পূণ্যার্থীদের সুবিধায় নয়া অ্যাপের ব্যাবস্থা, কবে খুলছে কেদার-বদ্রীর দরজা

First Published 25, Feb 2020, 4:50 PM IST

পূণ্য যাত্রা কেদার-বদ্রী। সারা বছর এই স্থানে ভক্তদের আসার সৌভাগ্য হয় না। শীতের সময় বন্ধ থাকে কেদারের দরজা। গর্ভগৃহ থেকে সরিয়ে আনা হয় বিগ্রহ। সেই বিগ্রহ আবার করে স্থাপন করা হবে, কবে দর্শনার্থীদের জন্য খুলে দেওয়া হবে কেদারের দরজা, এবার সামনে এল সেই তথ্য। চুরান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল বসন্ত পঞ্চমীর দিন।

২৯ এপ্রিল সকাল ৬ টা ১০ মিনিট নাগাদ কেদারের দরজা খুলে দেওয়া হবে ভক্তদের উদ্দেশে।

২৯ এপ্রিল সকাল ৬ টা ১০ মিনিট নাগাদ কেদারের দরজা খুলে দেওয়া হবে ভক্তদের উদ্দেশে।

২৬ এপ্রিল পুজোর পর ওমকারেশ্বরের মন্দির থেকে বিগ্রহ রওনা দেবে পালকি চরে। ২৭ এপ্রিল তা পৌঁছবে গৌরিকুণ্ডে।

২৬ এপ্রিল পুজোর পর ওমকারেশ্বরের মন্দির থেকে বিগ্রহ রওনা দেবে পালকি চরে। ২৭ এপ্রিল তা পৌঁছবে গৌরিকুণ্ডে।

গৌরিকুণ্ডেই রাখা থাকবে সেদিন বিগ্রহ। ২৮ তারিখ সকালে আবারও পালকি করে বিগ্রহ রওনা দেবে, গন্তব্য কেদারনাথের মন্দির।

গৌরিকুণ্ডেই রাখা থাকবে সেদিন বিগ্রহ। ২৮ তারিখ সকালে আবারও পালকি করে বিগ্রহ রওনা দেবে, গন্তব্য কেদারনাথের মন্দির।

২৯ তারিখ সকালে খোলা হবে কেদারনাথের মন্দির। পুজোর পর ভক্তরা মন্দিরে প্রবেশ করতে পারবেন ৬টা ১০ মিনিট থেকে।

২৯ তারিখ সকালে খোলা হবে কেদারনাথের মন্দির। পুজোর পর ভক্তরা মন্দিরে প্রবেশ করতে পারবেন ৬টা ১০ মিনিট থেকে।

অন্যদিকে ৩০ তারিখ খুলে দেওয়া হবে বদ্রীনাথের মন্দির। দরজা ভক্তদের উদ্দেশে খোলা হবে ভোর ৪টে ৩০ মিনিটে।

অন্যদিকে ৩০ তারিখ খুলে দেওয়া হবে বদ্রীনাথের মন্দির। দরজা ভক্তদের উদ্দেশে খোলা হবে ভোর ৪টে ৩০ মিনিটে।

গতবছর এইস্থানে ভক্তের সংখ্যা হয়েছিল ৪০ লক্ষ্যেরও বেশি। এবছর ২৬ এপ্রিল খুলে দেওয়া হবে গঙ্গোত্রী যমুনেত্রীর দরজা।

গতবছর এইস্থানে ভক্তের সংখ্যা হয়েছিল ৪০ লক্ষ্যেরও বেশি। এবছর ২৬ এপ্রিল খুলে দেওয়া হবে গঙ্গোত্রী যমুনেত্রীর দরজা।

এবছর পূণ্যার্থীদের জন্য থাকবে আকর্ষণীয় প্যাকেজ। ২১ হাজার টাকায় মিলবে একাধিক সুযোগ সুবিধা।

এবছর পূণ্যার্থীদের জন্য থাকবে আকর্ষণীয় প্যাকেজ। ২১ হাজার টাকায় মিলবে একাধিক সুযোগ সুবিধা।

পূর্ণ্যার্থীর সহযোগীতার জন্য চালু করা হল মেরি যাত্রা অ্যাপ। এর মাধ্যমে মিলবে একাধিক তথ্য।

পূর্ণ্যার্থীর সহযোগীতার জন্য চালু করা হল মেরি যাত্রা অ্যাপ। এর মাধ্যমে মিলবে একাধিক তথ্য।

শিবরাত্রীতে ঘোষণা করা হয়েছিল মন্দিরের দরজাা খোলার দিন। হাতে আর মাত্র দেড় মাস।

শিবরাত্রীতে ঘোষণা করা হয়েছিল মন্দিরের দরজাা খোলার দিন। হাতে আর মাত্র দেড় মাস।

অন্যান্য বছরের তুলনায় এবার কেদারবদ্রী বেশি বরফে ঢেকে রয়েছে। তাই আগেই শুরু হবে রাস্তা পরিষ্কারের কাজ।

অন্যান্য বছরের তুলনায় এবার কেদারবদ্রী বেশি বরফে ঢেকে রয়েছে। তাই আগেই শুরু হবে রাস্তা পরিষ্কারের কাজ।

loader