২০২২ সালের মধ্যেই ভারত পেতে চলেছে ৪০টি নতুন বন্দে ভারত এক্সপ্রেস ট্রেন। ভারতীয় রেলপথের তরফে ইতিমধ্যেই একটা টাইমলাইন গড়ে তোলা হয়েছে এবং সেই টাইমলাইনের ভিত্তিতেই কাজ এগোবে বলে জানা গিয়েছে। 

প্রশাসনিক সূত্রে খবর, বন্দে ভারত এক্সপ্রেসের কাজ এগোলেও চলতি বছরের শুরুর দিকে এই কাজের জন্য পক্ষপাতিত্বের পাশাপাশি স্বচ্ছতার প্রসঙ্গেও নানা অভিযোগ উঠেছিল, আর সেই কারণেই কাজ বন্ধ করে দেওয়াও হয়। রেল সূত্রে খবর, এবার কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রী পীযুষ গয়ালের হস্তক্ষেপে ইতিমধ্যেই নতুন করে টেন্ডার ডাকার পদ্ধতি শুরু হয়ে গিয়েছে, যাতে করে একটা নির্ধরিত সময়সূচী ধরে এগোনো যায়। 

রেল দুর্ঘটনায় মৃতদের শ্রদ্ধা, দেহ সংরক্ষণে নয়া উদ্যোগ রেল পুলিশের

দিতে হবে প্রাপ্য অধিকার, শিক্ষক দিবসের দিনেই পথে নেমে আন্দোলনের ডাক

টাইমলাইন অনুসারে অক্টোবর মাসের মধ্যেই ট্রেনের প্রোপালশন সিস্টেমের মাধ্য়মে টেন্ডার ডাকার পদ্ধতি শুরু হয়ে যাবে। প্রসঙ্গত বর্তমনে বন্দে মাতরম এক্সপ্রেসের দুটি রেক চলছে, যার মধ্যে একটি চলে দিল্লি থেকে বারণসী। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী গত ১৫ ফেব্রুয়ারি তারিখে দিল্লি- বারাণসীর মধ্যে বন্দে ভারত এক্সপ্রেস বা ট্রেন-১৮ উদ্বোধন করেছিলেন। বিশেষবাবে উল্লেখযোগ্য, ভারতীয় প্রযুক্তিতে তৈরি দেশের প্রথম সেমি হাই স্পিড ট্রেন হল এই বন্দে ভারত এক্সপ্রেস, যার সর্বোচ্চ গতি ১৬০ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টা। 

রেলওয়ে দফতর সূত্রে খবর, এই পরিস্থিতি আরও স্বচ্ছ করে তোলার চেষ্টা করা হচ্ছে কারণ পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ নিয়ে এখনও পর্যন্ত অনেক অভিযোগ তাদের দফতরে জমা পড়েছে। কর্তৃপক্ষের তরফে আশা প্রকাশ করা হচ্ছে যে, ২০২২ সালের মধ্যেই ভারতীয় রেলের তরফে ৪০টি নতুন বন্দে ভারত এক্সপ্রেস ট্রেন নিয়ে আসা হবে।