সন্দীপ মজুমদার, হাওড়া: করোনা আতঙ্কের মাঝে ফের ভুয়ো ডাক্তারের পর্দাফাঁস। মধ্যরাতে চেম্বার থেকে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করল পুলিশ। ঘটনাস্থল আবার সেই হাওড়া। প্রতারণা ও ক্নিনিকাল এস্টাবলিশমেন্ট আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: করোনা পরিস্থিতিতে টিউশন ফি মকুব সেন্ট জোসেফ স্কুলের, স্বস্তিতে অভিভাবকরা

নিজেকে ত্বক ও যৌনরোগ বিশেষজ্ঞ হিসেবে পরিচয় দিতেন। দীর্ঘদিন ধরেই মধ্য হাওড়ার দেশপ্রাণ শাসমল রোডের একটি দোকানে অসিত কুমার নামে এক ব্যক্তির প্র্যাকটিস করতেন জানা গিয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, দিন কয়েক আগে চোখের পাশে জ্বালার উপসর্গ নিয়ে এক মহিলা আসেন তাঁর চেম্বারে। রোগীকে দেখে যথারীতি ওষুধও দেন চিকিৎসক। কিন্তু উপকার হওয়া তো দূর, ওষুধ খাওয়ার ওই মহিলার জ্বালা আরও বেড়ে যায়। শারীরিক অবস্থারও অবনতি হয়। এরপর অসিত কুমার রায়ের বিরুদ্ধে ব্যাঁটরা থানায় অভিযোগ দায়ের করেন তিনি।

আরও পড়ুন: লকডাউনে উপার্জন বন্ধ, খাওয়ার খরচ দিতে না পারায় বৃদ্ধ বাবা-কে তাড়াল ছেলে

সোমবার রাতে চেম্বার থেকে অভিযুক্ত অসিত কুমার রায়কে গ্রেফতার করে পুলিশ। ধৃতের কাছ 'এমবিবিএস' লেখা একটি প্রেসক্রিপশন পাওয়া গিয়েছে। তবে এমবিবিএস-র অরিজিনাল সার্টিফিকেট তিনি দেখতে পারেননি বলে জানিয়েছেন তদন্তকারীরা। চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়।