সন্দীপ মজুমদার, হাওড়া: ব্যবধান মাত্র কয়েক দিনের। এক গৃহবধূর শ্লীলতাহানির অভিযোগে ফের উত্তেজনা ছড়াল হাওড়ার বাগনানে। এবার ঘটনাস্থল, বাঙালপাড়া গ্রাম। অভিযুক্তকে রীতিমতো জুতোপেটা করলেন স্থানীয় মহিলারা। তাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: পণের দাবিতে 'খুন', শ্বশুরবাড়িতে মিলল গৃহবধূর ঝুলন্ত দেহ

জানা গিয়েছে, একশো দিনে প্রকল্পে কাজ করেন নির্যাতিতা মহিলা। রবিবার সকালে যখন বাঙালপাড়া পঞ্চাননতলার একটি বাড়িতে রান্না করছিলেন, তখন সেই বাড়িতে যায় প্রকল্পের সুপারভাইজার বাবুল চট্টোপাধ্যায়। এরপর মাস্টার রোলে সই করার সময়ে সে ওই মহিলার শ্লীলতাহানি করে বলে অভিযোগ। নির্যাতিতার চিৎকার করলে শেষপর্যন্ত ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় অভিযুক্ত। এমনকী, ওই মহিলার ছেলেকেও নিজের বাড়িতে ঢুকিয়ে বাবলু গুম করে দেয় বলে অভিযোগ। 

এদিকে এই ঘটনাটি জানাজানি হতেই শোরগোল পড়ে যায় বাগনানে। অভিযুক্ত বাবলু চট্টোপাধ্যাকে বাড়ি থেকে বের করে বেধড়ক মারধর করেন স্থানীয় বাসিন্দারা। পায়ের জুতো খুলে মারধর শুরু করে দেন মহিলারাও। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় বাগনান থানার পুলিশ। কিন্তু ততক্ষণে পরিস্থিতি এতটাই উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে যে, এলাকার রাফ নামাতে হয়। অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: গ্রেফতার আরামবাগ টিভির সম্পাদক, টুইটে মুখ্যমন্ত্রীকে নিশানা রাজ্যপালের

উল্লেখ্য, বাগনানের গোপালপুর গ্রামে মঙ্গলবার রাতে মেয়ে শ্লীলতাহানির হাত থেকে বাঁচাতে গিয়ে মারা যান এক মহিলা। ঘটনায় নাম জড়িয়েছেন খোদ তৃণমূলের পঞ্চায়েত প্রধানের স্বামী-সহ দু'জনের। ঘটনার প্রতিবাদে মুম্বই রোড অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় ও সৌমিত্র খাঁ। শোরগোল পড়ে যায় এলাকায়।