বিশ্ব জুড়ে ত্রাস তৈরি করেছে করোনা ভাইরাস। চিনের গণ্ডী পেরিয়ে বিশ্বের নানা প্রান্তে পৌঁছে গেছে কোভিড-১৯ ভাইরাস। গবেষণায় দেখা যাচ্ছে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া ৮০ শতাংশ রোগীর বয়স ৬০ বছরের বেশি। যার মধ্যে আবার দুই-তৃতীয়াংশ পুরুষ। বয়স্কদের প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যাওয়াতেই এতবেশি মৃত্যুহার বলে মনে করা হচ্ছে। এরমধ্যেই করোনার এপি সেন্টার চিনে নজির গড়লেন এক শতায়ু বৃদ্ধ। পুরোপুরি সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেন তিনি।

বিশ্বে করোনা আক্রান্তদের মধ্যে এখনও পর্যন্ত ওই শতায়ু বৃদ্ধই বয়োজ্যষ্ঠ বলে জানা যাচ্ছে। গতমাসেই সেঞ্চুরি করেন তিনি। তবে করোনার এপিসেন্টার উহানের হাসপাতালে তিনি পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠেছে। গত শনিবার নিজের বাড়িতেও ফিরে গেছেন ওই শতায়ু বৃদ্ধ। 

আরও পড়ুন: ভালবাসার কাছে হেরে গেল করোনা, আইসোলেশন ওয়ার্ডও বিচ্ছেদ ঘটাতে পারল না বৃদ্ধ দম্পতির

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি হুবেইয়ের ম্যাটারনিটি অ্যান্ড চাইল্ড হেলথ কেয়ার হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন তিনি। আগে থেকেই অ্যালজাইমার, হাইপারটেনশন এবং হৃদরোগের সমস্যা ছিল তাঁর। কনভালসেন্ট প্লাসমা থেরাপির পাশাপাশি চনের ট্র্যাডিশনাল মেডিসিন দিয়ে তাঁর চিকিৎসা চলছিল। গত শনিবার উহানের ওই হাসপাতাল থেকে বৃদ্ধ সহ করোনা আক্রান্ত আরও ৮০জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। 

আরও পড়ুন: করোনা বিশ্বজুড়ে প্রাণ কাড়বে ১.৫ কোটি মানুষের, ইতিমধ্যে আক্রান্তের সংখ্যা লাখ ছাড়াল

গত বছর ডিসেম্বরে চিনে প্রথম করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঘটে। এখনও পর্যন্ত এই ভাইরাসে চিনের মূল ভূখণ্ডে ৩০০০ বেশি মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। আক্রান্তের সংখ্যা ৯০ হাজারের বেশি। তবে ক্রমে পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে বলে দাবি করছএ চিনা প্রশাসন। এদিকে চিন থেকে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে ভারত সহ বিশ্বের ৯০টিরও বেশি দেশে। এদের মধ্যে ইতালি ও ইরানের অবস্থা ক্রমেই ভয়াবহ আকার নিচ্ছে। ভারতেও লাফিয় লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা।