হাজার ব্যস্ততায় বা কাজের ফাঁকে প্রায়ই আমরা জল পান করার কথা ভুলে যাই। একটি সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে ২৫ শতাংশ মানুষ সারাদিনে জল পান করার কথা ভুলে যান। স্কুলে বা কলেজের পড়ুয়াদের মধ্যেও এই  একই সমস্যা দেখা গিয়েছে। গরম বাড়লে বা শুষ্ক আবহাওয়ার প্রায়ই শরীর ডিহাইড্রেটেড হতে যায়। শরীর ডিহাইড্রেটেড হলে ত্বক নিষ্প্রভ হয়ে পড়ে। এর পাশাপাশি মানসিক চাপ বাড়তে থাকে, হজমে সমস্যা হয়, মুখে ব্রণ দেখা দিতে পারে এবং চুল ওঠার কারণও হতে পারে। তাই ডিহাইড্রেটডকে অবহেলা করা উচিত নয়।

শরীরকে হাইড্রেটেড রাখতে প্রচুর পরিমানে জল পান করার পাশাপাশি ডায়েটে রাখুন এই ফলগুলি। ফুটি, তরমুজ, আঙ্গুর এই জাতিয় ফল। এই ফলগুলিতে ৮০-৯০ শতাংশ জল থাকে। এই ফলগুলি কেবল শরীর হাইড্রেটেড রাখতে সহায়তা করে না, এটি শরীরকে শীতল ও সতেজ রাখতেও সাহায্য করে।

ফুটি

ফুটিতে ভিটামিন এ এবং সামান্য পরিমানে ভিটামিন সি রয়েছে। ১০০ গ্রাম ফুটিতে ৯০.১৫ গ্রাম জল রয়েছে। এটি খেলে দৃষ্টিশক্তি ভালো থাকে। এটি ফাইবার সমৃদ্ধ ফল। এটি খেলে হজমজনিত সমস্যা রোধ হয়। এটি শরীরের জয়েন্টগুলি এবং হাড়ের সমস্যা হ্রাস করে এবং বাতের মতো গুরুতর সমস্যা থেকে আপনাকে রক্ষা করতে সাহায্য করে।

আঙ্গুর

আঙ্গুরে ভিটামিন সি রয়েছে যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সহায়ক। ১০০ গ্রাম আঙ্গুর মধ্যে ৮৪.২৯ গ্রাম জল রয়েছে। অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট এবং অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি বৈশিষ্ট্য হওয়ায়, এটি কিডনির সমস্যা রোধে সহায়তা করে। এটি খেলে শরীরে ভাল কোলেস্টেরলের পরিমাণ বাড়ে। এটি হৃদরোগ এবং স্ট্রোকের ঝুঁকি কমাতেও কার্যকর।

তরমুজ

এই ফলটি জল এবং ইলেক্ট্রোলাইট সমৃদ্ধ যা হজম এবং কিডনিতেও উপকারী। ১০০ গ্রাম তরমুজে ৯১.৪৫ গ্রাম জল রয়েছে। এই মরসুমে এটি খেলে শরীরের জলের ঘাটতি কমাতে সহায়তা করে। এতে উপস্থিত লাইকোপিন ত্বককে রৌদ্র রশ্মি থেকে রক্ষা করে। এটি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে এবং শরীরের টক্সিন অপসারণে খুব কার্যকর।