একেই করোনায় কোনঠাসা গোটা বিশ্ব। তার উপর নতুন করে আতঙ্ক বাড়াচ্ছে ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ। সালমোনেলা নামক ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণে ইতিমধ্যেই অসুস্থ হয়ে পড়েছেন চারশোরও বেশি মানুষ। বিশেষজ্ঞদের দাবী, এবারের এই সালমোনেলা সংক্রমণের উৎস হল লাল পেঁয়াজ।  

জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যেই কানাডা ও আমেরিকায় বহু মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন এই সালমোনেলা সংক্রমণে। এঁদের অনেকেই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। আমেরিকার ৩১টি রাষ্ট্রে দ্রুত বাড়ছে এই ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ। প্রাথমিক তদন্তে মার্কিন বিশেষজ্ঞদের অনুমান, থমসন ইন্টারন্যাশনাল নামক একটি সংস্থার মাধ্যমে সরবরাহ করা লাল পেঁয়াজ থেকেই ছড়িয়েছে একটি ব্যাকটেরিয়া। তাই ইতিমধ্যেই যে সমস্ত জায়গায়, এই সংস্থা থেকে পেঁয়াজ পাঠানো হয়েছিল, সেখান থেকে এগুলি দ্রুত ফিরিয়ে আনা হচ্ছে। 

এই ব্যাকটিরিয়ার সংক্রমণের ফলে কী কী সমস্যা দেখা দিতে পারে এবং কাদের মধ্যে এই সংক্রমণের ঝুঁকি বেশি? চিকিৎসকরা এই বিষয়ে জানিয়েছেন, মূলত ৫ বছরের কম বা ৬৫ বছরের বেশি বয়সীদের এই ব্যাকটিরিয়ার সংক্রমণের ঝুঁকি বেশি। এই সংক্রমণের ফলে মাত্র ৫-৬ ঘন্টার মধ্যেই জ্বর, পেটে ব্যাথা, ডাইরিয়া ও বমি-বমিভাবের মত সমস্যা দেখা দেয়। সংক্রমণের ১-৩ দিনের মধ্যে সমস্যাগুলি প্রকট হতে থাকে। যথাযথ সময়ে চিকিৎসা শুরু করলে ৭-১০ দিনের মধ্যে আক্রান্ত ব্যক্তি সম্পূর্ণ হয়ে উঠতে পারেন। 

তবে চিন্তার কারণ হল, পেঁয়াজের আগেই পোল্ট্রির হাঁস-মুরগির থেকে সালমোনেলা সংক্রমণের খোঁজ মিলেছিল আমেরিকায়। শুধু সেখানেই নয়, এবছর বিশ্বের প্রায় ৪২টি দেশ থেকে এই ব্যাকটিরিয়ার সংক্রমণের খবর মিলেছে। যা চিন্তা বাড়াচ্ছে বিজ্ঞানীদের।