দেশে ধীরে ধীরে হ্রাস পাচ্ছে করোনা সংক্রমণের সংখ্যা। প্রতিদিন রেকর্ড হারে কমছে সংক্রমণ। তবে এমন পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্য মন্ত্রক করোনার আরও একটি নতুন রূপ সম্পর্কে তথ্য দিয়েছে। ডিসেম্বর মাসে, যুক্তরাজ্যে করোনার নয়া স্ট্রেনটি দেশে প্রবেশ করেছিল। তবে গতকাল স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে যে, আরও দুটি দেশের স্ট্রেনও দেশের অভ্যন্তরে ইতিমধ্যেই প্রবেশ করেছে। জানা গিয়েছে, দক্ষিণ আফ্রিকা (South Africa) থেকে ভারতে আগত ৪ জনের মধ্যে এই নয়া স্ট্রেনের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। অন্যদিকে একজনের মধ্যে ব্রাজিলিয়ান (Brazil) স্ট্রেন পাওয়া গিয়েছে।

আরও পড়ুন-  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পাওয়া কোভিড-এর নতুন ভেরিয়েন্টগুলি কি আরও সংক্রামক, এই বিষয় কি বলছে গবেষকরা 

স্বাস্থ্য মন্ত্রক জানিয়েছে যে, দক্ষিণ আফ্রিকার স্ট্রেনগুলি আমেরিকা সহ বিশ্বের ৪১ টি দেশে ইতিমধ্য়েই ছড়িয়ে পড়েছে। জানুয়ারিতে ভারতে ৪ জন লোক দক্ষিণ আফ্রিকার সারস-কোভ -২ (SARS-CoV-2) ভাইরাসে সংক্রামিত হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে একজনকে ব্রাজিলিয়ান স্ট্রেনে আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে। আইসিএমআরের (ICMR)মহাপরিচালক বলরাম ভার্গভ বলেছেন যে, 'ভারতে বাইরে থেকে ফিরে আসা চারজন লোক দক্ষিণ আফ্রিকার এই ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে গিয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে ২ জন দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ফিরেছেন, আর ১ জন অ্যাঙ্গোলা (Angola) এবং ১ তানজানিয়া (Tanzania) থেকে ফিরে এসেছিলেন। 

আরও পড়ুন- আপনি কি Vegan, কোনও চিন্তা নেই এই ৫ নিরামিষ খাদ্যে পাবেন ডিমের সম পরিমান প্রোটিন 

এই মুহূর্তে বিদেশ থেকে আগত সমস্ত যাত্রী এবং তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা লোকদের পরীক্ষা করে আলাদা করে রাখা হয়েছে। এই চার সংক্রামিত ব্যক্তির নমুনা থেকে দক্ষিণ আফ্রিকার ফর্ম আলাদা করতে এবং অন্যান্য তথ্য সংগ্রহের চেষ্টা করছে। এই ঘটনার পাশাপাশি স্বাস্থ্য মন্ত্রক এও জানিয়েছে যে, গত ২৪ ঘন্টার মধ্যে কোভিড- এর কারণে কোনও মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়নি এবং নতুন এই স্ট্রেন-এর কোনও সংক্রমণের ঘটনাও শোনা যায়নি। বিশ্বের সমস্ত দেশগুলির মধ্যে ভারতে করোনার সুস্থতার হার সবচেয়ে বেশি।