু করেছিলেন এবং রোমাতেই খেলা ছেড়েছেন। সিঁরি আ এর ইতিহাসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ স্কোরার তিনি। 

<p><strong>৬. জিনেদিন জিদান-</strong><br />
বিশ্বের সর্বকালের সেরা খেলোয়াড়দের মধ্যে একজন। জিদান জুভেন্তাসের হয়ে ২ টি সিঁরি আ জিতেছেন। জুভেন্তাসের হয়ে তিনি খেলেছেন চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালও। কিন্তু সেই ম্যাচে জুভেন্তাসকে হারতেও হয়। রিয়াল মাদ্রিদে হিসাবে যোগ দেওয়ার আগে তিনি জুভেন্তাস কে বিশ্বের শ্রেষ্ঠ একটি ক্লাবে পরিণত করে দিয়ে গেছেন। </p>

৬. জিনেদিন জিদান-
বিশ্বের সর্বকালের সেরা খেলোয়াড়দের মধ্যে একজন। জিদান জুভেন্তাসের হয়ে ২ টি সিঁরি আ জিতেছেন। জুভেন্তাসের হয়ে তিনি খেলেছেন চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালও। কিন্তু সেই ম্যাচে জুভেন্তাসকে হারতেও হয়। রিয়াল মাদ্রিদে হিসাবে যোগ দেওয়ার আগে তিনি জুভেন্তাস কে বিশ্বের শ্রেষ্ঠ একটি ক্লাবে পরিণত করে দিয়ে গেছেন। 

<p><strong>৭. মার্কো ভান বাস্তেন-</strong><br />
মিলানের হয়ে ৬ টি লিগ জিতেছেন। সেই সময় গোল করার ব্যাপারে নিজেকে আলাদা উচ্চতায় তুলে নিয়ে গিয়েছিলেন। এসি মিলানের হয়ে খেলার সময় নিজেকে অন্য উচ্চতায় তুলে নিয়ে গিয়েছিলেন মার্কো ভান বাস্তেন। ওই সময় তিনি মোট তিনবার ব্যালন-ডি-ওর জিতেছেন। সারা কেরিয়ার জুড়ে করেছেন অনেক বিস্ময় গোল। কিন্তু রোনাল্ডোর মতো তাকেও চোট ভুগিয়েছে। <br />
 </p>

৭. মার্কো ভান বাস্তেন-
মিলানের হয়ে ৬ টি লিগ জিতেছেন। সেই সময় গোল করার ব্যাপারে নিজেকে আলাদা উচ্চতায় তুলে নিয়ে গিয়েছিলেন। এসি মিলানের হয়ে খেলার সময় নিজেকে অন্য উচ্চতায় তুলে নিয়ে গিয়েছিলেন মার্কো ভান বাস্তেন। ওই সময় তিনি মোট তিনবার ব্যালন-ডি-ওর জিতেছেন। সারা কেরিয়ার জুড়ে করেছেন অনেক বিস্ময় গোল। কিন্তু রোনাল্ডোর মতো তাকেও চোট ভুগিয়েছে। 
 

<p><strong>৮. সিলভিও পিওলো-</strong><br />
অনেকে সর্বকালের সেরা ইতালিয়ান স্ট্রাইকারও আখ্যা দিয়ে থাকেন তাকে। ইতালির ১৯৩৮ বিশ্বকাপ জেতায় তার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল। ইতালিয়ান লিগে তিনি মোট ৫৩৭ টি ম্যাচ খেলেছেন। এই সব ম্যাচে তিনি মোট ২৭৪ বার গোলের ঠিকানা খুঁজে পেয়েছেন। বড় দলগুলির মধ্যে তিনি লাজিওর হয়ে ১৪৩ টি, জুভেন্তাসের হয়ে ২৬ টি গোল করেছেন। </p>

৮. সিলভিও পিওলো-
অনেকে সর্বকালের সেরা ইতালিয়ান স্ট্রাইকারও আখ্যা দিয়ে থাকেন তাকে। ইতালির ১৯৩৮ বিশ্বকাপ জেতায় তার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল। ইতালিয়ান লিগে তিনি মোট ৫৩৭ টি ম্যাচ খেলেছেন। এই সব ম্যাচে তিনি মোট ২৭৪ বার গোলের ঠিকানা খুঁজে পেয়েছেন। বড় দলগুলির মধ্যে তিনি লাজিওর হয়ে ১৪৩ টি, জুভেন্তাসের হয়ে ২৬ টি গোল করেছেন। 

<p><strong>৯. আলেহান্দ্র দেল পিয়েরো-</strong><br />
বিশ্বফুটবলের সেরা খেলোয়াড়দের মধ্যে অন্যতম। সিঁরি আ তে মাঠে নেমেছেন জুভেন্তাসের হয়ে। বায়নোকেনেরি-দের হয়ে মোট ৫১৩ টি ম্যাচে নেমেছেন তিনি ইতালিয়ান লিগে। এই সময় তিনি ১৮৮ টি গোল করেছেন। এছাড়া তিনি দেশের হয়ে ৯১ টি ম্যাচ খেলে ২৭ টি গোলও করেছেন। ভারতে এসে খেলে গেছেন দিল্লি ডায়নামোসের হয়েও। </p>

৯. আলেহান্দ্র দেল পিয়েরো-
বিশ্বফুটবলের সেরা খেলোয়াড়দের মধ্যে অন্যতম। সিঁরি আ তে মাঠে নেমেছেন জুভেন্তাসের হয়ে। বায়নোকেনেরি-দের হয়ে মোট ৫১৩ টি ম্যাচে নেমেছেন তিনি ইতালিয়ান লিগে। এই সময় তিনি ১৮৮ টি গোল করেছেন। এছাড়া তিনি দেশের হয়ে ৯১ টি ম্যাচ খেলে ২৭ টি গোলও করেছেন। ভারতে এসে খেলে গেছেন দিল্লি ডায়নামোসের হয়েও। 

<p><strong>১০. রোনাল্ডো-</strong><br />
 বিশ্বের সর্বকালের সেরা স্ট্রাইকারদের মধ্য অন্যতম। অসাধারণ স্কিল এবং তুখোড় গেম-রিডার রোনাল্ডোকে ভুগিয়েছে একটাই জিনিস, সেটা হলো চোট-আঘাত। ১৯৯৭ এ তিনি ইন্টার মিলানে যোগ দেন। সেখানে তাদের হয়ে অবিশ্বাস্য পারফরম্যান্স করেছেন তিনি। ইন্টারের হয়ে তিনি ৭৫ ম্যাচে ৪৯ গোল করেছেন। ১৯৯৮ সালে ইন্টার মিলান-কে ইউয়েফা কাপ-ও জিতিয়েছেন তিনি। <br />
 </p>

১০. রোনাল্ডো-
 বিশ্বের সর্বকালের সেরা স্ট্রাইকারদের মধ্য অন্যতম। অসাধারণ স্কিল এবং তুখোড় গেম-রিডার রোনাল্ডোকে ভুগিয়েছে একটাই জিনিস, সেটা হলো চোট-আঘাত। ১৯৯৭ এ তিনি ইন্টার মিলানে যোগ দেন। সেখানে তাদের হয়ে অবিশ্বাস্য পারফরম্যান্স করেছেন তিনি। ইন্টারের হয়ে তিনি ৭৫ ম্যাচে ৪৯ গোল করেছেন। ১৯৯৮ সালে ইন্টার মিলান-কে ইউয়েফা কাপ-ও জিতিয়েছেন তিনি। 
 

loader