সকালে খালি পেটে কিশমিশ ভেজানো জল, নিয়ন্ত্রণে রাখবে ৬ জটিল সমস্যা

First Published 21, Oct 2020, 2:33 PM

কিশমিশ হল শুকনো আঙ্গুর। প্রাচীনকাল থেকে শক্তি বা ক্যালরির চমৎকার উৎস হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। এতে রয়েছে পটাশিয়াম, যা হার্টকে ভাল রাখে এবং খারাপ কোলেস্টরল দূর করতে সাহায্য করে। রয়েছে আয়রন যা রক্তাল্পতা কমাতে বিশেষভাবে সাহায্য করে। এছাড়াও রয়েছে কার্বোহাইট্রেট, যা এনার্জি জোগায়। মহিলারাই বিশেষত রক্তাল্পতায় ভোগেন, তাই চিকিৎসকরা বলেন কিশমিশ খাওয়া মহিলাদের স্বাস্থ্যের পক্ষে বিশেষ উপকারি। জেনে নিন কিভাবে কাজে লাগাবেন এই ঘরোয়া টোটকা-

<p>রাতে ২ কাপ জলে ৭-৮ টা কিশমিশ ভিজিয়ে রেখে দিন। &nbsp;পরের দিন সকালে ওই কিশমিশ ছেঁকে জল হালকা গরম করুন। &nbsp;খালি পেটে এই জল খেয়ে নিন।&nbsp;</p>

রাতে ২ কাপ জলে ৭-৮ টা কিশমিশ ভিজিয়ে রেখে দিন।  পরের দিন সকালে ওই কিশমিশ ছেঁকে জল হালকা গরম করুন।  খালি পেটে এই জল খেয়ে নিন। 

<p>এই জল খাওয়ার আধঘণ্টার মধ্যে কিছু খাবেন না। সপ্তাহে তিন থেকে চার দিন এই জল খান।&nbsp;মনে রাখবেন কিশমিশের রং যত গাঢ় হবে, তত উপকারী।<br />
&nbsp;</p>

এই জল খাওয়ার আধঘণ্টার মধ্যে কিছু খাবেন না। সপ্তাহে তিন থেকে চার দিন এই জল খান। মনে রাখবেন কিশমিশের রং যত গাঢ় হবে, তত উপকারী।
 

<p>কিশমিশ ভেজানো জল খেলে কিডনির নানা সমস্যা থেকে দূরে থাকা যায়। পাশাপাশি সুস্থ থাকে লিভারও।</p>

কিশমিশ ভেজানো জল খেলে কিডনির নানা সমস্যা থেকে দূরে থাকা যায়। পাশাপাশি সুস্থ থাকে লিভারও।

<p>যাঁরা নিয়মিত পেটের ও হজমের সমস্যায় ভোগেন, তাঁদের জন্য এই টোটকা খুবই কার্যকর। এই পানীয় পেট পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে।</p>

যাঁরা নিয়মিত পেটের ও হজমের সমস্যায় ভোগেন, তাঁদের জন্য এই টোটকা খুবই কার্যকর। এই পানীয় পেট পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে।

<p>কিশমিশে রয়েছে পটাশিয়াম যা হার্টকে ভাল রাখে। শরীরের খারাপ কোলেস্টেরলকেও দূরে রাখতেও সাহায্য করে এই উপাদান।&nbsp;<br />
&nbsp;</p>

কিশমিশে রয়েছে পটাশিয়াম যা হার্টকে ভাল রাখে। শরীরের খারাপ কোলেস্টেরলকেও দূরে রাখতেও সাহায্য করে এই উপাদান। 
 

<p>কিশমিশে পর্যাপ্ত পরিমাণে কার্বহাইড্রেট থাকে। কিশমিশ ভেজানো জল তাই মহিলাদের পক্ষে উপকারী। মহিলারা রক্তাল্পতায় ভোগেন। তাই চিকিৎসকরা তাঁদের কিশমিশ খাওয়ার পরামর্শ দেন।</p>

কিশমিশে পর্যাপ্ত পরিমাণে কার্বহাইড্রেট থাকে। কিশমিশ ভেজানো জল তাই মহিলাদের পক্ষে উপকারী। মহিলারা রক্তাল্পতায় ভোগেন। তাই চিকিৎসকরা তাঁদের কিশমিশ খাওয়ার পরামর্শ দেন।