বরফের ছটা কেন বের বচ্ছে নেপচুনের 'চাঁদ' থেকে, ফের নতুন অ্যাডভেঞ্চারে নামছে নাসা

First Published 22, Jun 2020, 3:29 PM

সৌরজগতে যে কটি গ্রহ রয়েছে তার মধ্যে সবচেয়ে দূরে রয়েছে নেপচুন। আর এই গ্রহের উপগ্রহকে নিয়েই এবার নিজেদের যাবতীয় পরীক্ষা নিরিক্ষায় নামতে চাইছে মার্কিন মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র নাসা। নেপচুনের উপগ্রহ ট্রাইটনে সমুদ্র আছে কিনা ও ভূমি থেকে বরফের ছটা কেনো বের হচ্ছে সেগুলো নিয়ে গবেষণা করতে চাইছে এই মহাকাশ গবেষণা সংস্থাটি। সবকিছু ঠিক থাকলে ২০২৫ সালেই টাইট্রনের উদ্দেশে মহাকাশ যান পাঠাবে নাসা।

<p><strong>সৌরজগতে সূর্য থেকে সবচেয়ে দূরে রয়েছে নেপচুন। এই গ্রহের একটি উপগ্রহ ট্রাইটন। উপগ্রহটি সম্পর্কে জানতে আজ থেকে ৩০ বছর আগে নাসা একটি মহাকাশ যান পাঠিয়েছিলো।</strong></p>

সৌরজগতে সূর্য থেকে সবচেয়ে দূরে রয়েছে নেপচুন। এই গ্রহের একটি উপগ্রহ ট্রাইটন। উপগ্রহটি সম্পর্কে জানতে আজ থেকে ৩০ বছর আগে নাসা একটি মহাকাশ যান পাঠিয়েছিলো।

<p><strong>মহাকাশ যান ভয়েজেস ২ দিয়ে উপগ্রহটির ৪০ শতাংশ ছবি তোলা সম্ভব হয়েছিল। এবার আরও কিছু তথ্য পেতে নাসাকে ‘ট্রাইডেন্ট’ মিশন ফের পরিচালনার প্রস্তাব দিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। </strong></p>

মহাকাশ যান ভয়েজেস ২ দিয়ে উপগ্রহটির ৪০ শতাংশ ছবি তোলা সম্ভব হয়েছিল। এবার আরও কিছু তথ্য পেতে নাসাকে ‘ট্রাইডেন্ট’ মিশন ফের পরিচালনার প্রস্তাব দিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। 

<p><strong>পুরো উপগ্রহের উপরিভাগে কী কী আছে, কোনো সমুদ্র আছে কিনা ও ভূমি থেকে বরফের ছটা কেনো বের হচ্ছে সেগুলো নিয়ে গবেষণার প্রস্তাব দিয়েছেন তারা। </strong></p>

পুরো উপগ্রহের উপরিভাগে কী কী আছে, কোনো সমুদ্র আছে কিনা ও ভূমি থেকে বরফের ছটা কেনো বের হচ্ছে সেগুলো নিয়ে গবেষণার প্রস্তাব দিয়েছেন তারা। 

<p><strong>আগামী বছর ৩ টির মধ্যে কোনো ২টি  বিষয় গবেষণার জন্য অনুমোদন পাবে। এরপর ২০২৫ সালের অক্টোবরে ট্রাইটনের উদ্দেশে মহাকাশ যান পাঠাবে নাসা।</strong></p>

আগামী বছর ৩ টির মধ্যে কোনো ২টি  বিষয় গবেষণার জন্য অনুমোদন পাবে। এরপর ২০২৫ সালের অক্টোবরে ট্রাইটনের উদ্দেশে মহাকাশ যান পাঠাবে নাসা।

<p><strong>তবে ২০৩৮ সালের আগে ট্রাইটনে সেটি পৌঁছাবে না। পৃথিবী থেকে নেপচুনের দূরত্ব ২৮০ কোটি মাইল। তাই মিশনটি থেকে তথ্য পেতে অন্তত ১৩ বছর সময় লাগবে।</strong></p>

তবে ২০৩৮ সালের আগে ট্রাইটনে সেটি পৌঁছাবে না। পৃথিবী থেকে নেপচুনের দূরত্ব ২৮০ কোটি মাইল। তাই মিশনটি থেকে তথ্য পেতে অন্তত ১৩ বছর সময় লাগবে।

<p><strong>উপগ্রহটিতে কেনো বরফের ছটা বের হচ্ছে সে প্রশ্নটিই গবেষকদের কৌতূহল বাড়িয়ে দিয়েছে। কারণ সূর্যের অনেক দূরে অবস্থান করলেও উপগ্রহটির আয়নমণ্ডল সৌর জগতের অন্যান্য যেকোনো উপগ্রহের থেকে ১০ গুণ বেশি সক্রিয়।</strong></p>

উপগ্রহটিতে কেনো বরফের ছটা বের হচ্ছে সে প্রশ্নটিই গবেষকদের কৌতূহল বাড়িয়ে দিয়েছে। কারণ সূর্যের অনেক দূরে অবস্থান করলেও উপগ্রহটির আয়নমণ্ডল সৌর জগতের অন্যান্য যেকোনো উপগ্রহের থেকে ১০ গুণ বেশি সক্রিয়।

<p><strong>এ বিষয়ে ট্রাইডেন্ট প্রকল্পের বিজ্ঞানী কার্ল মিশেল বলেন, ট্রাইটন খুবই অদ্ভূত। আমরা জানি, এর পৃষ্ঠতলে এমন কিছু উপাদান আছে যেগুলো আগে কখনও খুঁজে পাওয়া যায়নি। কীভাবে উপগ্রহটি এখনো সক্রিয় আছে তা আমরা জানতে চাই।</strong></p>

এ বিষয়ে ট্রাইডেন্ট প্রকল্পের বিজ্ঞানী কার্ল মিশেল বলেন, ট্রাইটন খুবই অদ্ভূত। আমরা জানি, এর পৃষ্ঠতলে এমন কিছু উপাদান আছে যেগুলো আগে কখনও খুঁজে পাওয়া যায়নি। কীভাবে উপগ্রহটি এখনো সক্রিয় আছে তা আমরা জানতে চাই।

<p><strong>২০৪০ সালের মধ্যে এই মিশন পরিচালনা না করতে পারলে সূর্য আরও উত্তরে চলে যাবে। সেক্ষেত্রে অপেক্ষা করতে হবে ১০০ বছর।</strong><br />
 </p>

২০৪০ সালের মধ্যে এই মিশন পরিচালনা না করতে পারলে সূর্য আরও উত্তরে চলে যাবে। সেক্ষেত্রে অপেক্ষা করতে হবে ১০০ বছর।
 

loader