গত ২৪ ঘন্টায় প্রায় ২৯০০০টি নতুন কোভিড মামলার সন্ধান পাওয়ায় মঙ্গলবার সকালে ভারতের মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৯ লক্ষ ছাপিয়ে গেল। এদিন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রকের দেওয়া হিসাব অনুযায়ী ভারতের মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৯,০৬,৭৫২-তে। গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২৮,৪৯৮ জন আর কোভিড জনিত কারণে মৃত্যু হয়েছে ৫৫৩ জনের। ফলে ভারতের করোনাভাইরাস মহামারিতে মৃতের সংখ্য়া এখন  ২৩,৭২৭.

দেখা যাচ্ছে, তেলেঙ্গানা, কর্ণাটক, অন্ধ্রপ্রদেশ, তামিলনাড়ুর মতো দেশের দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্যগুলিতে সংক্রমণের মাত্রা হঠাৎ করেই বেড়ে গিয়েছে। কর্ণাটকে এখন পর্যন্ত প্রায় ৩৯,০০০ জন করোনা আক্রান্ত, শুধু তাই নয়, এই রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, তাঁদের আশঙ্কা পরের ১৫ থেকে ৩০ দিনের মধ্যে এই সংখ্যাটা দ্বিগুণ হয়ে যাবে। তাই সংক্রমণের গতি প্রতিরোধ করতে, মঙ্গলবার ১৪ জুলাই থেকে ২২ জুলাই - সাতদিন ফের নতুন করে লকডাউন জারি করা হয়েছে এই রাজ্যে।

তবে ভারতের সুস্থতার হারের আরও উন্নতি ঘটেছে। দেশে অ্যাক্টিভ করোনভাইরাস কেসের সংখ্যা অর্থাৎ এই মুহূর্তে করোনার জীবানু নিশ্চিতভাবে রয়েছে ৩,১১,৫৬৫ জন ভারতীয়ের দেহে। আর সুস্থ হয়ে গিয়েছেন ৫,৭১,৪৬০ জন। ভারতে সুস্থ হয়ে ওঠার জাতীয় এখন ৬২.৯৩ শতাংশ। এর থেকেও ভালো অবস্থায় এখন রয়েছে দিল্লি। রাজধানীর সুস্থ হয়ে ওঠার হার বেড়ে হয়েছে ৭৯.৯৮ শতাংশ। গত ২৪ ঘন্টায় দিল্লিতে নতুন ১,২৪৬টি কোভিড মামলা নথিভুক্ত করা হয়েছে।  আর সুস্থ হয়ে উঠেছেন প্রায় ১,৪০০ জন।

গত কয়েকদিন ধরে রোজি প্রায় ২৪ ঘন্টায় বা একক দিনে সর্বাধিক করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির রেকর্ড হয়ে চলেছিল ভারতে। রবিবার এই রেকর্ড ছিল ২৮,৬৩৭ জনের, সোমবার সকালে আবার তা ভেঙে নতুন রেকর্ড হয়েছিল ২৮,৭০১ জনের। বেশ কয়েকদিন পর অন্তত রেকর্ড ভাঙা সংক্রমণ বৃদ্ধির একটানা প্রবণতাটা ভাঙল।