করোনা রুখতে শিশুদের চাই বাড়তি সতকর্তা, সুরক্ষায় যা যা করবেন

First Published 10, Apr 2020, 8:05 PM

আতঙ্ক যেন পিছু ছাড়ছে না। সারা দেশ জুড়ে গ্রাস করেছে করোনা আতঙ্ক। আতঙ্কের আর এক নাম করোনা। একের পর এক শহরে মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ছে এই রোগ। এই করোনা আতঙ্ক এখন ছড়িয়ে পড়েছে সর্বত্র। বলি থেকে হলি সর্বত্রই রাজ করছে এই করোনা ভাইরাস। ইতিমধ্যেই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা করোনাকে মহামারি বলে চিহ্নিত করেছে। সারা বিশ্ব জুড়ে দাঁপিয়ে বেড়াচ্ছে করোনা ভাইরাস। সারা দেশে একটানা ২১ দিনের লকডাউনের ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার। প্রত্যেকেই কোভিড-১৯-এর জেরে গৃহবন্দি। শিশু থেকে বয়স্ক সকলকেই কাঁবু করেছে এই করোনা ভাইরাস। কীভাবে বাঁচা যাবে এই মারণ ভাইরাস থেকে। বড়রা যতটা নিজের থেকে সাবধান হতে পারবেন বাচ্চারা কিন্তু তা পারবে না। তাই তাদের যত্ন নিতে হবে আমাদেরকেই। কীভাবে এই মারণ ভাইরাস থেকে শিশুকে রক্ষা করবেন, জেনে নিন সহজ টিপসগুলি।
করোনা প্রতিরোধে সবার প্রথম যেটা করতে হবে, ভাল করে হ্যান্ডওয়াশ দিয়ে হাত ধুতে হবে। 

করোনা প্রতিরোধে সবার প্রথম যেটা করতে হবে, ভাল করে হ্যান্ডওয়াশ দিয়ে হাত ধুতে হবে। 

বাইরে বেরোলেই অ্য়ালকোহল বেসড স্যানিটাইজার দিতে হাত পরিস্কার করে ধুয়ে নিন। মাস্ক অবশ্যই ব্যবহার করতে হবে।

বাইরে বেরোলেই অ্য়ালকোহল বেসড স্যানিটাইজার দিতে হাত পরিস্কার করে ধুয়ে নিন। মাস্ক অবশ্যই ব্যবহার করতে হবে।

কারোর যদি জ্বর হয়ে থাকে তার থেকে দূরত্ব বজায় রাখতে হবে।

কারোর যদি জ্বর হয়ে থাকে তার থেকে দূরত্ব বজায় রাখতে হবে।

<br />
নিজের ঘর সবসময় পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন রাখুন। প্রতিদিন জীবাণুনাশক দিয়ে ঘর মুছে নিন।


নিজের ঘর সবসময় পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন রাখুন। প্রতিদিন জীবাণুনাশক দিয়ে ঘর মুছে নিন।

&nbsp;খাওয়ার আগে শিশুদের হাত ভাল করে সাবান দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে।

 খাওয়ার আগে শিশুদের হাত ভাল করে সাবান দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে।

রান্নাঘর যেখানে সবথেকে বেশি সময় কাটান সেখানটাও ভাল করে পরিষ্কার রাখুন।

রান্নাঘর যেখানে সবথেকে বেশি সময় কাটান সেখানটাও ভাল করে পরিষ্কার রাখুন।

জামাকাপড় প্রতিদিন ডেটল দিয়ে ভাল করে ধুয়ে নিন। এক পোশাক টানা ব্যবহার করবেন না।

জামাকাপড় প্রতিদিন ডেটল দিয়ে ভাল করে ধুয়ে নিন। এক পোশাক টানা ব্যবহার করবেন না।

শিশুর খেলনার জিনিসগুলি প্রতিদিন পরিষ্কার করে নিন।

শিশুর খেলনার জিনিসগুলি প্রতিদিন পরিষ্কার করে নিন।

ঠান্ডা জল, আইসক্রিম থেকে এই সময়টা যতটা পারবেন দূরে রাখুন। বাচ্চা কাঁদলেও দেবেন না। বাচ্চার সামনে থেকে যতটা পারবেন দূরে রাখুন। যতটা পারবেন গরম জলে স্নান করান।

ঠান্ডা জল, আইসক্রিম থেকে এই সময়টা যতটা পারবেন দূরে রাখুন। বাচ্চা কাঁদলেও দেবেন না। বাচ্চার সামনে থেকে যতটা পারবেন দূরে রাখুন। যতটা পারবেন গরম জলে স্নান করান।

এই সময়টাতে শিশুদের যতটা পারবেন মশলাযুক্ত খাবার থেকে বিরত রাখুন। সবুজ সাক-সব্জি ও নিয়মিত ফল খাওয়ান।

এই সময়টাতে শিশুদের যতটা পারবেন মশলাযুক্ত খাবার থেকে বিরত রাখুন। সবুজ সাক-সব্জি ও নিয়মিত ফল খাওয়ান।

হাঁচি-কাশি হলে বাড়িতেও মাস্ক পরিয়ে রাখুন। সবসময় রুমাল ব্যবহার করান। যেই সমস্ত জায়গায় লোকজন বেশি সেখান থেকে শিশুকে দূরে রাখুন।

হাঁচি-কাশি হলে বাড়িতেও মাস্ক পরিয়ে রাখুন। সবসময় রুমাল ব্যবহার করান। যেই সমস্ত জায়গায় লোকজন বেশি সেখান থেকে শিশুকে দূরে রাখুন।

loader