বিশ্বনাথ দাস, হাওড়া-চলতি সপ্তাহে ১১ নভেম্বর থেকে চাকা গড়াতে শুরু করবে লোকাল ট্রেন। তার আগে হাওড়ার টিকিয়াপাড়া কারশেডে চলছে চূড়ান্ত পর্যায়ের প্রস্তুতি। লোকাল ট্রেনগুলিকে ধোয়া মোছার কাজ চলছে জোরকদমে। লোকাল ট্রেন কামরায় চলছে স্যানিটাইজেশন।

আরও পড়ুন-বড়সড় ডাকাতির ছক বানচাল, ডাকাতির উদ্দেশ্যে জড়ো হওয়া ৭ দুষ্কতী গ্রেফতার

দীর্ঘ আটমাস পর চাকা গড়বে লোকাল ট্রেনের। ট্রেনে চড়তে কাউন্টার থেকে টিকিট সংগ্রহ করবেন যাত্রীরা। এই অবস্থায় দীর্ঘ আটমাস পর সাধারণ যাত্রীদের জন্য খুলল টিকিট কাউন্টার। হাওড়া স্টেশনের পূর্ব ও দক্ষিণ-পূর্ব শাখায় ট্রেন চলাচল শুরু হচ্ছে। সেকারনে হাওড়া স্টেশন চত্বরে জোরকদমে চলছে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করার কাজ। যুদ্ধকালীন তৎপরতায় চলছে অন্য়ান্য যন্ত্রাংশ মেরামতির কাজ। 

আরও পড়ুন-চোরা শিকারিদের হাত থেকে পরিযায়ী পাখিদের বাঁচাতে উদ্যোগ, রাত পাহারার ব্যবস্থা করল গ্রাম পঞ্চায়েত

লোকাল ট্রেনের কামরাগুলিতে জীবানুনাশক করা হচ্ছে। পাশাপাশি, লোকাল ট্রেনের অন্যান্য যন্ত্রাংশ পরীক্ষা করে দেখে নিচ্ছেন রেলকর্মীরা। অন্যদিকে, রেল লাইনে পেনড্রাল ক্লিপেও গ্রিজ লাগানোর কাজ চলছে। লোকাল ট্রেনের কামরায় প্রত্যেকটি আসনে লালকালি দিয়ে ক্রস মার্ক করা হচ্ছে। ট্রেন জুড়ে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে অনুরোধ করা হচ্ছে। করোনা সুরক্ষা বিধি যাত্রীদের মেনে চলতে ট্রেনের প্রতিটি কামরায় স্টিকার লাগানোর কাজ চলছে জোরকদমে। সব ধরনের প্রস্তুতি খতিয়ে দেখছেন আরপিএফ ও জিআরপির শীর্ষ কর্তারা। পূর্ব রেল ও দক্ষিণ পূর্ব রেলের শাখায় পরীক্ষামূলকভাবে লোকাল ট্রেন চালানো হয়েছে। সাধারণ যাত্রীরা কীভাবে ঢুকবেন ও বেরোবেন তার জন্য কাজের তদারকি করছেন রেলের আধিকারিকরা।