সন্দীপ মজুমদার, হাওড়া:  সামনেই পরীক্ষা, কিন্তু স্মার্টফোন নেই। অনলাইনে ক্লাস করবে কী করে! মানসিক অবসাদে শেষপর্যন্ত আত্মহত্যা করল দশম শ্রেণির এক ছাত্রী। ঘটনাটি ঘটেছে হাওড়ার বালির নিশিন্দা রাজচন্দ্রপুরে। এলাকায় শোকের ছায়া।

আরও পড়ুন: আমফানের ত্রাণ বিলিতে দুর্নীতি, হুগলিতে পঞ্চায়েত প্রধানকে বহিষ্কার তৃণমূলের

মৃতের নাম শিবানী কুমারী। লকডাউনের কারণে বিহারের সমস্তিপুরে পৈতৃক বাড়িতে আটকে পড়েছেন বাবা-মা ও ভাই। নিশিন্দা রাজচন্দ্রপুরে প্রফুল্লনগরে এক দাদার সঙ্গে থাকত শিবানী। লকডাউনে কারণে স্কুল বন্ধ ছিল, ক্লাস হচ্ছিল অনলাইনে। পরিবারের লোকেরা জানিয়েছেন, দিন কয়েক আগে মোবাইল ফোনটি খারাপ হয়ে যায়। তাই অনলাইনে ক্লাস করতে পারছিল না দশম শ্রেণীর ছাত্রীটি। ক্লাস করতে না পারলে যদি পরীক্ষার ফল খারাপ হয়! সর্বক্ষণ আশঙ্কায় ভুগত শিবানী। আশঙ্কা বাড়তে বাড়তে একসময় গ্রাস করে মানসিক অবসাদ। আর তাতেই ঘটল বিপর্যয়।

আরও পড়ুন: করোনা সন্দেহে সৎকারে বাধা, শ্মশানে বিক্ষোভের মুখে মৃতের পরিবারের লোকেরা

তখন দাদা বাড়িতে ছিল না। বৃহস্পতিবার বিকেলে বাড়িতে গলা ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে শিবানী। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় বালি থানার পুলিশ। মৃতদেহটি ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। ঘটনায় আকস্মিকতায় হতবাক সকলেই। মেয়ের এমন পরিণতি মেনে নিতে পারছেন না পরিবারের লোকেরা।