হায়দরাবাদ কাণ্ডে দোষীদের জনতার হাতে তুলে দেওয়ার দাবি উঠেছে। এবার মহারাষ্ট্রে চার বছরের এক নাবালিকাকে ধর্ষণের চেষ্টায় অভিযুক্তকে শাস্তি দিল জনতাই। নগ্ন করে ওই ব্যক্তিকে গোটা এলাকায় ঘোরানো হল। 

একটি সর্বভারতীয় ইংরেজি সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, রবিবার সন্ধ্যায় ঘটনাটি ঘটেছে নাগপুরের পার্ডি এলাকায়। অভিযোগ চার বছরের ওই শিশুকন্যাকে তার বাড়ির মধ্যেই ধর্ষণের চেষ্টা করে ৩৫ বছরের এক ব্যক্তি। 

অভিযুক্ত ওই যুবকের নাম জওহর বৈদ্য। স্থানীয় কো- অপারেটিভ সোসাইটির হয়ে বাড়ি বাড়ি গিয়ে টাকা সংগ্রহ করত সে। সেই কাজে প্রতিদিন ওই শিশুকন্যার বাড়িতেও যেত জওহর। 

আরও পড়ুন- ফাস্ট ট্র্যাক আদালতে দ্রুত বিচারের নির্দেশ, হায়দরাবাদ কাণ্ডে মুখ খুললেন মুখ্যমন্ত্রী

আরও পড়ুন- হায়দরাবাদ কাণ্ডের পর মেয়েকে নিয়ে আতঙ্ক, ঝাড়গ্রামে নীরব প্রতিবাদ বাবার

অভিযোগ, রবিবার যখন জওহর ওই বাড়িতে যায়, তখন শিশুকন্যাটি একা ছিল। সেই সুযোগেই জওহর তাকে যৌন নিগ্রহের চেষ্টা করে। আচমকাই শিশুটির মা বাড়িতে ফিরে আসেন। জওহরের কুকীর্তি দেখে তিনিই চিৎকার করে প্রতিবেশীদের সাহায্য চান। সঙ্গে সঙ্গে আশপাশ থেকে মানুষজন এসে অভিযুক্তকে ধরে ফেলেন। 

এর পরেই অভিযুক্তকে গণধোলাইন দেয় জনতা। তার পর শাস্তি হিসেবে হাত বেঁধে তাকে নগ্ন করে গোটা এলাকায় ঘোরানো হয়। নিজেদের মতো করে অভিযুক্তকে শাস্তি দিয়ে পরে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। 

পার্ডি থানার পুলিশ অভিযুক্ত যুবককে গ্রেফতার করে। ভারতীয় দণ্ডবিধির একাধিক ধারার সঙ্গে পকসো আইনেও অভিযুক্তের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে।