বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু) বিশ্বব্যাপী নো তামাক দিবস ২০২১ সালের জন্য "কমিট টু কুইট" নাম একটি অভিযান শুরু করেছেন। যেখানে "তামাক ছাড়ার ১০০ টিরও বেশি কারণ" নামে একটি প্রকাশনা প্রকাশ করেছে।


ধূমপান যারা করেননা তাদের তুলনায় ধূমপান যারা করেন না তারা অনেক বেশি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এই তথ্য সামনে আসার পরে অনেকেই করোনার কথা ভেবে ধূমপান ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আর সেটাই সেই সময় একটা চ্যালেঞ্জে পরিণত হয়। তবে এই ধূমপান ছাড়ারই বেশ কিছু কারণ তুলে ধরেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। যে কারণ গুলি দেখিয়ে 'হু' তামাক সেবন ত্যাগ করতে বলেছে, তার মধ্যে রয়েছে- 

তামাক প্রভাব ফেলে চেহারার ওপর- 'হু' তাদের প্রকাশিত নিবন্ধটিতে তুলে ধরেছিল তামাক সেবনের ফলে দাঁতে হলুদ হয়ে যায় এবং দুর্গন্ধ সৃষ্টি করে। এছাড়াও ত্বকের ওপরেও প্রভাব ফেলে তামাক। ত্বকের ওপর বয়েসের ছাপও পড়তে দেখা যায় অনেক সময়েই। 

তামাক সেবন প্রভাব ফেলতে পারে পরিবার ও বন্ধুদের স্বাস্থ্যের ওপরেও- তামাকের ধোঁয়া স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকারক। তামাক সেবনের সময় সামনে কেও থাকলে তার ওপরেও প্রভাব ফেলতে পারে এই ধোঁয়া। এমনটাই উঠে এসেছে একটি গবেষণায়। বিশ্ব স্বস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, প্রতি বছর দশ লক্ষেরও বেশি মানুষ অন্য লোকের দ্বারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

তামাক প্রভাব ফেলে শিশুদের ওপরেও- যারা তামাক সেবন করেন তাদের সন্তানের ওপরও এর প্রভাব পড়তে পারে। ফুসফুসের সমস্যা হতে পারে তাদের। এর থেকে হাঁপানির সমস্যা ও কানের সমস্যাও হতে পারে।