ভীমা-কোরেগাঁও মামলা প্রত্যাহার করে নেবে মহারাষ্ট্র সরকার। গদিতে বাসর পরেই এমন ইজ্ঞিত দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে। সেই মতই বৃহস্পতিবার দায়ের হওয়া ৬৪৯টি মামলার মধ্যে ৩৪৮টি মামলা প্রত্যাহার করে নেয় মহারাষ্ট্র সরকার। রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনিল দেশমুখ সেই কথা ঘোষণা করলেন। 

মহারাষ্ট্রের বিধান পরিষদে কংগ্রেস বিধায়ক শরদ রাণপিসের প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, " ভীমা-কোরেগাঁও হিংসা নিয়ে মোট ৬৪৯টি মামলা দায়ের হয়েছিল, তারমধ্যে ৩৪৮টি মামলা তুলে নেওয়া হচ্ছে। বাকি মামলাগুলিও তদন্ত শেষ হওয়ার পর তুলে নেওয়া হবে।"

 

 

এদিকে এলগার পরিষদ মামলায় মহারাষ্ট্র পুলিশ আইন অনুযায়ী তদন্ত কমিটি গঠন করা হচ্ছে বলেও জানান অনিল দেশমুখ। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য এলগার পরিষদ মামলায় রাজ্য এসআইটি গঠন করুক চাইছিলেন মহারাষ্ট্রের মহা বিকাশ আগাড়ি-র অন্যতম শরিপ এনসিপি নেতা শরদ পাওয়ার।

কিছুদিন আগেই এলগার মামলার তদন্ত ভার ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সির হাতে দিয়েছিলেন উদ্ধব ঠাকরে। তা একেবারেই না পসন্দ ছিল শরিদ শরদ পাওয়ারের। এদিন অবশ্য সরকার এনআইএ তদন্তের গতিপ্রকৃতি নিয়ে হতাশ বলেই জানান মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। 

আরও পড়ুন: এখনি এফআইআর নয় কপিল-অনুরাগদের নামে ,তিরস্কারের পরেই দিল্লি পুলিশকে সময় দিল হাইকোর্ট

২০১৮ সালের ১ জানুয়ারি ভীমা কোরেগাঁওতে দলিত সমাবেশকে কেন্দ্র করে ছড়িয়েছিল অশান্তি। দক্ষিণপন্থী একটি গোষ্ঠী এবং দলিতদের সংঘর্ষে উত্তাল হয়ে উঠেছিল মহারাষ্ট্রের বিস্তীর্ণ অঞ্চল। অভিযোগ, তার পিছনে মদত ছিল মাওবাদীদের।আজ থেকে ২০১ বছর আগে ভীমা কোরেগাঁও অঞ্চলে দলিতদের বাহিনী উচ্চবর্ণের পেশোয়ার বাহিনীকে পরাজিত করে। দলিতদের সঙ্গে ছিল ব্রিটিশরা। সেই যুদ্ধের একটি স্মারক আছে ভীমা কোরেগাঁওতে। তাকে কেন্দ্র করেই প্রতিবছর জমায়েত হয়।

আরও পড়ুন: গুরুতর অসুস্থ লালুপ্রসাদ যাদব, রাঁচির হাসপাতালে গঠিত হল ৮ সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড

পাশাপাশি মারাঠা সংরক্ষণ আন্দোলনের সময় দায়ের হওয়া ৫৪৮টি মামলার মধ্যে ৪৬০টি মামলাও তুলে নিয়েছে মহারাষ্ট্র সরকার। এদিন সেকথাও ঘোষণা করেন রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনিল দেশমুখ।