জরুরী পণ্যের কালোবাজারি রুখতে রাজ্য়ে কঠোর আইন প্রয়োগের নির্দেশ কেন্দ্রের, হতে পারে ৭ বছরের জেলও

First Published 9, Apr 2020, 9:30 AM

 লকডাউনে অত্যাবশ্যকীয় পণ্য পরিষেবা অটুট রাখতে রাজ্যকে চিঠি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের। প্রয়োজনে কালোবাজারি নিয়ে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে। প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী নিয়ে কোনও ব্যবসায়ী যেনও  জনসাধারণকে সমস্যায় না ফেলেন তার জন্য প্রতিটি রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিকে কড়া নির্দেশিকা জারি করা হয়। পাশাপাশি জরুরি ভিত্তিতে বাজারে প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী মজুত রাখারও নির্দেশ দেওয়া হয়। কড়া পদক্ষেপ নিতে ১৯৫৫ সালের জরুরি পণ্য পরিষেবা আইনও জারি করা হয়েছে। কালোবাজারি করলে অভিযুক্তকে জরিমানা সহ ৭ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হতে পারে।

লকডাউনে অত্যাবশ্যকীয় পণ্য পরিষেবা অটুট রাখতে রাজ্যকে চিঠি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের।

লকডাউনে অত্যাবশ্যকীয় পণ্য পরিষেবা অটুট রাখতে রাজ্যকে চিঠি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের।

প্রতিটি রাজ্য-সহ কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির প্রধান সচিবদের সঙ্গে কথা বলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিব অজয় ভাল্লা।

প্রতিটি রাজ্য-সহ কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির প্রধান সচিবদের সঙ্গে কথা বলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিব অজয় ভাল্লা।

দেশের জরুরি পরিস্থিতিতে কালোবাজারি করলে ও ধরা পড়লে অভিযুক্তকে কঠোরতম শাস্তি দেওয়া হবে

দেশের জরুরি পরিস্থিতিতে কালোবাজারি করলে ও ধরা পড়লে অভিযুক্তকে কঠোরতম শাস্তি দেওয়া হবে

প্রয়োজনে কালোবাজারি নিয়ে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে। প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী নিয়ে কোনও ব্যবসায়ী যেনও  জনসাধারণকে সমস্যায় না ফেলেন তার জন্য প্রতিটি রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিকে কড়া নির্দেশিকা জারি করা হয়।

প্রয়োজনে কালোবাজারি নিয়ে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে। প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী নিয়ে কোনও ব্যবসায়ী যেনও জনসাধারণকে সমস্যায় না ফেলেন তার জন্য প্রতিটি রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিকে কড়া নির্দেশিকা জারি করা হয়।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিব অজয় ভাল্লা বলেন, '২১ দিনের টানা লকডাউনে প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী, ওষুধ ও চিকিৎসার প্রয়োজনীয় সামগ্রী সরবরাহ করা হবে।'

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিব অজয় ভাল্লা বলেন, '২১ দিনের টানা লকডাউনে প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী, ওষুধ ও চিকিৎসার প্রয়োজনীয় সামগ্রী সরবরাহ করা হবে।'

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিব বলেন, 'দেশের বেশিরভাগ কারখানাগুলি বন্ধ থাকায় কমছে প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রীর উৎপাদন। তুলামূলকভাবে বাড়ছে খাবারের চাহিদা।'

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিব বলেন, 'দেশের বেশিরভাগ কারখানাগুলি বন্ধ থাকায় কমছে প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রীর উৎপাদন। তুলামূলকভাবে বাড়ছে খাবারের চাহিদা।'

পাশাপাশি জরুরি ভিত্তিতে বাজারে প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী মজুত রাখারও নির্দেশ দেওয়া হয়।

পাশাপাশি জরুরি ভিত্তিতে বাজারে প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী মজুত রাখারও নির্দেশ দেওয়া হয়।

পাশাপাশি,কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিব আরও বলেন, 'এই পরিস্থিতি সুযোগ নিয়ে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী খাদ্যসামগ্রীর কালোবাজারি শুরু করবে,  তাই সাধারণ মানুষ যাতে বাড়িতে থেকেই জীবনধারণের সমস্ত প্রয়োজনীয় দ্রব্য পেতে পারেন সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে রাজ্য সরকারকে।'

পাশাপাশি,কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিব আরও বলেন, 'এই পরিস্থিতি সুযোগ নিয়ে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী খাদ্যসামগ্রীর কালোবাজারি শুরু করবে, তাই সাধারণ মানুষ যাতে বাড়িতে থেকেই জীবনধারণের সমস্ত প্রয়োজনীয় দ্রব্য পেতে পারেন সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে রাজ্য সরকারকে।'

কালোবাজারি রুখতে শুধু মৌখিকভাবে নয় হাতেকলমে কড়া পদক্ষেপ নিতে ১৯৫৫ সালের জরুরি পণ্য পরিষেবা আইনও (এসেনশিয়াল কমোডিটিস অ্য়াক্ট) জারি করলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিব অজয় ভাল্লা।

কালোবাজারি রুখতে শুধু মৌখিকভাবে নয় হাতেকলমে কড়া পদক্ষেপ নিতে ১৯৫৫ সালের জরুরি পণ্য পরিষেবা আইনও (এসেনশিয়াল কমোডিটিস অ্য়াক্ট) জারি করলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিব অজয় ভাল্লা।

কালোবাজারি করলে  জরুরি পণ্য পরিষেবা আইন অনুযায়ী মোটা টাকার জরিমানা বা ৭ বছরের কারাদণ্ড অথবা দুটোই জরিমানা-সহ হাজতবাস হতে পারে।

কালোবাজারি করলে জরুরি পণ্য পরিষেবা আইন অনুযায়ী মোটা টাকার জরিমানা বা ৭ বছরের কারাদণ্ড অথবা দুটোই জরিমানা-সহ হাজতবাস হতে পারে।

যেহেতু দেশে জরুরি পরিষেবা চলছে তাই এই সময় কোনও ব্যবসায়ী কালোবাজারি করলে তাদের কোনওভাবেই রেয়াত করা হবে না বলে জানান অজয় ভাল্লা।

যেহেতু দেশে জরুরি পরিষেবা চলছে তাই এই সময় কোনও ব্যবসায়ী কালোবাজারি করলে তাদের কোনওভাবেই রেয়াত করা হবে না বলে জানান অজয় ভাল্লা।

প্রতিটি রাজ্যের ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির মুখ্যসচিবদের সঙ্গে কথা বলে তাঁদের দ্রুত নিজেদের রাজ্যে প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী মজুত রাখার পরামর্শ দেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিব

প্রতিটি রাজ্যের ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির মুখ্যসচিবদের সঙ্গে কথা বলে তাঁদের দ্রুত নিজেদের রাজ্যে প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী মজুত রাখার পরামর্শ দেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিব

loader