দোল উৎসবে মাতোয়ারা বাংলা, নগরকীর্তন করে উৎসব পালন সমাজসেবীর

First Published 10, Mar 2020, 12:05 PM IST

শীতের পরে আগমন হয় ঋতুরাজ বসন্তের । কোথাও কোথাও দু-একটি কোকিলের কুহু রব ছাড়া শহরে বসন্ত এসেছে বর্তমানে প্রকৃতি জানান দেয় না ,কিন্তু হৃদয়ের বসন্ত থেমে থাকেনি। তাইতো শুধু শান্তিনিকেতন , রবীন্দ্রভারতী ,জোড়াসাঁকো নয় শহরের নানা প্রান্তরে আট থেকে আশি সমস্ত বয়সের মানুষই বসন্ত উৎসবে মেতে উঠেছে। বসন্ত উৎসবের সেই আনন্দে মেতে উঠেছে বালিগঞ্জের দেশপ্রিয় পার্কের কাছেই সমাজসেবী সংঘও। সকাল থেকেই শুরু হয়ে গেছে দোল উৎসবের মহড়া। প্রত্যেকেই সেজে গুজে মেতে উঠেছেন এই দোল উৎসবে। প্রথমে রাধাকৃষ্ণকে আরাধনা করে পূজার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। একদিকে রবীন্দ্রসঙ্গীত অন্যদিকে রবীন্দ্র নৃত্যে মুখরিত হয়েছে এই অনুষ্ঠান। একনজরে দেখে নিন দোল উৎসবের কিছু মুহূর্ত।

কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর শান্তিনিকেতনে বসন্ত উৎসবের প্রচলন করেন । আর সেই উৎসবকে মূলধন করেই সারা দেশ জুড়ে পাড়ায় পাড়ায় চলে বসন্ত উৎসবের আয়োজন। তেমনি এক অনুষ্ঠান হয়ে গেল কলকাতার বালিগঞ্জের দেশপ্রিয় পার্কের কাছেই সমাজসেবী সংঘে।

কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর শান্তিনিকেতনে বসন্ত উৎসবের প্রচলন করেন । আর সেই উৎসবকে মূলধন করেই সারা দেশ জুড়ে পাড়ায় পাড়ায় চলে বসন্ত উৎসবের আয়োজন। তেমনি এক অনুষ্ঠান হয়ে গেল কলকাতার বালিগঞ্জের দেশপ্রিয় পার্কের কাছেই সমাজসেবী সংঘে।

প্রথমে রাধাকৃষ্ণকে আরাধনা করে পূজার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। দ্বিতীয়ার্ধে শ্রীকৃষ্ণের নাম কীর্তন হয়। ও তার পাশাপাশি তারা কিছুটা পদযাত্রা করেন।

প্রথমে রাধাকৃষ্ণকে আরাধনা করে পূজার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। দ্বিতীয়ার্ধে শ্রীকৃষ্ণের নাম কীর্তন হয়। ও তার পাশাপাশি তারা কিছুটা পদযাত্রা করেন।

এই ক্লাবের সেক্রেটারি অরিজিত মৈত্র জানান ,এই বসন্ত উৎসব প্রায় ১০ বছর ধরে হয়ে আসছে। তারা এই দিনটির জন্যই সারাবছর অপেক্ষা করে থাকেন। এবং তিন বছর ধরে রং খেলার পাশাপাশি এই পুজোর আয়োজন করছেন।

এই ক্লাবের সেক্রেটারি অরিজিত মৈত্র জানান ,এই বসন্ত উৎসব প্রায় ১০ বছর ধরে হয়ে আসছে। তারা এই দিনটির জন্যই সারাবছর অপেক্ষা করে থাকেন। এবং তিন বছর ধরে রং খেলার পাশাপাশি এই পুজোর আয়োজন করছেন।

এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যুৎ মন্ত্রী শোভন দেব চট্টোপাধ্যায়। দোলযাত্রার এই শুভ দিনে সকলেই সাদা পোশাক  করে নিজেকে সুন্দরভাবে সাজিয়ে নিয়েছিলেন এই বসন্ত উৎসবে।

এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যুৎ মন্ত্রী শোভন দেব চট্টোপাধ্যায়। দোলযাত্রার এই শুভ দিনে সকলেই সাদা পোশাক করে নিজেকে সুন্দরভাবে সাজিয়ে নিয়েছিলেন এই বসন্ত উৎসবে।

তারপর সকলে মিলে একত্রিত হয়ে গানের সঙ্গে নৃত্য পরিবেশন করেন।

তারপর সকলে মিলে একত্রিত হয়ে গানের সঙ্গে নৃত্য পরিবেশন করেন।

সর্বশেষে সকলে মিলে খাওয়া দাওয়া করে অনুষ্ঠান শেষ করেন।

সর্বশেষে সকলে মিলে খাওয়া দাওয়া করে অনুষ্ঠান শেষ করেন।

দুইদিন ব্যাপী মহাসমারোহে পালিত হয় এই দোলযাত্রা উৎসব। আর এই দোল উৎসবে মেতেছে গোটা শহর।

দুইদিন ব্যাপী মহাসমারোহে পালিত হয় এই দোলযাত্রা উৎসব। আর এই দোল উৎসবে মেতেছে গোটা শহর।

loader