বর্ষায় মশার জ্বালাতন! ৭ প্রাকৃতিক টোটকায় রোগমুক্ত থাকুন

First Published 8, Aug 2019, 1:22 PM IST

বর্ষা মানেই মশার উৎপাত। এই সময়ে ম্যালেরিয়া, ডেঙ্গু, চিকনগুনিয়ার মতো রোগ জাঁকিয়ে বসে। এই সময়েই মশার বংশবৃদ্ধি হয়। জন জমতে না দেওয়া, মশারি ব্যবহার করা ইত্যাদি নানা সাবধানতা অবলম্বন করা হয়। এখানে রইল মশার কামড় থেকে বাঁচার প্রাকৃতিক কয়েকটি উপায়। 

ইউক্যালিপ্টাস ও লেবু- সামান্য নারকেল তেলে  সমান পরিমাণে ইউক্যালিপ্টাস তেল ও লেবুর রস মিশিয়ে নিন। এই তেল গায়ে মাখুন।

ইউক্যালিপ্টাস ও লেবু- সামান্য নারকেল তেলে সমান পরিমাণে ইউক্যালিপ্টাস তেল ও লেবুর রস মিশিয়ে নিন। এই তেল গায়ে মাখুন।

কর্পূর- একটি পাত্রে কর্পূর জ্বালিয়ে ঘরের দরজা জানলা বন্ধ করে রাখুন আধ ঘণ্টা। এই গন্ধে মশা, মাছি ও অন্যান্য পোকামাকড়ও পালাবে।

কর্পূর- একটি পাত্রে কর্পূর জ্বালিয়ে ঘরের দরজা জানলা বন্ধ করে রাখুন আধ ঘণ্টা। এই গন্ধে মশা, মাছি ও অন্যান্য পোকামাকড়ও পালাবে।

কফি বীজ- কফি বীজ ব্যবহার করার পরে জমা জলের উপরে ছড়িয়ে দিন। নিমেষে মশার বংশ পালাবে।

কফি বীজ- কফি বীজ ব্যবহার করার পরে জমা জলের উপরে ছড়িয়ে দিন। নিমেষে মশার বংশ পালাবে।

সিট্রোলা অয়েল- জলের সঙ্গে মিশিয়ে নিন সিট্রোলা অয়েল। এবার সেটি ঘরে স্প্রে করে নিন। পালাবে সমস্ত পোকামাকড়া।

সিট্রোলা অয়েল- জলের সঙ্গে মিশিয়ে নিন সিট্রোলা অয়েল। এবার সেটি ঘরে স্প্রে করে নিন। পালাবে সমস্ত পোকামাকড়া।

ড্রাই আইস- ড্রাই আইস থেকে যে কার্বন ডাই অক্সাইড নির্গত হয় তা মশাদের খুব পছন্দের। তাই ঘরের কোণে একটি পাত্রে এটি রেখে দিন।

ড্রাই আইস- ড্রাই আইস থেকে যে কার্বন ডাই অক্সাইড নির্গত হয় তা মশাদের খুব পছন্দের। তাই ঘরের কোণে একটি পাত্রে এটি রেখে দিন।

রসুন- হাতের কাছে কিছু না পেলে রসুনের কয়েকটি কোয়া মিনিট কয়েক জলে ফুটিয়ে নিন। সেই জল স্প্রে করে দিন সারা ঘরে।

রসুন- হাতের কাছে কিছু না পেলে রসুনের কয়েকটি কোয়া মিনিট কয়েক জলে ফুটিয়ে নিন। সেই জল স্প্রে করে দিন সারা ঘরে।

তুলসি- বাড়িতে তুলসি গাছ লাগান। এই পাতার গন্ধে মশা আসে না। প্রয়োজনে তুলসি তেল মাখুন।

তুলসি- বাড়িতে তুলসি গাছ লাগান। এই পাতার গন্ধে মশা আসে না। প্রয়োজনে তুলসি তেল মাখুন।

loader