'আলাদিনের প্রদীপ' কিনবেন। যা দিয়ে হবে সব ইচ্ছাপূরণ। এই দিবা স্বপ্নেই, 'তান্ত্রিক' বলে দাবি করা দুই প্রতারকের হাতে আড়াই কোটি টাকা খোয়ালেন এক লন্ডন ফেরত ডাক্তার। চমকপ্রদ এই অপরাধের ঘটনাটি গঠেছে উত্তরপ্রদেশের মীরাট সহরে।

জানা গিয়েছে প্রতারিত ওই ডাক্তারের নাম ডাক্তার লায়েক খান। ২০১৮ সালে সামিনা নামে এক মহিলার অপারেশন করেছিলেন তিনি। তারপর ওই মহিলার ক্ষতস্থানের ড্রেসিং করতে যেতেন। ঘন ঘন যাতায়াতের কারণে ওই মহিলা এবং তার বাড়ির লোকেজদের সঙ্গে ভালো আলাপ পরিচয় হয়ে গিয়েছিল ডাক্তার খানের। সামিনার মাধ্যমেই ওই তান্ত্রিকের সঙ্গে পরিচয় হয়েছিল লন্ডন ফেরত ডাক্তারের।

তান্ত্রিক দাবি করেছিল, তার যাদু-ক্ষমতা রয়েছে। ডাক্তারবাবুকে সে 'আলাদিনের প্রদীপ' এনে দেওয়ার প্রতিশ্রুতিও দিয়েছিল। বলেছিল, সেই প্রদীপের মাধ্যমে ডাক্তার চাইলে বিলিয়নেয়ার অর্থাৎ ১০০ কোটি টাকার মাবলিক হতে পারবেন। 'আলাদিনের প্রদীপ'টি সে ওই ডাক্তারকে দেখিয়েওছিল। এমনকী, অন্ধকার ঘরে সেই প্রদীপ থেকে 'জিন' বের করেও   দেখিয়েছিল তারা। তবে প্রদীপটি তারা তাঁকে বাড়ি নিয়ে যেতে দিত না। বলত, প্রদীপটা সে ছুঁলেই তার জীবনে দুর্ভাগ্য নেমে আসবে। আর এই প্রদীপ-জিন দেখানোর মধ্যে চিকিৎসকরকে চাপ দিয়ে বের করে নিয়েছিল আড়াই কোটি টাকা।

তবে, এইভাবে বেশ কয়েকদিন চলার পর ডাক্তারের স্বপ্নভঙ্গ হয়। ক্রমে তিনি বুঝতে পারেন, অন্ধকার ঘরে যাকে তিনি 'জিন' বলে ভাবছেন, সে আর কেউ নয় সামিনা-র স্বামী ইসলামউদ্দিন। এরপরই ডাক্তার লায়েক খান স্থানীয় থানায় সামিনা, ইসলামউদ্দিন এবং ওই তান্ত্রিকের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ আনেন। তদন্তে পুলিশ জানমতে পেরেছে ওই তান্ত্রিক হল আসলে ইসলামউদ্দিনের বন্ধু আনিস। তাদেরর দু'জনকেই গ্রেফতার করা হয়েছে। তবে সামিনা এখনও পলাতক, পুলিশ তার খোঁজ চালাচ্ছে।