অসমের এনআরসি-র চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ হল শনিবার। বিগত কয়েকদিন চরম উৎকণ্ঠায় কাটানোর পর অবশেষে প্রকাশ করা হল অসমের নাগরিকপঞ্জী। গত কয়েকদিন ধরেই চাপা উত্তেজনায় দিন কাটছিল অসমের অসংখ্য সাধারণ মানুষের। শনিবার সকাল ১০ টায় প্রকাশিত হয়েছে অসমের নাগরিকপঞ্জীর চূড়ান্ত তালিকা।প্রায় ৩.২৯ কোটি মানুষ আবেদন করেছিলেন, তালিকায়ে রয়েছে ৩ কোটি ১১ লক্ষ। আর সেই তালিকা থেকে বাদ পড়েছে অসমের প্রায় ১৯ লক্ষ মানুষ। 

প্রসঙ্গত, গত বছর ৩০ জুলাই-য়ে প্রকাশিত অসমের নাগরিকপঞ্জী থেকে বাদ গিয়েছিল প্রায় ৪০ লক্ষ মানুষের নাম। ইতিমধ্যেই অনলাইনে পাওয়া যাবে ন্যাশনাল রেজিস্টার অব সিটিজেন্স-এর তালিকা। প্রশাসনিক সূত্রে জানানো হয়েছে, যাদের ইন্টারনেট সংযোগ নেই তারা রাজ্য সরকার দ্বারা প্রতিষ্ঠিত বিভিন্ন কেন্দ্রে গিয়ে তাঁদের নাম নথিভুক্ত করা রয়েছে কিনা তার আবেদন জানাতে পারে। 

স্ত্রীর নাম থাকবে কি এনআরসি তালিকায়, আতঙ্কে আত্মঘাতী স্বামী

আরও পড়ুন- এইচআইভি আক্রান্ত হওয়ার খবরে প্রাণ গেল এক মহিলার, তদন্তে উঠে এল রিপোর্ট ভুয়ো

আজ এনআরসি তালিকা প্রকাশ,অসমে জারি কড়া সতর্কতা, কী আছে রাজ্যবাসীর ভাগ্যে

অসমের মোট জনসংখ্যার মধ্যে ১৯,০৬,৬৭৫ জন মানুষের নাম মূল তালিকায় স্থান পায়নি বলে জানা গিয়েছে। তবে যাঁদের নাম নাগরিকপঞ্জীর অন্তর্ভুক্ত নয়, তাঁদের এখনই বিদেশি বলে ঘোষণা করা হবে না। আর এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে আদালত। এনআরসি-তে যাদের নাম নেই তাঁরা সকলেই ফরেনার্স ট্রাইব্যুনালে আবেদন করার সুযোগ পাবেন। আপিল করার সময়সূচী ৬০ দিন থেকে বাড়িয়ে দিয়ে করা হয়েছে ১২০ দিন। 

প্রসঙ্গত জম্মু ও কাশ্মীরের মর্যাদা প্রদানকারী ৩৭০ ধারা বাতিলের পর এনআরসি-র তালিকা প্রকাশকেই কেন্দ্রীয় সরকারের অন্যতম বড় কর্মকাণ্ড বলে মনে করছেন সকলে। আর তাই এই এনআরসি-র ফল প্রকাশের আগে কার্যত নিরাপত্তার চাদরে মুড়ে ফেলা হয়েছে গোটা রাজ্য়। রাজ্যে মোতায়েন করা হয়েছে কয়েক হাজার নিরাপত্তা বাহিনী। অসমের উত্তরপূর্ব দিকের সুরক্ষাও যথেষ্ট আঁটোসাঁটো করা হয়েছিল। রাজ্যের একাধিক স্পর্শকাতর জায়গায় জারি করা হয়েছে ১৪৪ ধারা।