বিশ্বনাথ দাস, হাওড়া-তোলাবাজির থেকে রেহাই পেলেন না খোদ বিজেপিকর্মী। ১০ লক্ষ টাকা তোলা চেয়ে দলীয় কর্মীকে হেনস্থার অভিযোগ বিজেপির মণ্ডল সভাপতির বিরুদ্ধে। শুধু তাই নয়, তোলা না দেওয়ায় তাঁর ঘর মেরামতির জন্য রাখা দশ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে বিজেপির ওই মণ্ডল সভাপতির বিরুদ্ধে। শেষমেষ মন্ত্রী অরূপ রায়ের দ্বারস্থ হয়ে নিরাপত্তার দাবি জানালেন ওই বিজেপি কর্মী। ঘটনার জেরে রাজনৈতিক চাপানউতোর শুরু হয়েছে হাওড়ায়।

আরও পড়ুন-কাশফুল ফুটলেও শোরগোল নেই দুর্গা পুজোর, রোজগার অনিশ্চিত তমলুকের ঢাকিদের

চাঞ্চল্যকর এই অভিযোগ উঠেছে হাওড়ার বালি বাজার এলাকায়। বিজেপি কর্মী সৌরভ পালের দাবি, ঘূর্ণিঝড় আমফানের জেরে তাঁর বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। সেই বাড়ি মেরামতির জন্য বালি একের মণ্ডল সভাপতি রাধারঞ্জন গোস্বামীর শরণাপন্ন হন তিনি। রাধারঞ্জনের কাছে সাহায্য চাইতে গেলে সে দশ লক্ষ টাকা পালটা তোলা চায় বলে অভিযোগ। সৌরভ টাকা দিতে পারবে না বলে সাফ জানিয়ে দেয়। অভিযোগ, তারপরেও সৌরভের উপর টাকা দেওয়ার চাপ দেয়। শুধু তাোই নয়, গত ২৪ অগাস্ট বাড়ি মেরামতির জন্য সামগ্রী নিয়ে যাওয়ার সময়ও তাঁর রাস্তা আটকে রাধারঞ্জন দশ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয় বলেও অভিযোগ। মারধর ও হুমকি দেওয়া হয় সৌরভকে। এই অবস্থায় বালি থানায় অভিযোগ দায়ের করেন সৌরভ। বৃহস্পতিবার মন্ত্রী অরূপ রায় সঙ্গে দেখা করে তাঁর নিরপত্তার আবেদন করেন। বালি থানার ওসিকে সৌরভের নিরাপত্তার নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন মন্ত্রী অরূপ রায়। পাশাপাশি, তাঁর ঘর মেরামতির জন্য পুরসভার কাছে সবরকম ব্যবস্থার আশ্বাস দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন-মাঝরাতে ঘুমন্ত অবস্থায় মহিলার উপর অ্যাসিড হামলা, অভিযোগ প্রাক্তন স্বামীর বিরুদ্ধে

অন্যদিকে, এই ঘটনার পিছনে রাজনৈতিক চক্রান্ত রয়েছে বলে দাবি করেন হাওড়া সদরের বিজেপি সভাপতি সুরজিৎ সাহা। আমফানে সৌরভ পালের ঘর ক্ষতিগ্রস্ত হলে তিনি সরকারের কাছে না গিয়ে বিজেপির কার্যকর্তার কাছে কেন যাবেন? প্রশ্ন তোলেন হাওড়া সদরের বিজেপি সভাপতি।

আরও পড়ুন-পঞ্চায়েত অফিসে তালাবন্দি উপপ্রধান সহ তৃণমূলের ১৩ জন, হাওড়ার ডোমজুড়ে উত্তেজনা