দুধের শিশুও রক্ষা পেল না পাশবিক অত্যাচারের হাত থেকে। উত্তরপ্রদেশে ধর্ষণের শিকার হতে হল পাঁচ মাসের এক শিশুকন্যাকে। সূত্রের খবর, নিজের খুড়তুতো ভাইয়ের হাতে ধর্ষিত হতে হয়েছে ওই শিশুটিকে। নারকীয় এই ঘটনায় ইতিমধ্যে লখনই হাসপাতালে মৃত্যু হয়েছে তার।

আরও পড়ুন: মেনালিয়াকে নিয়ে তাজ দেখবেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প, তদারকিতে ব্যস্ত যোগী আদিত্যনাথ

একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পাঁচ মাসের মেয়েকে  নিয়ে হারদোই জেলা থেকে এসেছিল শিশুটির মা। অভিযোগ বিয়ের অনুষ্ঠান চলাকালীন শিশুটি বেপাত্তা হয়ে যায়। ঘণ্টাখানেক খোঁজাখুজির পর বিয়েবাড়ির কিছুটা দূরে পাওয়া যায় তাকে। শিশুটির মায়ের দাবি, পাঁচমাসের শিশুকন্যাটিকে পাপ্পু নামে তার এক খুড়তুতো দাদার কোলে শেষবার দেখা গিয়েছিল। শিশুটি নিখোঁজ থাকার সময় পাপ্পুকেও এলাকাতে দেখা যায়নি। 

প্রায় চার ঘণ্টা খোঁজাখুজির পর বিয়েবাড়ির পাশে একটি জায়গায় কান্নার আওয়াজ পান সকলে। সেখানে গিয়ে উদ্ধার করা হয় শিশুটিকে। তখনি তার শারীরিক অবস্থা যথেষ্ট সংকটজনক ছিল। প্রথমে শিশুটিকে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয় বিবেকানন্দ হাসপাতালে, সেখান থেকে পাঠান হয় ট্রমা সেন্টারে। হাসপাতালে চিকিৎসা চলাকালীন মৃত্যু হয় পাঁচ মাসের শিশুটির। 

আরও পড়ুন: 'এটা পাকিস্তান, ভারত নয়', সাংবিধানিক অধিকার নিয়ে মোদী সরকারকে খোঁচা পাক হাইকোর্টের

ইতিমধ্যে শিশুটির খুড়তুতো ভাই পাপ্পুর বিরুদ্ধে মানডিওন পুলিশ স্টেশনে অভিযোগ দায়ের করেছে পরিবার। এদিকে ঘটনার পর থেকেই নিখোঁজ রয়েছে পাপ্পু। তার বয়স সম্পর্কেও এখনও সঠিক কিছু জানা যায়নি। নাবালকদের উপর নির্যতন বন্ধ করতে পকসোর মত কঠোর আইন এনেছে কেন্দ্র। তারপরেও দেশে শিশু নির্যাতনের মত ঘটনা নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হচ্ছে না।