জম্মু ও কাশ্মীরে গত কয়েকমাস ধরেই সন্ত্রাস বিরোধী অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে ভারতীয় সেনা। তার সাফল্য হিসাবেই উপত্যকায় খতম হচ্ছে একের পর এক জঙ্গি। সোপিয়ান এনকাউন্টারের ২৪ ঘণ্টা না কাটতেই ফের সাফল্য এল ভারতীয় বাহিনীর কাছে। এবার দক্ষিণ কাশ্মীরের পুলওয়ামায় যৌথ বাহিনীর এনকাউন্টারে খতম হল ৩ জঙ্গি।

আরও পড়ুন: আরও চিন্তা বাড়তে চলেছে চিন-পাকিস্তানের, ১০ সেপ্টেম্বর বায়ুসেনায় আনুষ্ঠানিকভাবে অন্তর্ভুক্তি রাফালের

সূত্রের খবর, শুক্রবার রাতেই ভারতীয় সেনা ও জম্মু-কাশ্মীর পুলিশ যৌথভাবে এই অভিযান শুরু করে। পুলিশ গোপন সূত্রে খবর পায় পুলওয়ামা জেলার জাদুরা এলাকায় কয়েকজন জঙ্গি লুকিয়ে আছে। খবর পেয়েই জম্মু কাশ্মীর পুলিশ, সিআরপিএফ  ও সেনার যৌথ বাহিনী রাত একটা নাগাদ ওই এলাকা ঘিরে ফেলে। শুরু হয় তল্লাশি। নিরাপত্তাবাহিনীকে দেখেই পাল্টা গুলি চালাতে শুরু করে জঙ্গিরা। শুরু হয় এনকাউন্টার। রাতভর এই গুলির লড়াই চলে। অবশেষে সেনার হাতে খতম হয় তিন জঙ্গি।

 

 

সেনা সূত্রে খবর, জঙ্গিদের পরিচয় এখনও জানা যায়নি। তারা কোন জঙ্গিগোষ্ঠীর সেটা জানার চেষ্টা চলছে। এখনও ওই এলাকায় কোনও জঙ্গি লুকিয়ে রয়েছে কিনা তার খোঁজ চালাচ্ছেন নিরাপত্তারক্ষীরা। জঙ্গিদের কাছে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার হয়েছে বলে খবর। এদিকে জঙ্গিদের গুলিতে সেনার এক জওয়ানও গুতুতর জখম হন। পরে হাসপাতালে তাঁর মৃত্যু হয়।

আরও পড়ুন: খোদ নিজের দেশেই মোদীকে নিয়ে নাজেহাল জিনপিং, চিনে জনপ্রিয়তায় সমানে সমানে টক্কর দুই রাষ্ট্রপ্রধানের

জম্মু ও কাশ্মীরে গত ২৪ ঘণ্টায় এই নিয়ে ৭ জঙ্গিকে নিকেশ করল যৌথ বাহিনী। শুক্রবারই দক্ষিণ কাশ্মীরের সোপিয়ান জেলায় নিরাপত্তারক্ষীদের গুলিতে খতম হয় ৪ জঙ্গি।  তার মধ্যে আল-বদর জঙ্গিগোষ্ঠীর প্রধান ও প্রতিষ্ঠাতা শকুর আহমেদও রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। স্পেশ্যাল পুলিশ অফিসারের চাকরি ছেড়ে জঙ্গিদলে নাম লেখায়  শকুর। এই এনকাউন্টারে এক জঙ্গিকে আটক করা হয়েছে বলেও খবর। তাকে নিজেদের হেফাজতে নিয়েছেন নিরাপত্তারক্ষীরা। বাহিনী সূত্রে জানা গিয়েছে কাশ্মীরে চলতি বছর  এখনও পর্যন্ত ১৫৩ জন জঙ্গিকে খতম করা সম্ভব হয়েছে।