দেশের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীর প্রয়াণে শোকজ্ঞাপন করছে গোটা দেশ। এরই মাঝে টিম ইন্ডিয়ার প্রাক্তন সদস্য় বীরেন্দ্র শেহবাগ জানালেন জেটলি সম্পর্কে এক ভিন্ন গল্প। যা শুনলে মিলবে তাঁর দরাজ হ্দয়ের প্রমাণ।

ক্রিকেট লাভার হিসাবে এমনিতেই তাঁর পরিচিতি ছিল। এক সময় সাংসদ পদের পাশাপাশি সামলেছেন বিসিসিআইয়ের ভায়েস প্রেসিডেন্টের গুরু দায়িত্ব। পাশাপাশি দিল্লি ক্রিকেট অ্য়াসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট করা হয়েছিল তাঁকে। সেই থেকেই টিম ইন্ডিয়ার অন্য়তম সদস্য বীরেন্দ্র শেহবাগের সঙ্গে সখ্য়তা। শেহবাগ জানিয়েছেন,যোগ্য়তা থাকলেও এক সময় দিল্লি থেকে ভারতীয় দলে সুযোগ পাচ্ছিলেন না ক্রিকেটাররা। সেই সময় দিল্লির ক্রিকেটারদের পাশে দাঁড়ান জেটলি। এমনকী খোদ তাঁর বিয়ের ব্য়বস্থা করেন দেশের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী।

আরও পড়ুন: প্রয়াণের আগে শেষ বার্তা, কী বলে গেলেন অরুণ জেটলি

আরও পড়ুন : জিএসটি, রাফাল, মোদী সরকারের বিপদের বন্ধু ছিলেন জেটলি
টিম ইন্ডিয়ার প্রাক্তন সদস্য় জানান,২০০৪ সালে শেহবাগের বাবাকে ৯ অশোক রোডের নিজের সরকারি বাংলো ব্য়বহারের কথা বলেন জেটলি। প্রথমে জেটলির এই প্রস্তাব বিশ্বাস করতে পাারেননি শেহবাগের পরিবার। পরে আরতি ও শেহবাগের বিয়ের অতিথিদের ব্য়বস্থা করতে শুরু করলে ভুল ভাঙে শেহবাগদের। নিজে অশোক রোডের বাংলোতে না থাকায় ওই বাড়ি ব্য়বহার করতে বলেন জেটলি। এমনকী বিয়ের জন্য় বাড়ি সাজানোরও ব্য়বস্থা করেন তিনি। পরে অবশ্য নিজেই বিয়েতে উপস্থিত থাকতে পারেননি জেটলি। বেঙ্গালুরুতে দলের প্রচারে যাওয়ায় বিয়ের দিন থাকতে পারেননি। কিন্তু জেটলি না থাকলেও শেহবাগের বিয়েতে উপস্থিত ছিলেন বলিউড,স্পোর্টস থেকে দেশের অন্য়তম রাজনৈতিক ব্য়ক্তিত্ব। শনিবার এইমসে বারোটা নাগাদ মারা যান অরুণ জেটলি। রাজনৈতিক দল নির্বিশেষে জেটলির প্রয়াণে শোকপ্রকাশ করেছেন তাঁর কট্টর সমালোচকরাও। তাঁদর টুইট প্রমাণ করে সব দলের কাছে সমাদৃত ছিলেন তিনি।

আরও পড়ুন : দলীয় রাজনীতির বাইরে এক অন্য অরুণ, একজন 'আল্টিমেট ব্যাকরুম স্ট্র্যাটেজিস্ট'

আরও পড়ুন :এখনও কাটেনি সুষমা স্বরাজের মৃত্যু শোক, তাঁর প্রয়াণে কী প্রতিক্রিয়া দিয়েছিলেন জেটলি