প্রকৃতির তাণ্ডবে বিপর্যস্ত উত্তরাখণ্ডের পিথরাগড়, মেঘভাঙা বৃষ্টির ভয়ঙ্কর ছবিগুলি একবার দেখুন

First Published 20, Jul 2020, 11:20 AM

মেঘভাঙা বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত উত্তাখণ্ডের পিথরাগড়। স্থানীয় প্রশাসনের দেওয়া হিসেব অনুযায়ী এখনও পর্যন্ত তিন জনের মৃত্যু হয়েছে। খোঁজ নেই কমপক্ষে ৯ জনের। প্রবল বৃষ্টি আর ভূমি ধসের কারণে বহু মানুষই আহত হয়েছেন। সোমবার খুব ভোর বেলা প্রবল বৃষ্টি হয়। তাতেই লন্ডভন্ড হয়ে যায় বিস্তীর্ণ এলাকায়। স্থানীয় প্রশাসন জানিয়েছে মুনসিয়ারীর তাগা গ্রাম ও পিথরাগড়ের বানগাপানিতে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ অনেকটাই বেশি। মেঘাভাঙা বৃষ্টির তোড়ে বহু ঘরবাড়ি নষ্ট হয়েছে। ইতিমধ্যেই বিপর্যস্ত এলাকায় পৌঁছেছে উদ্ধারকারী দল। নিখোঁজদের খোঁজে শুরু হয়েছে তল্লাশি। বেশ কয়েকদিন ধরেই প্রবল বৃষ্টি হচ্ছে উত্তরাখণ্ডে। আর সেই কারণেই যোগাযোগ ব্যবস্থা প্রায় বিপর্যস্ত পাহাড়ী এই রাজ্যে। 

<p><strong>মেঘভাঙা বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত উত্তরাখণ্ডের বিস্তীর্ণ এলাকা। পিথরাগড়ের মনগাপানি ও মুনসিয়ারীর তাগা গ্রামে সর্বাধিক ক্ষতি হয়েছে। </strong><br />
 </p>

মেঘভাঙা বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত উত্তরাখণ্ডের বিস্তীর্ণ এলাকা। পিথরাগড়ের মনগাপানি ও মুনসিয়ারীর তাগা গ্রামে সর্বাধিক ক্ষতি হয়েছে। 
 

<p><strong>প্রকৃতির এই তাণ্ডব ৩ জনের প্রাণ কেড়েছে। মৃতরা প্রত্যেকেই বানহাপানির গালা গ্রামের বাসিন্দা। নিখোঁজ থাকা ৯ জন তাগা গ্রামের বাসিন্দা। </strong></p>

প্রকৃতির এই তাণ্ডব ৩ জনের প্রাণ কেড়েছে। মৃতরা প্রত্যেকেই বানহাপানির গালা গ্রামের বাসিন্দা। নিখোঁজ থাকা ৯ জন তাগা গ্রামের বাসিন্দা। 

<p><strong>মেঘভাঙা বৃষ্টিতে এখনও পর্যন্ত বহু ঘরবাড়ি নষ্ট হয়ে গেছে। ভেঙে গেছে পাহাড়ের অংশবিশেষ। ভূমিধ্বসের কারণে প্রচুর ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলেই জানিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।</strong> <br />
 </p>

মেঘভাঙা বৃষ্টিতে এখনও পর্যন্ত বহু ঘরবাড়ি নষ্ট হয়ে গেছে। ভেঙে গেছে পাহাড়ের অংশবিশেষ। ভূমিধ্বসের কারণে প্রচুর ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলেই জানিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। 
 

<p><strong>মেঘভাঙা বৃষ্টি বেশি দেখা যায় পাহাড়ী অঞ্চলে। পাহাড় ঘেরা এলাকায় মেঘ দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে বাধা পায়। তখন মেঘ উলম্ব আকার ধারণ করে। আর সেই বৃষ্টি যেখানে হয় সেই এলাকাটি প্রায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। </strong><br />
 </p>

মেঘভাঙা বৃষ্টি বেশি দেখা যায় পাহাড়ী অঞ্চলে। পাহাড় ঘেরা এলাকায় মেঘ দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে বাধা পায়। তখন মেঘ উলম্ব আকার ধারণ করে। আর সেই বৃষ্টি যেখানে হয় সেই এলাকাটি প্রায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। 
 

<p><strong>সোমবার সকালেই তেমনই প্রকৃতির তাণ্ডবের সাক্ষী ছিলের উত্তরাখণ্ডের দুটি গ্রামের বাসিন্দারা। প্রকৃতির এই তাণ্ডবে প্রায় বিপর্যস্ত তাঁদের জীবন। </strong></p>

সোমবার সকালেই তেমনই প্রকৃতির তাণ্ডবের সাক্ষী ছিলের উত্তরাখণ্ডের দুটি গ্রামের বাসিন্দারা। প্রকৃতির এই তাণ্ডবে প্রায় বিপর্যস্ত তাঁদের জীবন। 

<p><strong>প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে উত্তরাখণ্ডের বেশ কয়েকটি এলাকায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে যোগাযোগ পরিষেবা। ভূমি ধস আর প্রবল বৃষ্টির কারণে নষ্ট হয়ে গেছে রাস্তা। </strong><br />
 </p>

প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে উত্তরাখণ্ডের বেশ কয়েকটি এলাকায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে যোগাযোগ পরিষেবা। ভূমি ধস আর প্রবল বৃষ্টির কারণে নষ্ট হয়ে গেছে রাস্তা। 
 

<p><strong>মেঘভাঙা বৃষ্টির কারণে  হড়কাবান দেখা দেয়। তার তাতেই জলের তোড়ে ভেঙে গিয়ে তিন জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। পরে তিনজনেরই দেহ উদ্ধার করা গেছে। </strong></p>

মেঘভাঙা বৃষ্টির কারণে  হড়কাবান দেখা দেয়। তার তাতেই জলের তোড়ে ভেঙে গিয়ে তিন জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। পরে তিনজনেরই দেহ উদ্ধার করা গেছে। 

<p><strong>বেশ কয়েকদিন ধরেই উত্তরাখণ্ডে প্রবল বৃষ্টি হচ্ছে। আর সেই কারণে মুনসিয়ারী দারকোট থেকে পিথরাগড় যাওয়ার রাস্তা প্রায় নষ্ট হয়ে গেছে। চিন সীমান্ত সংলগ্ন গ্রামগুলিতে যাওয়ার এটাই একমাত্র রাস্তা। শনিবার থেকে ভূমিধসের কারণে বদ্রীনাথগামী রাস্তাও বন্ধ ছিল।</strong><br />
 </p>

বেশ কয়েকদিন ধরেই উত্তরাখণ্ডে প্রবল বৃষ্টি হচ্ছে। আর সেই কারণে মুনসিয়ারী দারকোট থেকে পিথরাগড় যাওয়ার রাস্তা প্রায় নষ্ট হয়ে গেছে। চিন সীমান্ত সংলগ্ন গ্রামগুলিতে যাওয়ার এটাই একমাত্র রাস্তা। শনিবার থেকে ভূমিধসের কারণে বদ্রীনাথগামী রাস্তাও বন্ধ ছিল।
 

<p><strong>গতবছরও মেঘভাঙা বৃষ্টির সাক্ষী ছিল উত্তরাখণ্ড। আরাকোট গ্রামে প্রকৃতিক দুর্যোগ ১৭ জনের প্রাণ কেড়েছিল বলে বলেই জানিয়েছে প্রশাসন। তখনও উদ্ধারকাজে এসডিআরএফ বা স্টেট ডিজাস্টার রেসপন্স ফোর্স নামাতে হয়েছিল। </strong></p>

গতবছরও মেঘভাঙা বৃষ্টির সাক্ষী ছিল উত্তরাখণ্ড। আরাকোট গ্রামে প্রকৃতিক দুর্যোগ ১৭ জনের প্রাণ কেড়েছিল বলে বলেই জানিয়েছে প্রশাসন। তখনও উদ্ধারকাজে এসডিআরএফ বা স্টেট ডিজাস্টার রেসপন্স ফোর্স নামাতে হয়েছিল। 

loader