দিল্লিতে গত ৯৬ ঘণ্টা ধরে চলা হিংসার জন্য কপিল মিশ্র সহ চার বিজেপি  বিজেপি নেতার দিকে অভিযোগের আঙ্গুল উঠছে। তবে তাঁদের বিরুদ্ধে এখনি এফআইআর করা সম্ভব নয়। বৃহস্পতিবার দিল্লি হাইকোর্টে এমনটাই জানাল দিল্লি পুলিশ। তারপরেই উস্কানিমূলক মন্তব্য করা বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা সংক্রান্ত মামলায় দিল্লি পুলিশ ও কেন্দ্রীয় সরকারকে চার সপ্তাহ সময় দিল দিল্লি হাইকোর্ট। 

আরও পড়ুন: গুরুতর অসুস্থ লালুপ্রসাদ যাদব, রাঁচির হাসপাতালে গঠিত হল ৮ সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড

বৃহস্পতিবার আদালতে দিল্লি পুলিশ জানায়, হিংসার ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ৪৮টি এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। কিন্তু উস্কানিমূলক মন্তব্যের জন্য এখনি কোনও এফআইআর দায়ের করা ঠিক হবে না। রাজধানীর শান্তি ও শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে তা সহায়ক হবে না। 

 

 

দিল্লি পুলিশ হাইকোর্টে জানিয়েছে, এখনও পর্যন্ত হিংসার ঘটনায় গ্রেফতার হওয়াদের মধ্যে ১০৬ জনই স্থআনীয় বাসিন্দা। উত্তর-পূর্ব দিল্লির উত্তেজনা প্রবণ এলাকাগুলির সিসিটিভি উদ্ধার করা হয়েছে। সেই ফুটেজে কী পাওয়া যাচ্ছে তার উপর ভিত্তি করেই গ্রেফতার করা হবে। সিসিটিভি ফুটেজে বহিরাগতদের উপস্থিতিরও প্রমাণ মিলেছে। তাঁদের শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে বলে জানায় দিল্লি পুলিশ। 

বুধবারই রাজধানীতে হিংসার ঘটনায় দিল্লি পুলিশকে একহাত নিয়েছিল দিল্লি হাইকোর্ট। দিল্লি পুলিশকে তুলোধনা করার পাশাপাশি বিধানসভা নির্বাচনের সময় উস্কানি মূলক মন্তব্যকারী সমস্ত নেতাদের বিরুদ্ধে এফআইআর করার নির্দেশ দিয়েছিলেন বিচারপতি এস মুরলীধর। এই নির্দেশের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই অবশ্য বদলি হতে হয় মুরলীধরকে। এদিন অবশ্য উস্কানিমমূলক মন্তব্য পরীক্ষা করে দেখে জবাব দেওয়ার জন্য পুলিশকে চার সপ্তাহ সময় দেয় দিল্লি হাইকোর্ট। মামলার পরবর্তী শুনানি ১৩ এপ্রিল। 

আরও পড়ুন: দিল্লির হিংসা নিয়ে এবার রাষ্ট্রপতির দ্বারস্থ কংগ্রেস, উদ্বেগ প্রকাশ রাষ্ট্রসংঘের

বৃহস্পতিবার দিল্লি হিংসা নিয়ে মামলার শুাননিতে কেন্দ্রের সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা বলেন, যে সমস্ত বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে নির্বাচনের আগে উস্কানি মূলক মন্তব্য করার অভিযোগ উঠেছে সেই নেতাদের বিরুদ্ধে এখনই এফআইআর দায়েরের কোনও প্রয়োজন নেই। এই বিষয়ে আরও কিছুটা সময় চান তুষার মেহেতা। বলা হয়, এই সময়ে বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হলে তা কোনও ভাবেই শান্তি প্রতিষ্ঠার সহায়ক হবে না। 

দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনের আগে প্রচারের ময়দানে দাঁড়িয়ে একের পর এক উস্কানি মূলক মন্তব্য করেছিলেন কপিল মিশ্র, অনুরাগ ঠাকুর, প্রবেশ ভর্মার মত বিজেপি নেতারা। অভিযোগ ওঠে তাঁদের ওই মন্তব্যের জন্যই অশান্ত হয়ে ওঠে রাজধানী। এই মামলার শুাননিতে বুধবার বিজেপি নেতাদের উস্কানিমূলক মন্তব্যের ভিডিও পেশ করা হয়। তারপরেই অভিযুক্ত নেতাদের বিরুদ্ধে কেন এফআইআর দায়ের হয়নি তা নিয়ে প্রশ্ন তোলে আদালত।