সন্দীপ মজুমদার, হাওড়া:  একই দড়ি থেকে ঝুলছেন স্বামী ও স্ত্রী! বন্ধ ঘর থেকে উদ্ধার হল বৃদ্ধ দম্পতির দেহ। ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে হাওড়া শহরে। তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: রাতভর প্রবল বৃষ্টিতে জলমগ্ন একাধিক এলাকা, শিলিগুড়িতে বিপর্যস্ত জনজীবন

মৃতেরা হলেন বাসুদেব সাধুখাঁ ও তাঁর স্ত্রী সন্ধ্যারানী। উত্তর হাওড়ার কালীচরণ দাস লেনে ছেলে ও বউমার সঙ্গে থাকতেন ওই দম্পতি। তাঁদের তিন মেয়েরই বিয়ে হয়ে গিয়েছে। পরিবারের লোকেরা জানিয়েছেন, রোজকার মতোই রবিবার দুপুরে খাওয়া-দাওয়া সেরে স্ত্রীকে সঙ্গে ঘরে চলে যান বাসুদেব। বন্ধ করে দেন ঘরের দরজাও। এরপর সন্ধ্যা গড়িয়ে গেলেও আর কোনও সাড়াশব্দ পাওয়া যায়নি। কী ব্য়াপার? সন্দেহ হয় ছেলের। শেষপর্যন্ত যখন দরজা ভেঙে ঘরে ঢোকেন, তখন সিলিং থেকে একটি নাইলনের দড়িতে ঝুলন্ত অবস্থায় বাবা-মার মৃতদেহ দেখতে পান তিনি। দড়ি কেটে মৃতদেহ দুটি নামানো হয়। মৃত দম্পতির ছেলেই খবর দেন স্থানীয় গোলাবাড়ি থানায়। দেহ দুটি ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ। তবে ঘর থেকে কোনও সুইসাইড নোট পাওয়া যায়নি বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন: সেতু ধসে পড়ে মর্মান্তিক মৃত্যু, ঝুলছে রেললাইন, রাতভর বৃষ্টির তাণ্ডবে বিচ্ছিন্ন উত্তরবঙ্গ

স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, কলকাতার বড়বাজারে ব্যবসা ছিল বাসুদেবের। সম্প্রতি সেই ব্যবসার দায়িত্ব ছেলের হাতে তুলে দেন তিনি।  তারপর থেকে স্ত্রীর সঙ্গে বেশির সময় থাকতেন বাড়িতেই। স্বামী-স্ত্রী মধ্যে কী কোনও কারণে মনোমালিন্যা হয়েছিল? সেই সম্ভাবনা খারিজ করে দিয়েছেন মৃতের ছেলে। তাঁর দাবি, বাবা-মা সম্পর্ক স্বাভাবিকই ছিল। তাহলে কেন এমন ঘটনা ঘটল? তদন্তে নেমেছে পুলিশ।