করোনার জেরে অনেকেই মানসিক অবসাদে ভুগছেন। লকডাউনের দীর্ঘ গৃবন্দি জীবন থেকে অনেকেই বেরতে পারছেন না এখনও। আর এই সব সমস্যা থেকে আপনাকে বের করে নিয়ে আসতে পারে বাড়িতে যদি আনেন একটি পোষ্য। কুকুর, বেড়াল বা পাখি যাই হোক না কেন একটি পোষ্যই আপনাকে মুক্তি দিতে পারে মানসিক অবসাদ থেকে বা নিঃসঙ্গতা থেকে। শুধু তাই নয় এমনকি কাটিয়ে দিতে পারে আপনার একাকিত্বও।

একাকিত্ব বা নিঃসঙ্গতা এমন একটি সমস্যা যা শারীর এবং মন দুইয়ের ওপরেই প্রভাব ফেলে। আর এই সমস্যা লকডাউনের কারণে অনেকটাই বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে ইয়র্ক বিশ্ব বিদ্যালয় এবং লিংকন বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি তথ্য অনুসারে মানসিক অবসাদ বা নিঃসঙ্গতা থেকে মুক্তি পেতে একটা বড় ভূমিকা রয়েছে পোষ্যর। যাদের বাড়িতে পোষ্য রয়েছে তারাও এই কথা স্বীকার করেছেন বারবার।

লকডাউনে কম বেশি সকলেই খুব কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে গিয়েছেন। সেই সময়েই বাড়ির পোষা প্রাণীরা এই কঠিন সময়ে জীবনকে কিছুটা সহজ করে তুলেছে বলে মত অনেকেরই।

শুধু সাধারণ মানুষই নন পোষ্যের প্রতি আকর্ষণ রয়েছে বেশ কিছু তারকাদের। তাদের মধ্যেই একজন ধোনি। হামেশাই তাঁকে দেখা যায় তাঁর বাড়ির পোষ্য কুকুরের সঙ্গে সময় কাটাতে। শুধু তিনি নন তাঁর  স্ত্রী -কেও দেখা গিয়েছে বহুবার এমনভাবে।

ধোনি ছাড়াও বহু বলিউড তারকাদেরই দেখা যায় তাদের পোষ্যর সঙ্গে। প্রিয়াঙ্কা চোপড়াকে বহুবার দেখা গিয়েছে তাঁর পোষ্য কুকুরটির সঙ্গে। এছাড়াও টলিউডে দেব, শুভশ্রী, মিমি থেকে শুরু করে বহু তারদেরই দেখা যায় তাঁর পোষ্যর সঙ্গে সময় কাটাতে।

বাড়িতে পোষ্যর গুরুত্ব এখন অনেকটাই বেড়েছে আর তা বোঝা যায় পোষ্য দত্তক নেওয়ার হার বৃদ্ধির পরিমাণ দেখলেই। তবে পোষ্যকে বাড়িতে আনার কারণ শুধু এককিত্ব কাটানো এমনটা কিন্তু একেবারেই হওয়া উচিত নয়। একটি পোষ্যকে আপনি যখনই বাড়িতে নিয়ে আসছেন তখনই আপনার উচিত তার সমস্ত দায়িত্ব নেওয়া। তাকেও পরিবারের একজন সদস্য করে নেওয়া। তার ভালো মন্দের খেয়াল রাখাও।